সরদহ সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ে অনিয়ম করে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি

৭:০৩ অপরাহ্ন | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ৫, ২০১৭ দেশের খবর, শিক্ষাঙ্গন

ওবায়দুল ইসলাম রবি, রাজশাহী ব্যুরো:
রাজশাহী চারঘাট উপজেলায় সরদহ সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ে অনিয়ম করে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তির অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয় প্রশাসনের সঠিক পরিচালনর অভাব।

জেলার চারঘাট, বাঘা এবং পুঠিয়া উপজেলার মধ্যে ওই বিদ্যালয়টি সু-পরিচিত এবং ভাল ফলাফলের বেশ সুনাম থাকায় তৃতীয়, ষষ্ঠ ও নবম শ্রেনীতে ভর্তির প্রতিযোগিতা ধারাবাকিতা অব্যাহত রয়েছে। তেমনি ১৯২৭ সালের প্রতিষ্ঠিত বিদ্যালয়ের ৯০ বছরের সুনাম কে ২০১৭ ইং সালের অনিয়ম তা কুলশিত করেছে। সারা দেশের ন্যায় বিভিন্ন শ্রেনীতে ভর্তি ইচ্ছুক শিক্ষার্থীরা যথাযথ পরীক্ষার মাধ্যমে ভর্তি নিয়ম থকালেও তা ভঙ্গ করে বেশ কিছু ছাত্র- ছাত্রী বিভিন্ন শ্রেনীতে ভর্তি করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ঘঠনার সত্যতায় জানাযায় বছরের শুরুতে নিয়মতান্ত্রীক ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি হলেও গত মে মাস থেকে অক্টবোর মাস পর্যন্ত অনিয়ম করে প্রায় ৩০ জন ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করেছেন ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনোয়রুল ইসলাম।

এবিষয়ে তৃতীয় শ্রেনীর ক্লাস টির্চারস চায়না বলেন, গত অক্টোবর ও নভেম্বরে তুতীয় শ্রেনীতে ১৬ জনকে ভর্তি করা হয়েছে। তবে ভর্তির প্রক্রিয়া বিষয়ে তিনি অবগত নয়, তবে প্রধান শিক্ষক ওই বিষয়ে ভাল জানেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অবসর প্রাপ্ত শিক্ষকগন বলছেন বিগত দিনের এই বিদ্যালয়ের সুনাম বর্তমান প্রধান শিক্ষক কুলসিত করছেন। একই ভাবে অভিভাগক জানান, অনেক অর্থ ব্যায় করে তাদের সন্তানদের প্রাইভেটসহ কোচিং করাচ্ছেন ওই বিদ্যালয়কে কেন্দ্র করে। কিন্ত অর্থের বিনিময়ে অনিয়ম করে এবছরের বিভিন্ন সময়ে ওই বিদ্যালয়ে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করা হয়েছে।

অপরদিকে সুবিধা প্রাপ্ত অভিভাবক জুতা ব্যবসাযী মিলন বলেন, তার মেয়ের নাম ওয়েটিং লিষ্টে ছিল, বিধায় ওই বিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ হয়েছে। এখানে কোন ধরনের অর্থের আদান প্রদান হয়নি। তবে স্থানীয়দের অভিযোগ বছরের মাঝে এবং শেষে ভর্তি হওযার কোন নিয়মে আছে তাদের বোধগম্য নয়। এছাড়া সকল অভিভাবকের ইচ্ছা তাদেও সন্তানদের ভাল একটি বিদ্যালয়ে পড়ালেখা করানোর। কিন্ত বর্তমান প্রধান শিক্ষককের অনিয়মের মাত্রা চরম সীমায়।

প্রসঙ্গত, ভর্তি কমিটির সভপতি ইউএনও আশরাফুল ইসলাম, সদস্য থানা স্বাস্থ্য পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ হাবিবুর রহমান, এবং সদস্য উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষ অফিসার জয়নাল আবেদিন জানান, বর্তমান প্রধান শিক্ষক কখন কিভাবে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করেছে সে বিষয়ে তারা অবগত নয়। তবে প্রধান শিক্ষক ওই বিষয়ে ভাল জানেন।