প্রেম করে দ্বিতীয় বিয়ে: কারাগারে কৃষি কর্মকর্তা, অবশেষে বরখাস্ত

১০:৪৯ পূর্বাহ্ন | মঙ্গলবার, জুলাই ২৪, ২০১৮ দেশের খবর, রাজশাহী

এম নজরুল ইসলাম, বগুড়া করেসপন্ডেন্ট: গ্রামের প্রবাদ আছে, ‘পিড়িতের পেত্নী ভালো’। কিন্তু যদি ফন্দি হয় উল্টো, তাহলে পরিনতিও করবে জব্দ। প্রেমের ফাঁদে ফেলে দ্বিতীয় বিয়ের পর যৌতুক দাবি করে ফেঁসে গেলেন শাহিনুর রহমান নামের এক কৃষি কর্মকর্তা। দ্বিতীয় স্ত্রীর দায়েরকৃত মামলায় তিনি রয়েছেন কারাগারে। অবশেষে চাকরি থেকে করা হয়েছে বরখাস্ত।

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় দ্বিতীয় স্ত্রীর মামলায় উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা শাহিনুর রহমানকে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৪ জুলাই) সময়ের কন্ঠস্বরকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ জাহাঙ্গীর আলম।

মামলা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার রামনগর গ্রামের সাইফুল ইসলামের ছেলে শাহিনুর রহমান ধুনট উপজেলা উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা পদে চাকরি করেন। তিনি উপজেলার নিমগাছি ইউনিয়ন ব্লকের দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৭ সালের ২১ জানুয়ারি শাহিনুর রহমান প্রেমের ফাঁদে একই এলাকার ঈশ্বরঘাট গ্রামের আজাহার আলীর মেয়ে লিফটি খাতুনকে দ্বিতীয় বিয়ে করেন।

বিয়ের পর দ্বিতীয় স্ত্রীর কাছে ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন শাহিনুর। কিন্তু শাহিনুরের দাবিকৃত টাকা না দেয়ায় ১৩ জুন স্ত্রীকে মারধর করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেন। স্বামীর নির্যাতন সইতে না পেরে লিফটি খাতুন বাবার বাড়িতে আশ্রয় নেন। গত ২৬ জুন লিফটি খাতুন বাদী হয়ে শাহিনুর রহমানের বিরুদ্ধে বগুড়া আদালতে একটি মামলা করেন।

ওই মামলায় ১৭ জুলাই বগুড়া আদালতে জামিনের আবেদন করেন শাহিনুর। কিন্তু জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন বিচারক। বর্তমানে শাহিনুর রহমান বগুড়া জেলা কারাগারে রয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে ধুনট উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, সরকারি বিধি অনুযায়ী ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার আদেশে সোমবার সকালে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা শাহিনুর রহমানকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।