সংবাদ শিরোনাম

টেকনাফে বিজিবির সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২, সাড়ে ৩ লাখ ইয়াবা উদ্ধারশাহজাদপুরের খুকনী ইউনিয়ন আ.লীগের সম্মেলনে সভাপতি শাহজাহান, সম্পাদক আফাজহাজি সেলিমের আপিলের রায় পড়া শুরুফতুল্লায় গ্যাসের সিলিন্ডার থেকে আগুন, একই পরিবারের ৬ জন দগ্ধগাজীপুর পিরুজালী থেকে কিশোরের লাশ উদ্ধারদেশেই টিকা উৎপাদনের প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রীকক্সবাজারে ইয়াবা সম্রাটের সহযোগীর বাড়ি থেকে ১ লাখ ২০ হাজার ইয়াবা উদ্ধারসিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ সস্ত্রীক করোনায় আক্রান্তরোহিঙ্গা শিশু অপহরণের পর হত্যার ঘটনায় নারীসহ দু’জন গ্রেপ্তারবেলকুচিতে দূর্বৃত্তদের আগুনে পুড়ে গেল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান !

  • আজ ২৪শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নরসিংদীর বেলাব ছাত্রলীগের কমিটি নিয়ে ‘বাণিজ্যের’ অভিযোগ: পদবঞ্চিতদের বিক্ষোভ, গাড়ী ভাংচুর!

৩:৩৮ অপরাহ্ন | বুধবার, নভেম্বর ২৯, ২০১৭ Breaking News, আলোচিত, ঢাকা, দেশের খবর, স্পট লাইট

মো. হৃদয় খান, স্টাফ রিপোর্টার: নরসিংদীর বেলাব উপজেলা ছাত্রলীগের নতুন আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। আর ঘোষিত কমিটি প্রত্যাখ্যান করে বেলাব বাজার ও নারায়ণপুরে বিক্ষোভ করেছে পদবঞ্চিতরা। এ সময় তারা টায়ারে আগুন দিয়ে সড়ক অবরোধ করেছে। এসময় ৩ টি গাড়ি ভাংচুরের খবর পাওয়া যায়। বিক্ষোভ থেকে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও জেলা ছাত্রলীগের নেতাদের বিরুদ্ধে আহ্বায়ক কমিটি গঠনে পদ-বাণিজ্যের অভিযোগ তোলা হয়েছে।

ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা জানায়, ২০১১ সালে ২৩ মার্চ অনুষ্ঠিত বেলাব উপজেলা ছাত্রলীগের সম্মেলনে রাশেদুল হাসান রাসেল সভাপতি ও সাব্বির আহমেদ ভূঞা কমল সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। আর একই বছরের ২১ জুন নারায়ণপুর রাবেয়া মহাবিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সম্মেলনে রাশেদুল ইসলাম রানা সভাপতি ও সজীব হোসেন সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। তাঁরা সবাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শমসের জামান ভূঞা রিটনের অনুসারী হিসেবে পরিচিত।

এদিকে আগামী জাতীয় নির্বাচনে রিটন দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী বলে সম্প্রতি গুঞ্জন ছড়িয়েছে। অভিযোগ উঠেছে, এ গুঞ্জনকে কেন্দ্র করে স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন ও রিটনের সম্পর্কে টানাপড়েন সৃষ্টি হয়। এরই জেরে গত ২৭ অক্টোবর উপজেলা ও নারায়ণপুর রাবেয়া মহাবিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে জেলা ছাত্রলীগ। এর এক মাস পর গত সোমবার রাতে খালেদ মাসুদ পরশকে আহ্বায়ক ও নুরুল হাসানকে যুগ্ম আহ্বায়ক করে ৩১ সদস্যের বেলাব উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করে জেলা ছাত্রলীগ।
কমিটিতে স্থান পাওয়া অধিকাংশ নেতাই স্থানীয় সংসদ সদস্যের অনুসারী হিসেবে পরিচিত। অন্যদিকে কমিটিতে রিটনের অনুসারীরা উপেক্ষিত হয়েছে।

