• আজ ১৯শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

আমতলীতে প্রধান শিক্ষকে মারধর! বিক্ষোভ ও মানববন্ধন

৩:৩২ অপরাহ্ন | রবিবার, ডিসেম্বর ৩, ২০১৭ দেশের খবর, শিক্ষাঙ্গন

এম এ সাইদ খোকন, বরগুনা:
বরগুনার আমতলীর খেকুয়ানি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে সভাপতি কর্তৃক মার ধরের ঘটনায় ৩৮টি স্কুলের বার্ষিক পরীক্ষা স্থগিত রেখে স্কুল কলেজ ও মাদরাসা শিক্ষকরা রবিবার সকালে বিক্ষোভ, মানব বন্ধন কর্মসূচী পালন শেষে বোর্ড চেয়ারম্যান ও বরগুনার জেলা প্রশাসক বরাবর স্মরিক লিপি দিয়েছে শিক্ষকরা। এঘটনায় শনিবার গভীর রাতে আমতলী থানায় মামলা হলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে সোহরাব হাওলাদার নামে একজনকে গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে।

মামলা ও বিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, আমতলী উপজেলার খেকুয়ানী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শূন্য পদে সহকারী প্রধান শিক্ষক ও একজন অফিস সহকারী পদে লোক নিয়োগের জন্য বিঞ্জপ্তি প্রকাশ করা হয়। এনিয়ে প্রধান শিক্ষক এসএম মহিউদ্দিন ও বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি ও আমতলী উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আ: সোবহান লিটনের মধ্যে মতপার্থক্য দেখা দেয়। এনিয়ে শনিবার বিকেলে সভাপতি আ: সোবহান লিটন মোবাইল ফোনে প্রধান শিক্ষক এসএম মহিউদ্দিনকে স্কুলে ডেকে প্রধান শিক্ষকের কক্ষে বৈঠকে বসেন।

সেখানে পূর্ব থেকেই লিটনের ভাই শান্টু হাওলাদার, শ্যালক শিমন শরীফসহ ৪-৫ জন উপস্থিত ছিল। বৈঠকের এক পর্যায়ে সভাপতি আ: সোবহান লিটন উত্তেজিহ হয়ে প্রধান শিক্ষক এসএম মহিউদ্দিনকে গালগাল সহ মারধর শুরু করেন। এক পর্যায়ে তার সাথে থাকা চাকু দিয়ে প্রধান শিক্ষকের গালে এবং বুকে আঘাত করলে রক্তাক্ত অবস্থায় সে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে।

এসয় সভাপতির ভাই সান্টু, শ্যালক শিমন শরীফ ও সাথে আসা অন্যরাও প্রধান শিক্ষককে বেধরক মারধর করে কক্ষে আটিকিয়ে রাখেন এসময় টেবিলের ড্রয়ারের তালা ভেঙ্গে সভাপতি আ: সোবহান লিটন ৮৬ হাজার টাকা এবং প্রধান শিক্ষকের পকেট থেকে সভাপতির ভাই সান্টু হাওলাদার ৭ হাজার টাকা ছিনেয়ে নেয় বলেও মামলায় উল্লেখ করা হয়।

মারধরের পর প্রধান শিক্ষকে লাইব্রেরীতে আটকিয়ে রাখার খবর পেয়ে স্থানীয়রা পুলিশের সহায়তায় প্রধান শিক্ষকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে এবং পরে তাকে আমতলী হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। এ ঘটনায় শনিবার রাতে প্রধান শিক্ষক এসএম মহিউদ্দিন বাদী হয়ে সভাপতি আ: সোবহান লিটনসহ ৫ জনকে আসামী করে আমতলী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার পরপরই আমতলী থানার পুলিশ মামলার এজাহার ভূক্ত আসামী মো: সোহরাব হোসেন হাওলাদারকে গ্রেপ্তার করে রবিবার সকালে জেল হাজতে পাঠান। এঘটনায় শিক্ষক সমাজ বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন।

প্রধান শিক্ষক এসএম মহিউদ্দিনকে মারধরের প্রতিবাদে মাধ্যমিকের ৩৮ টি বিদ্যালয়ে রবিবার নির্ধারিত ইসলাম ধর্ম বার্ষিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার সিডিউল থাকলে তা স্থগিত ঘোষনা করে শিক্ষকরা বিক্ষোভ, মানব বন্ধন ও বরিশালের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান এবং বরগুনার জেলা প্রশাসক বরাবর আমতলীর ইউএনওর মাধ্যমে স্মারক লিপি প্রদান করে।

