ফরিদপুরে মাদ্রাসা ছাত্রী গণধর্ষণ মামলার ৪ দিনেও আটক হয়নি আসামী!

৭:১৪ অপরাহ্ন | শনিবার, জুলাই ২১, ২০১৮ ঢাকা, দেশের খবর

হারুন-অর-রশীদ, ফরিদপুর প্রতিনিধি- ফরিদপুরের চরভদ্রাসনে ১১ বছরের এক মাদ্রাসা ছাত্রীকেকে গণধর্ষণের মামলার ৪ দিন পেরিয়ে গেলেও এখনও কোন আসামীকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।

জানা যায়, গত রবিবার (১৫জুলাই) দিবাগত রাতে উপজেলা সদর ইউনিয়নের বাদুল্যা মাতুব্বরডাঙ্গী গ্রামের ১১ বছরের এক মাদ্রাসা ছাত্রী বসতবাড়ির পাশ্ববর্তী একটি দোকানে লবন আনতে গেলে স্থানীয় চার লম্পট দ্বারা গণধর্ষণের শিকার হোন। এঘটনায় চরভদ্রাসন থানায় গত (১৭ জুলাই) রাতে ওই মাদ্রাসা ছাত্রীর পিতা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ৪জন আসামীকে অভিযুক্ত করে চরভদ্রাসন থানায় একটি মামলাটি দায়ের করেন।

এদিকে, ওই মাদ্রাসা ছাত্রী গণধর্ষণের মামলার প্রায় ৪দিন অতিবাহিত হতে থাকলেও এখনও কোন আসামীকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।

অভিযুক্ত আসামীরা হলেন- উপজেলা সদর ইউনিয়নের ও খালাশী ডাঙ্গী গ্রামের ১। মন্টু খালাসীর ছেলে চঞ্চল খালাসী (২৪), ২। অভি খালাসীর ছেলে সঞ্জয় খালাসী (২০), ৩। জদু মোল্যার ছেলে পান্নু মোল্যা (৪০) ও ৪। দিরাজ উদ্দিনের ছেলে কুদ্দুস (৪০)।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ঘটনার দিন সন্ধ্যার দিকে ওই মাদ্রাসা ছাত্রীকে তার বসতবাড়ির উত্তর দিকে অবস্থিত ফজল মোল্যার দোকানে লবন কিনতে গেলে এসময় অভিযুক্ত ৪নং আসামী কুদ্দুস মেয়েটিকে ডাকিয়া কৌসলে দোকানের পিছনে নিয়ে যায়। এসময় ৩নং আসামী পান্নু মোল্যা তার সাথে থাকা গামছা দিয়ে মেয়েটির মুখ বেঁধে গোপালপুর ঘাট সংলগ্ন উত্তর পূর্ব দিকের ধনিচা ক্ষেতে নিয়ে যায়।

সেখানে ১নং আসামীসহ একে একে সকল আসামীগন উক্ত ছাত্রীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করতে থাকে। এসময় কিশোরীর আতœচিৎকারে স্থানীয় কিছু লোকজন টর্চলাইট নিয়ে ছুটে আসলে আসামীরা পালিয়ে যান। পরে স্থানীয়রা কিশোরীকে ঘটনাস্থল থেকে দ্রুত উদ্ধার করে প্রথমে তাকে বাড়িতে প্রাথমিক চিকিৎসা দেন। এবং পরবর্তিতে কিশোরীর শারীরিক অবস্থার আরো অবনতি ঘটলে পরদিন সকালে তাকে আরো উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

শনিবার দুপুরে মুঠোফোনে ঐ কিশোরীর পিতার কাছে উক্ত মামলার কোন আসামীদের আটক করা হয়েছি কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার জানামতে এখনও কোন আসামী আটক হয়নি। তাছাড়া, এবিষয়ে থানা পুলিশও আমাকে কিছু জানায় নি, আমিও তাদের সাথে এবিষয়ে কোন যোগাযোগ করেনি।

একই দিন এ ঘটনায় কোন আসামী গ্রেফতার হয়েছে কিনা জানতে চাইলে চরভদ্রাসন থানার (ভারপ্রাপ্ত) কর্মকর্তা রাম প্রসাদ ভক্ত বলেন, এখনও কোন আসামীকে গ্রেফতার করা যায়নি। তবে আমরা এ ঘটনায় জড়িত আসামীদেরকে আটকের জন্য আমাদের সর্বাত্মক চেষ্টা ও অভিযান অব্যাহত আছে বলে তিনি জানান।