“সরকার মাদ্‌রাসা শিক্ষার আধুনিকায়নে বদ্ধপরিকর” মানিক এমপি

৭:৪৯ অপরাহ্ন | রবিবার, ডিসেম্বর ৩, ২০১৭ জাতীয়, দেশের খবর

মীর মো. আমান মিয়া লুমান, ছাতক (সুনামগঞ্জ) সংবাদদাতা,
সরকারি প্রতিষ্ঠানও পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ি কমিটির সদস্য ও সুনামগঞ্জ-৫ আসনের এমপি মুহিবুর রহমান মানিক বলেছেন, সাধারণ ধারার ন্যায় মাদরাসার শিক্ষার্থীদের দক্ষও আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত করে গড়ে তোলতে সরকার মাদরাসা শিক্ষার আধুনিকায়নে বদ্ধপরিকর। তিনি কোন অপ-প্রচারে বিভান্ত না হওয়ার আহবান জানিয়ে আরো বলেন, দেশে সাধারণ শিক্ষার মানোন্নয়নে সরকারের প্রশংসিত পদক্ষেপ সমূহের সূযোগ-সুবিধা এখন মাদরাসা শিক্ষার দ্বারপ্রান্তে পৌছে দেয়া হয়েছে।

এতে করে মাদরাসা শিক্ষার্থীদের দক্ষ জনশক্তি হিসেবে গড়ে তোলতে সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। যার সূফল এখন থেকেই তারা পেতে শুরু করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় মাদরাসা শিক্ষার উন্নয়নে বঙ্গবন্ধু তনয়া জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকার আরবি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেছেন।

রোববার ছাতকের কালারুকা ইউপির জামেয়া ইসলামিয়া আরাবিয়া দারুল হাদিস হাসনাবাদ মাদরাসায় এমপি মানিকের নামে নতুন দ্বিতল ‘মুহিবুর রহমান মানিক’ ভবনের শুভ উদ্বোধন উপলক্ষে এলাকাবাসি আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় কওমী মাদরাসা শিক্ষাকে স্বীকৃতি প্রদান সম্পর্কে এমপি মানক বলেন হাসিনা কওমী মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীন দাওরায়ে হাদিস সনদকে ইসলামিক স্টাডিজ ও আরবি মাস্টার্স ডিগ্রীর সমমান প্রদান করায় আপনাদের ছেলে-মেয়েরা এই সনদটা পাবে অন্তত তাদের ভবিষ্যতটা আলোর পথে যাত্র শুরু করবে।

তারা দেশে বিদেশে চাকরী করতে পারবে, বিভিন্ন জায়গায় কাজ পাবে। তারা আরো উচ্চমানের শিক্ষা গ্রহণ করতে পারবে। মাদরাসার মুহতামিম (চদা) মাওলানা আব্দুল কাদিরের সভাপতিত্বে ও কালারুকা ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি আফতাব উদ্দিনের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, গনেশপুর মাদরাসার মুহতামিম শায়খ মাওলানা আব্দুল হান্নান, উপজেলা আ’লীগের আহ্বায়ক ছানাউর রহমান তালুকদার ছানা, যুগ্ম-আহ্বায়ক আফজাল হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা কবির উদ্দিন লালা, সুনামগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি বোর্ডের সচিব পীর মোহাম্মদ আলী মিলন, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক উত্তর খুরমা ইউপি চেয়ারম্যান বিল্লাল আহমদ, মাওলানা ফজলুর রহমান, উপজেলা পরিষদ জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা নুরুল হক, কালারুকা ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আউয়াল, আলীগ নেতা আরশ আলী, জালাল উদ্দিন, মনির উদ্দিন, জামাল উদ্দিন, গিয়াস উদ্দিন প্রমূখ।

উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্য সদরুল ইসলাম, সাজিল হোসেন বাবুল মেম্বার, কবির আহমদ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা কবির আহমদ সেবুল, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মঞ্জুর আলম, কৃপেশ চন্দূ কালারুকা ইউপি যুবলীগের সভাপতি ফজলু মিয়া মেম্বার, সাধারণ সম্পাদক সাব্বির আহমদ, যুগ্ম সম্পাদক জাহেদ চৌধুরী, শানুর মিয়া, গোবিন্দগঞ্জ আব্দুল হক স্মৃতি অনার্স কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি তাজামুল হক রিপন, ছাত্রলীগ নেতা শিপলু আহমদ, মাহবুব আলম, সায়েস্তা তালুকদার, আইন উদ্দিন, বখতিয়ার আহমদ, মমিনুর রহমান প্রমূখ। সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন হাফেজ সাইফুল ইসলাম।

