সংবাদ শিরোনাম

নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বরযাত্রীবাহী বাস ধানক্ষেতে, আহত ১৫রংপুরে ধর্ষণ মামলায় এএসআইসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিটসিরাজগঞ্জে পুত্রবধু ধর্ষণের অভিযোগে শ্বশুর গ্রেফতারওবায়দুল কাদের সাহেব আমি রাজাকারের সন্তান নই: কাদের মির্জাসিলেটে সাংবাদিকতায় সফল নারী সুবর্ণা হামিদহিলিতে ৩ ভুয়া চিকিৎসকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের কারাদন্ডমিনুসহ বিএনপির চার নেতার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলার আবেদনআত্মহত্যার ২ মাস পর ছড়ানো হলো স্কুলছাত্রীর আপত্তিকর ভিডিও, অভিযুক্ত পলাতকচট্টগ্রাম কারাগার থেকে পালানো আসামি রুবেল নরসিংদীতে গ্রেপ্তারবাস থেকে নারীকে ছুড়ে ফেলা সেই চালক-হেলপার গ্রেফতার

  • আজ ২৪শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

গাইবান্ধায় ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে শিক্ষক গ্রেফতার

১১:০৩ পূর্বাহ্ন | সোমবার, ডিসেম্বর ৪, ২০১৭ দেশের খবর, রংপুর

মোঃ ফরহাদ আকন্দ, গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে সাজ্জাদুল করীম টিপু নামে এক শিক্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রবিবার (৩ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলা শহর এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার সাজ্জাদুল করীম টিপু গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার চন্ডিপুর এটিএম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের আইটি শিক্ষক।

ছাত্রীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত ফেব্রুয়ারি মাসের মাঝামাঝি সময়ে সাজ্জাদুল করীম টিপু ওই ছাত্রীকে সাজেশন দেওয়ার কথা বলে ছুটির পর বিদ্যালয়ে থাকতে বলে। পরে তাকে বিদ্যালয়ের একটি কক্ষে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে এবং ভিডিও ধারণ করে। পরে ধর্ষণের ভিডিও ফাঁস করার ভয় দেখিয়ে তাকে আবারও ধর্ষণ করা হয়।

এ বিষয়ে গত ২৯ নভেম্বর ছাত্রীর বাবা প্রধান শিক্ষকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন। কিন্তু অভিযোগ করে কোনও প্রতিকার মেলেনি বলে জানায় ছাত্রীর পরিবার। বরং অভিযোগ দেওয়ার পর অভিযুক্ত শিক্ষক ও তার লোকজন বিভিন্নভাবে হুমকি দিতে থাকে। পরে বাধ্য হয়ে স্কুল থেকে ছাড়পত্র নিয়ে এলাকা ছেড়ে সুন্দরগঞ্জে এক আত্মীয়র বাসায় আশ্রয় নেই ওই ছাত্রী।

বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক জানান, লিখিত অভিযোগের পর গতকাল শনিবার সকালে উভয় পক্ষকে নিয়ে আলোচনার জন্য বিদ্যালয়ে বসার দিন ঠিক করা হয়। ওই দিন মেয়ে পক্ষ, অভিভাবক ও স্থানীয় লোকজন উপস্থিত হলেও অভিযুক্ত শিক্ষক উপস্থিত না হওয়ায় আলোচনা করা সম্ভব হয়নি। পরে বিক্ষুব্ধ অভিভাবকরা বিচার দাবিতে তাৎক্ষণিক স্কুলে তালা ঝুলিয়ে দেয়।

সুন্দরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এসএম গোলাম কিবরিয়া জানান, খবর পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলে গিয়ে পরীক্ষার কথা বিবেচনা করে বিদ্যালয়ের তালা খুলে দেন। পরে ওই ছাত্রীর পরিবারকে তার কার্যালয়ে ডেকে আনেন এবং ছাত্রীর কাছে অভিযোগ শোনার পর পুলিশকে অভিযুক্ত শিক্ষককে আটকের নির্দেশ দিলে পুলিশ তাকে রবিবার সন্ধ্যায় আটক করে।

সুন্দরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতিয়ার রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, মেয়ের বাবা বাদী হয়ে রবিবার রাত পৌনে ৯টায় থানায় মামলা করেছেন।

সময়ের কণ্ঠস্বর/রবি