“বিএনপিকে ভোট দিলে আবারও ‘হাওয়া ভবন’ওবায়দুল কাদের

৬:৩৪ অপরাহ্ন | বুধবার, নভেম্বর ২৯, ২০১৭ জাতীয়

জাকির হোসেন পিংকু, চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি:
আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি বলেছেন,বিএনপিকে ভোট দিলে আবারও পাবেন ‘হাওয়া ভবন’।

তাদের মিথ্যাচার আর কথামালার চাতুরী ছাড়া ভোট চাওয়ার কোন ভাষা নেই। আহসানউলালাহ মাষ্টার,এস.এম কিবরিয়া সহ গত ৫ জানুয়ারী নির্বাচনের পর বহু মানুষের রক্তে হাত রঞ্জিত করে তারা আবারও ক্ষমতায় আসতে চায়। তাদের আগুন তান্ডবের শিকার মানুষের কান্নায় এখনও বাংলার আকাশ ভার। দুর্ণীতিতে চ্যাম্পিয়ন বিএনপি মাসে মাসে আন্দোলনের হুমকি দেয়।

‘একজন’ আন্দোলনের হুমকি দিয়ে চলে গেছেন লন্ডনে টেমস নদীর ধারে। তিনি প্রশ্ন করেন, তাহলে আন্দোলন হবে কি করে ? বিএনপি হচ্ছে ‘বাংলাদেশ নালিশ পার্টি’। কিন্তু যারা উন্নয়ন করেনি,মানুষ পুড়িয়ে মেরেছে,তাদের ভোট দিবেন না। উন্নয়নের, কাজের লোক মনে রেখে ভোট দিবেন। রাজনৈতিক নেতা আর কাজের লোকের ফারাক বুঝতে হবে।

জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্তে মাত্র গত ৩ বছরে দেশে যে উন্নয়ন হয়েছে, ১৯৭৫ পরবর্তী কোন সরকারের আমলেই সেই উন্নয়ন হয়নি। ওবাইদুল কাদের বুধবার দুপুরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের হরিমোহন সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জেলা আ’লীগ আয়োজিত সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কার্যক্রম উদ্বোধণ শেষে জনাকীর্ণ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, মাদক ব্যবসায়ী ও সাম্প্রদায়িকতায় বিশ্বাসীরা আ’লীগের সদস্য হতে পারবেন না। আগামী জাতীয় নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, সুস্থ প্রতিযোগিতা করেন। সকলের সব তথ্যই আছে। যারা জনগনের কাছে গ্রহণ যোগ্য নন তারা মনোনয়ন পাবেন না।

জরিপ করে যাদের জয়লাভের সম্ভাবনা আছে, শুধু তাদেরই মনোনয়ন দেয়া হবে। কোন পদই কাউকে চিরদিনের মত ইজারা দেয়া হয়নি। চাটুকারিতা বা মোসাহেবী করে লাভ নেই। খারাপ লোকদের দলে নিবনেনা। কোন পকেট কমিটি করবেন না। তিনি বলেন, বিএনপি সাংগঠনিকভাবে দূর্বল হলেও জামায়াতকে সঙ্গে নিয়ে জনসমর্থনে তারা দূর্বল নয়। দলের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন,আগামী নির্বাচনে নতুন প্রজন্মের ভোটার ও নারী ভোটার এই দু’¤্রিেনকে টার্গেট করে কাজ করেন। নারীদের গুরুত্ব দিবেন।

জননেত্রী শেখ হাসিনা নারীদের বিভিন্নভাবে ক্ষমতায়ন করেছেন। দেশকে ডিজিটালাইজেশন করেছেন। আজ হাতে হাতে মোবাইল আর প্রসারিত ইন্টারনেট সেবা। তিনি নিজ দলের নেতা-কর্মীদের সমালোচনা করে বলেন, শৃঙ্খলাবদ্ধ হন। দলে নেতা অনেক,কর্মীর অভাব। যারা মঞ্চে উপবিষ্ট তারা নেতা নন বরং মাঠে যারা বসে আছেন,তারাই আসল নেতা।

তিনি বলেন, ভুল আ’লীগেরও আছে। কেউ ফেরেশতা বা দেবতা নন। ভুল স্বীকার করে জনগনের কাছে মাফ চাইতে লজ্জার কিছু নেই। কিন্তু আ’লীগ জনগনের জন্য কাজ করেছে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বে বিভিন্ন ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য সম্মান অর্জন করেছেন। জেলা আ’লীগ সভাপতি মইনুদ্দীন মন্ডলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আ’লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি,আ’লীগ কেন্দ্রীয় কমিটি সদস্য ও সাবেক রাজশাহী সিটি মেয়র এ.এইচ.এম খাইরুজ্জামান লিটন ও নুরুল ইসলাম ঠান্ডু বক্তব্য দেন। অনুষ্ঠানের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন জেলা আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সদর আসনের এমপি আব্দুল ওদুদ। এছাড়া জেলার অন্য দুই এমপি গোলাম মোস্তফা বিশ্বাস ও গোলাম রাব্বনী,সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি বেগম আখতারা জাহান সহ জেলার সব এলাকা এবং রাজশাহীর আ’লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।