টিাকা প্রদানের আশ্বাস ছাতকের গোবিন্দগঞ্জে গোল্ডেন লাইফের জটিলতার অবসান

মীর মো. আমান মিয়া লুমান, ছাতক (সুনামগঞ্জ) সংবাদদাতা,
ছাতকে গোবিন্দগঞ্জে গোল্ডেন লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানীর অভ্যন্তরে সৃষ্ঠ জটিলতার অবসান ঘটেছে। গ্রাহকদের আন্দোলন ও পত্র-পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর গতকাল রোববার সকালে বীমা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (অর্থ মন্ত্রণালয়ের অধিনে) ডেপুটি সেক্রেটারি ড. বশিরুল আলম গোবিন্দগঞ্জ এসে গোল্ডেন লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের অফিস পরিদর্শন করে গ্রাহকদের মধ্যে গণশুনানি করেন।

এসময় গ্রাহকদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ফারুক আহমদ, খানম বাহার, সাহেরা খানম শেলি, হাওয়ারুন নেছা, রনি বেগম প্রমূখ। ছাতক উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ নাসির উল¬াহ খান, গোল্ডেন লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানীর ডিএমডি সমির কান্তি দেব, গোবিন্দগঞ্জ-সৈদেরগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান আখলাকুর রহমান এসময় উপস্থিত ছিলেন। ড. বশিরুল আলম তার বক্তব্যে বলেন, গ্রাহকদের স্বার্থ দেখার দায়িত্ব বীমা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের। তিনি বলেন, এখানে অনিয়ম হয়েছে। এঅনিয়মের কোন ছাড় দেয়া হবেনা।

সকল গ্রাহকদের টাকা দিতে হবে। গোল্ডেন লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানীর ডিএমডি সমীর কান্তি দেব তার বক্তব্যে গোবিন্দগঞ্জ অফিসের একশ’ থেকে দেড় শ’জন গ্রাহকের টাকা দ্রুত পরিশোধের আশ্বাস প্রদান করেন এবং মেয়াদ পূর্ণ হলে অন্যান্য গ্রাহকদের টাকা মার্চ মাসের মধ্যেই দেয়া হবে বলে জানান।

“বিএনপিকে নির্বাচনের বাইরে রেখে ক্ষমতায় যাবার স্বপ্ন দেখছে সরকার”কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন

মীর মো. আমান মিয়া লুমান, ছাতক (সুনামগঞ্জ) সংবাদদাতা,
বিএনপির কেন্দ্রিয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক, সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন বলেছেন, বিএনপিকে বাইরে রেখে আবারো নির্বাচনের দিকে এগুচ্ছে সরকার। বিনা ভোটে তারা ক্ষমতায় যেতে অপচেষ্ঠায় লিপ্ত রয়েছে।

অনির্বাচিত সরকারের এ আশা কখনো পূরণ হবেনা। দেশের সম্পদ লুঠ এবং বিরুধি দলিয় নেতাকর্মিদের উপর হামলা-মামলা, খুন-গুম করে সরকার জনগনের আস্থা হারিয়েছে। দেশবাসি আওয়ামী দুঃশাষনে আর অতিষ্ঠ হতে চায়না। দেশের জনগণ লুঠপাটকারি অনির্বাচিত এ সরকারের বিদায় ঘন্টা বাজাতে প্রস্তুত। জনগনের ভোট নির্বাচিত জবাবদিহিতা মূলক সরকার প্রতিষ্ঠায় দেশবাসি ঐক্যবদ্ধ।