সকাল ১১ টায় আমতলী উপজেলা পরিষদ চত্বরে শিক্ষক সমিতির সভাপতি আব্দুর রশিদ মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ঘন্টাব্যাপী মানব বন্ধন কর্মসূচীতে বক্ত্য রাখেন আমতলী উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো: মজিবুর রহমান, নারী ভাইস চেয়ারম্যান মাকসুদা আকতার জোসনা, যুবলীগ সভাপতি ও বিআরডিবির চেয়ারম্যান জিএম ওসমানী হাসান ও শিক্ষক সমিতির সম্পাদক এনআর হুমায়ুন কবির প্রমুখ।

বক্তারা আ: সোবহান লিটনকে গ্রেপ্তার এবং কমিটির সভাপতির পদ থেকে প্রত্যাহরের দাবী জানান। মানব বন্ধন কর্মসূচীতে সহা¯্রাধিক শিক্ষক ও শিক্ষাথীরা অংশ গ্রহন করে।

খেকুয়ানী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এসএম মহিউদ্দিন জানান, সভাপতি আ: সোবহান লিটন টাকার মাধ্যমে তার পছন্দ সই শিক্ষক নিতে চায়। আমি এতে আপত্তি দেওয়ায় আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে শনিবার বিকেলে বিদ্যালয়ে ডেকে মারধর করে এবং চাকু দিয়ে আঘাত করে আমাকে রক্তাত্ব জখম করে। এছাড়া অফিসের টেবিলের ড্রয়ারে রক্ষিত স্কুলের ৮৬ হাজার এবং আমার পকেট থেকে ৭হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। আমি এর কঠিন বিচার চাই।

অভিযুক্ত আ:সোবাহান লিটন মুঠোফানে জানান নিয়োগ সংক্রান্ত কোনো ঘটনা ঘটেনাই মারধোরের বিষয়টি ও তিনি অস্বীকার করেন । আমতলী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জিএম ওসমানী হাসান জানান, একজন প্রধান শিক্ষকে মারধরের অভিযোগে আ: সোবহান লিটনকে যুবলীগের সাংগঠনিক পদ থেকে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: সহিদ উল্যাহ জানান, প্রধান শিক্ষকে মারধরের ঘটনায় থানায় সভাপতি আ; সোবহান লিটনসহ ৫ জনকে আসামী করে মামলা হয়েছে। মামলার এজাহার ভূক্ত সোহরাব হাওলঅদার নামে একজনকে ওই রাতেই গ্রেপ্তার করে রবিবার সকালে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। অন্য আসামীদেরও গ্রেপ্তারের জোর চেষ্টা চলছে।

আমতলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: সরোয়ার হোসেন জানান, খেকুয়ানী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এসএম মহিউদ্দিনকে সভাপতি কর্তৃক মালধরের ঘটনায় মামলা হয়েছে। মামলা তার নিজস্ব গতিতে চলবে আর শিক্ষকদের সাথে আলাপ আলোচনার করা হয়েছে।
আজ সোমবার থেকে স্কুলের বার্ষিক পরীক্ষার কার্যক্রম যখারীতি চলবে।

তালতলীতে ছিনতাই

বরগুনার তালতলীতে ফরিদ উদ্দিন নামের এক কলেজ ছাত্রের কাছ থেকে নগদ টাকা ও মোবাইল ছিনতাই করে নিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার রাত ৯টার দিকে উপজেলা শহরের কলাবাগান রোডে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, বরগুনার কালিরতবক গ্রামের ইসমাইল হোসেনের পুত্র বরগুনা কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র ফরিদ উদ্দিন তার স্কুল বন্ধু তালতলী ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র সুমনের তালতলীস্থ বাসায় বেড়াতে এসে ঘটনার দিন সন্ধার পর শহরে ঘুরতে নামে।

ছিনতাই কারীরা ফরিদকে স্কুল রোডের দক্ষিণ মাথা থেকে ধরে দেশীয় অস্ত্র ছুরি দেখিয়ে কলাবাগান রোডের নিরব স্থানে নিয়ে যায়। সেখানে ফরিদের কাছে থাকা অটোএফ এ্যানড্রোইড টাস মোবাইল ও নগদ ৩ হাজার টাকা নিয়ে ছিনতাই কারীরা পালিয়ে যায়।