এদিকে আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণার খবরে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয় রিটনের অনুসারীদের মধ্যে। গতকাল সকাল ১১টার দিকে পদবঞ্চিতরা বেলাব বাজারে বিক্ষোভ করে এবং টায়ারে আগুন ধরিয়ে দিয়ে বেলাব-পোড়াদিয়া, বেলাব-মরজাল, বেলাব-বারৈচা আঞ্চলিক সড়ক বন্ধ করে দেয়।

বিক্ষোভকালে আয়োজিত সভায় বক্তব্য দেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শমসের জামান ভূঞা রিটন, সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম নজরুল, আমলাব ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বশির আহমেদ পরশ মোল্লা, চর উজিলাব ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি বাচ্চু মিয়া, বেলাব উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রাশেদুল হাসান রাসেল, সাধারণ সম্পাদক সাব্বির আহমেদ ভূঞা কমল প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, বেলাব উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাদের কোনো মতামত নেওয়া হয়নি। তাঁরা স্থানীয় সংসদ সদস্য ও জেলা ছাত্রলীগের নেতাদের বিরুদ্ধে কমিটি গঠনে পদ-বাণিজ্যের অভিযোগ তোলেন। একই সঙ্গে তাঁরা ঘোষিত কমিটি প্রত্যাখ্যান করে নতুন কমিটি ঘোষণার দাবি জানান।

এদিকে একই দাবিতে গতকাল দুপুর ১টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের নারায়ণপুরে বিক্ষোভ করে নারায়ণপুর রাবেয়া মহাবিদ্যালয় কলেজ শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভকালে মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ এসে বিক্ষোভকারীদের সরিয়ে নিলে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

জানতে চাইলে রাবেয়া মহাবিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রাশেদুল ইসলাম রানা সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, ‘এমপির গুলশানের বাসায় বসে রাতের আঁধারে জেলা ছাত্রলীগের নেতারা বেলাব উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করেছেন। আমরা শুনতে পেরেছি, আহ্বায়ক পদের জন্য পাঁচ লাখ আর ১ নম্বর যুগ্ম আহ্বায়ক পদের জন্য সাত লাখ টাকা লেনদেন হয়েছে। আর বাকিদের ক্ষেত্রে জনপ্রতি দুই-তিন লাখ টাকায় পদ বিক্রি হয়েছে। এ কারণে সংগঠনের বিধি না মেনে ১৭ জনকে যুগ্ম আহ্বায়ক করা হয়েছে। এ কারণে কমিটিতে ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন করা হয়নি। আমরা এ কমিটি বাতিলের দাবি জানাচ্ছি। ’

অভিযোগ অস্বীকার করে বেলাব উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক খালেদ মাসুদ পরশ বলেন, ‘পদবঞ্চিতরা ক্ষোভ থেকে এ কাজ করেছে। কিছুদিনের মধ্যেই পরিবেশ স্বাভাবিক হয়ে যাবে। আর আমাদের এমপি ও জেলা ছাত্রলীগ নেতারা স্থানীয় রাজনীতিতে স্বচ্ছ ইমেজ রয়েছে। টাকা দিয়ে কোনোদিন পদ কেনা যায় না। তাঁরা পদ না পাওয়ায় আমাদের কমিটি নিয়ে এখন নোংরা অভিযোগ তুলছে, যা কারো কাম্য নয়। ’

অভিযোগের ব্যাপারে সংসদ সদস্য নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূনের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, ‘কমিটি গঠনে আমার কোনো সম্পৃক্ততা নেই। জেলা ছাত্রলীগ কমিটি যাচাই-বাছাই করে এ কমিটি ঘোষণা করেছে। কমিটি ঘোষণার পর যারা পদ পায়নি তারা আহত হয়েছে। আর সে মনোবেদনা থেকেই তারা বিক্ষোভ করেছে। ’ পদ-বাণিজ্যের অভিযোগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ছাত্রলীগে পদ-বাণিজ্যের সংস্কৃতি নেই। যোগ্যরাই এখানে পদ পেয়েছে।