তিনি বলেন, সকল ষড়যন্ত্রের জাল ছিন্ন করে দেশে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হতে হবে। এজন্যে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে গণআন্দোলন চালিয়ে যাবো। শনিবার ছাতকে নোয়ারাই ইউনিয়নের লক্ষিবাউর বাজার সংলগ্ন মাঠে বিএনপির সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপি নেতা সাবেক মেম্বার ইমতিয়াজ আলীর সভাপতিত্বে এবং ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কয়েছ আহমদ ও যুবদলের সাধারণ সম্পাদক লিজন মিয়া তালুকদারের যৌথ পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, ছাতক পৌর বিএনপির আহবায়ক আলহাজ্ব সৈয়দ তিতুমীর, দোয়ারা উপজেলা বিএনপির আহবায়ক সামছুল হক নমু, উপজেলা বিএনপির সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুর রহমান, কেন্দ্রিয় কৃষকদলের সাবেক সহ-সভাপতি ডাক্তার আফসার উদ্দিন, দোয়ারা উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক আলতাফুর রহমান খসরু, ছাতক উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক নজরুল ইসলাম, জেলা বিএনপি নেতা সামছুর রহমান সামছু, উপজেলা কৃষক দলের সভাপতি ছালেহ আহমদ, ছাতক উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক হিফজুল বারী শিমুল, সাবেক জেলা বিএনপি নেতা ছায়াদুজ্জামান ছায়াদ, বেডফোর্ড বিএনপির সাবেক সভাপতি ময়না মিয়া, পৌর বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য লায়েক শাহ, সামছুর রহমান বাবুল, কালারুকা ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সভাপতি এডভোকেট আব্দুল কাহার, ছাতক ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি জাহেদুল ইসলাম আবাব, উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য আতাউর রহমান এমরান, বিএনপি নেতা কাজি মাওলানা আব্দুস সামাদ, দিল হোসেন মেম্বার, দোয়ারা উপজেলা যুবদলের আহবায়ক ইউপি চেয়ারম্যান হাজি আব্দুল বারি।

বক্তব্য রাখেন, বিএনপি নেতা ফিরোজ মিয়া, দোয়ারা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক যুবায়ের আহমদ মজুমদার, পৌর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক খায়ের উদ্দিন, উপজেলা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক সাজ্জাদ হোসোইন, আলী আশরাফ তাহিদ, এমরান আহমদ, উপজেলা শ্রমিকদলের সাধারণ সম্পাদক শফি উদ্দিন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি বাকি বিলাহ, যুগ্ম সম্পাদক তোফায়েল খান বিপন, ইউনিয়ন যুবদলের সভাপতি আব্দুল করিম চন্দন, যুবদল নেতা গোলাম মোস্তফা, ইকবাল হোসেন, সাজ্জাদ হোসেন, সাদ্দাম হোসেন, আব্দুল কাইয়ূম, কুতুব উদ্দিন, বুরহান উদ্দিন, জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক তোফাজ্জল হোসেন, জেলা ছাত্রদল নেতা রায়হান উদ্দিন, পৌর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মুনিম মামনুন, উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক আব্দুলহ আল মুমিন, ছাত্রদল নেতা ইসমাইল হোসেন সানি, জাহিদুল ইসলাম, সাচ্ছা আবেদীন, এনামুল হক, মাহবুব রেজা, ইকবাল হোসেন প্রমূখ।

সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন, বিএনপি নেতা মনির উদ্দিন মেম্বার। সভার শুরুতে ক্বোরআন তেলাওয়াত করেন মাওলানা নজির আহমদ। সভায় মনু মিয়া, কয়েছ আহমদ, আলমাছ আলী, আব্দুন নূর, সমুজ আলী, মাসুক মিয়া, আব্দুল বাছিরসহ শতাধিক নেতাকর্মি সদস্য পদ নবায়ন ও নতুন সদস্য পদ গ্রহণ করেছেন।

এসময় কালারুকা ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান কুতুব উদ্দিন, সিকন্দর আলী বাদশা, আব্দুল আউয়াল, আব্দুল আলিম, লুৎফুর রহমান মানিক, সমুজ আলী মেম্বার, প্রবাসি মখন খান, প্রবাসি আবুল হাসান, আছলম আলী, মস্তাব আলী, গৌছ উদ্দিন তালুকদার, রূপা মিয়া, খলিলুর রহমান, খুরশেদ আলম, সরাফত আলী, আব্দুন নূর, আকবর আলী, ফয়াজ আলী, আহমদ আলী, কালা মিয়া, সাজ্জাদ মিয়া তালুকদার, আব্দুল আহাদ, শিক্ষক জালাল উদ্দিন, আব্দুল বাছিত মেম্বার, গয়াছ মিয়া তালুকদার, চান মিয়া, আফতাব মিয়া, সুলেমান মিয়া, আব্দুল মোমিন, ফখরুল আলম, তেরা মিয়া, আব্দুল লতিব, আব্দুল মতিন, ওমর ফারুক, আবুল হোসাইন, সফিক আলী, শাহবাজ মিয়া, আব্দুস সামাদ, যুবদল নেতা জাহির খান, আসমান আলী, মখন মিয়া মেম্বার, আব্দুর রউফ, সাজ্জাদ মিয়া, মানিক মিয়া, ইউনুছ আলী, জহির হোসেন, জগলু মিয়া, মতিউর রহমান, জুনু মিয়া, আসিক মিয়া, পৌর শ্রমিকদলের সভাপতি মোজাম্মেল হক রুহেল, উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ফয়জুল আহমদ পাবেল, সহ-সভাপতি ফখর উদ্দিন, আরিফ বিলাহ, যুগ্ম সম্পাদক ইজাজুল হক রনি, পৌর ছাত্রদলের সভাপতি তোফায়েল আহমদ, উপজেলা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক বাহা উদ্দিন শাহি, ছাত্রদল নেতা মামুন রেজা, নোমান ইমদাদ কাননসহ বিএনপি, যুবদল, কৃষকদল, শ্রমিকদল, স্বেচ্ছাসেবকদল ও ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ছাতকের গোবিন্দগঞ্জে হোটেল শ্রমিক ইউনিয়নের বিক্ষোভ মিছিল

সিলেট জেলা হোটেল শ্রমিক ইউনিয়ন ও বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘ সিলেট জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সাদেক মিয়ার উপর সন্ত্রাসি হামলার ঘটনায় ছাতক উপজেলা ও গোবিন্দগঞ্জ আঞ্চলিক হোটেল শ্রমিক ইউনিয়নের উদ্যোগে গোবিন্দগঞ্জে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার গোবিন্দগঞ্জ ট্রাফিক পয়েন্টে উপজেলা হোটেল শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সালমান হোসেনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন, সিলেট জেলা জাতিয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্টের যুগ্ম সম্পাদক শাহিন আলম, ছাতক উপজেলা হোটেল শ্রমিক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি মানিক দাস, সহ-সম্পাদক আলী মিয়া, প্রচার সম্পাদক আল আমিন, দফতর সম্পাদক মতিন মিয়া, সদস্য হাসান আহমদ, লাফার্জ-সুরমা শ্রমিক ইউনিয়ন নেতা শুভ আহমেদ প্রমূখ। বক্তারা বলেন, ৩০নভেম্বর জাতিয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্টের মিছিল শেষে সংগঠনের অফিস থেকে বের হলে বিনা উস্কানিতে সন্ত্রাসিরা হামলা চালিয়ে তাকে আহত করেছে। অভিলম্বে এসব সন্ত্রাসিদের গ্রেফতার ও তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন বক্তারা।

ছাতকে প্রতিপক্ষের হামলায় মহিলাসহ আহত ১০

ছাতকে প্রতিপক্ষের হামলায় মহিলাসহ ১০ব্যক্তি আহত হয়েছে। গুরুতর আহত ৬জনকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শনিবার সকালে উপজেলার দোলারবাজার ইউনিয়নের পালপুর সারেংবাড়ির রাস্তায় এহামলার ঘটনা ঘটে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গ্রামের তেরাব আলীর পুত্র ছোট মিয়া মঈনপুর যাবার পথে রাস্তায় তার উপর হামলা করে প্রতিপক্ষের লোকজন। খবর পেয়ে তার আত্মীয়-স্বজন ঘটনাস্থলে আসলে তাদের উপরও হামলা করা হয়।

হামলায় পালপুর গ্রামের রাশিদ আলীর পুত্র জাহির (২৫), তেরাব আলীর পুত্র ছোট মিয়া (৩৫), আনর আলী (৩০), আসক আলীর পুত্র কালাম (২৭), মনসুর আলীর স্ত্রী মায়া বেগম (৪০), তেরাব আলীর মেয়ে জাহারুন নেছা (২০) গুরুতর আহত হয়েছে। আহতদের সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অন্যান্য আহতদের কৈতক হাসপাতালসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা প্রদান করা হয়েছে। গতকাল রোববার থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। স্থানীয় একটি সূত্র জানায়, পালপুর গ্রামের নূর মিয়া ও আব্দুল জলিল মানিক পক্ষ দ্বয়ের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে।

দু’পক্ষের মধ্যে একাধিক হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। থানা ও আদালতে রয়েছে একাধিক মামলা। ছাতক থানার ওসি আতিকুর রহমান জানান, উভয় পক্ষের মধ্যে বিরোধ থাকায় পক্ষে-বিপক্ষে মারামারির ঘটনায় বেশ কয়েকটি মামলা রয়েছে।

ছাতকে স্বেচ্ছাসেবক দলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা

সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার উপর গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে ছাতকে স্বেচ্ছাসেবকদলের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল রোববার সকালে শহরে বিক্ষোভ মিছিল শেষে কোর্ট রোডে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি বাকিবিল¬াহর সভাপতিত্বে ও সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসেনের পরিচালনায় প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সভাপতি সুলেমান মিয়া, পৌর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম-সম্পাদক তোফায়েল খান বিপন, সাংগঠনিক সম্পাদক রাকিব আলী, প্রচার সম্পাদক জাহাঙ্গির আলম রাসেল, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা সুলতান মিয়া, রাসেল আহমদ, মতিউর রহমান, আলাল আহমদ, তারেক আহমদ, মাসুক মিয়া, জসিম উদ্দিন, সুমন মিয়া, আলমগির হোসেন, উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ফয়জুল আহমেদ পাবেল, পৌর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মুনিম মামনুন, উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ম-সম্পাদক ইজাজুল হক রনি, ছাত্রদল নেতা নোমান ইমদাদ কানন, রাহেল আহমদ প্রমূখ।

সভাপতি মতিন সম্পাদক কবির ছাতক উপজেলা (উত্তর) আল-ইসলাহ কমিটি গঠন

বাংলাদেশ আনজুমানে আল ইসলাহ ছাতক উপজেলা (উত্তর) শাখার দ্বি-বার্ষিক কাউন্সিল সম্পন্ন হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে ছাতক পৌরশহরের জালালিয়া ফাজিল মাদরাসা হলে আল ইসলাহ উপজেলা উত্তর শাখার সভাপতি মাওলানা কামরুজ্জামানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মাওলানা এমএ মতিনের পরিচালনায় এক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রিয় আল ইসলাহর সদস্য অধ্যক্ষ মাওলানা আবদুল আহাদ। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ জেলা আল ইসলাহর সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আলী আসগর খান, সহ-সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মাহবুবুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা মোশতাক আহমদ, সুনামগঞ্জ জেলা তালামীযের সভাপতি হাফেজ রফিকুল ইসলাম তালুকদার, সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল কাইয়ূম, অফিস সম্পাদক তোফায়েল আহমদ মিনার, ছাতক পৌর আল ইসলাহ সভাপতি ইলিয়াসুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মুহি উদ্দিন।

সভায় সর্ব সম্মতিক্রমে মাওলানা এমএ মতিনকে সভাপতি, মাওলানা কবির আহমদকে সাধারণ সম্পাদক ও কারি রেজাউল করিমকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে ২১ সদস্য বিশিষ্ট আল ইসলাহ ছাতক উপজেলা (উত্তর) শাখার দু’বছর মেয়াদি কমিটি গঠন করা হয়।

কমিটির অন্যান্য দায়িত্বশীলরা হলেন, সহ-সভাপতি মাওলানা শামছুল হক নুরী, মাওলানা নাজমুল হক নসিব, সহ-সাধারণ সম্পাদক আবদুল আলিম, মাওলানা শামছুল হুদা, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা জুয়েল আহমদ, প্রচার সম্পাদক মাওলানা আবদুল ওয়াদুদ, সহ-প্রচার সম্পাদক মাওলানা কামাল আহমদ, অর্থ সম্পাদক মাওলানা আকিকুর রহমান, প্রশিক্ষণ সম্পাদক মাওলানা মুফতি আবদুস সালাম, শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক হাবিবুর রহমান বাবলু, সমাজ কল্যান সম্পাদক হেলাল আহমদ, পাঠাগার সম্পাদক আমির আলী, অফিস সম্পাদক সেলিম আহমদ কাওছার, নির্বাহী সদস্য হাফেজ তাজির উদ্দিন, মাওলানা আমিনুর রশিদ, সাজ্জাদুর রহমান, সালাহ উদ্দিন ও কুতুব উদ্দিন।

ছাতকে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বসত বাড়ি জবর-দখলের অভিযোগ

ছাতকে সরকারের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জোরপূর্বক পাকা দেয়ালসহ অবৈধ স্থাপণা নির্মাণ করে বসতবাড়ি জবর-দখলের অপচেষ্ঠা চালাচ্ছে একটি অসাধুচক্র। মালিক পক্ষ বাড়িতে না থাকায় এদখল প্রচেষ্ঠা অব্যাহত রেখেছে বলে জানা গেছে। এব্যাপারে কালারুকা ইউপির হরিশপুর গ্রামের মৃত নূর মিয়ার পুত্র রিপন মিয়া বাদি হয়ে সুনামগঞ্জ আদালতে একটি মামলা (নং বিবিধ ৩৮১/২০১৭ইং) দায়ের করেছেন। পরে তদন্ত শেষে এসআই কামাল হোসেন থানার স্মারক (নং ১২৪৯, তাং ১৯.১১.২০১৭ইং) মূলে আদালতে একটি প্রতিবেদন দাখিল করেন।

এতে বলা হয়, গত ২১নভেম্বর ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও দু’পক্ষের মধ্যে কার্যবিধি ১৪৪ধারার নোটিশ জারি করা হয়। এসময় ইউপি সদস্য ফজলু মিয়াসহ এলাকাবাসি উপস্থিত ছিলেন। ২য় পক্ষের একই গ্রামের আব্দুল খালিকের পুত্র জাবেদও কবির এবং মনু মিয়ার পুত্র ফারুক মিয়াসহ অন্যান্যরা পুলিশের উপস্থিতিতেই দঃবিঃ ১৪৪ধারা অমান্য করে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করতে থাকে। ২২৫জেএলস্থিত নিজগাঁও মৌজার এসএ খতিয়ান ৮৫২ ও নামজারি খতিয়ান নং ২৬৬৫, এসএ দাগ নং ২৫৫২, পরিমান ১৩শতক ১৪পয়েন্ট বাড়ি রকম ভূমি বাদির খরিদাও মৌরসী স্বত্ব থাকায় এখানে বসত ঘর নির্মাণ করে প্রায় ২০বছর থেকে পরিবার নিয়ে বসবাস করে আসছেন।

এখানে নিজের মালিকানা ভূমির সাথে চাচাতো বোন স্বপনা বেগমের কাছ থেকে তার পৈতৃক ও খরিদা ভূমি ক্রয় করেন বাদি পক্ষ। গত দু’বছর আগে ব্যবসা-বাণিজ্যের সুবিধার্থে বাদি স্ব-পরিবারে ছাতক শহরে বসবাস করার সূযোগে ২য় পক্ষের লোকজন তার বসত ঘরের তালা ভেঙ্গে জবর-দখলের পাঁয়তারা করতে থাকে। বাদি তাদের অপতৎপরতা জানতে পেরে এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিদের নিকট বিচার প্রার্থী হন।

কিন্তু ১৬নভেম্বর ২য় পক্ষ বিচার না মেনে জোরপূর্বকভাবে বাদির ঘরের চারপাশে পাকা দেয়াল নির্মাণ শুরু করে। এতে বাদি মামলা করলে আদালত এখানে দঃবিঃ ১৪৪ধারা জারি করেন। পরে ২১নভেম্বর এর নোটিশ নিয়ে পুলিশ বাড়িতে গেলে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য পুলিশের উপস্থিতিতেই অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ কাজ অব্যাহত রাখে। পরের দিন ২২নভেম্বর পূনরায় বিবাদিরা পাকা দেয়ালের কাজ অব্যাহত রাখে বলে তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়। এনিয়ে পক্ষে-বিপক্ষে উত্তেজনাসহ আইন-শৃংখা পরিস্থিতির মারাত্মক অবনতি ঘটতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এদিকে সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে ছাতক সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসের দলিল (নং ৪৪৭৬/২০১৪ইং, ভলিয়ম-১৪৭, পৃষ্ঠা নং ২০৯/১৮) মূলে নিজগাঁও মৌজার ২৫৫২, ২৫৫৪ ও ২৫৫৫দাগের লায়েক পতিত, পুকুর ও বাড়ি রকম ১৬শতক ভূমি খরিদ করেন মনু মিয়ার পুত্র ফারুক মিয়া। নিঃসন্তান মখলিছ আলীর কথিত উত্তরাধিকার দেখিয়ে লিখক সুনীল দাস (নং ৪৩) রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে দলিলটি রেজিষ্ট্রি করেছেন বলে জানা গেছে।

এখানে ১৬শতক ভূমির মূল্য সরকারের নির্ধারিত ৬লক্ষাধিক টাকা হলেও জালিয়াতি ও দূর্নীতির মাধ্যমে মাত্র ১লাখ ৩হাজার টাকায় দলিল রেজিষ্ট্রি করা হয়। অফিসের কতিপয় অসাধু সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে ঘুষের বিনিময়ে দলিল করে যাচ্ছে। এদিকে রিপন মিয়া দলিলটি বাতিলের দাবিতে ছাতক সাব-রেজিষ্ট্রার ও নামজারি বাতিলের জন্যে এসিল্যান্ড বরাবরে একটি লিখিত আবেদন করেছেন। এব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্যে তিনি প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কাণা করেন।