হাত-পা বাঁধা অবস্থায় স্কুলছাত্রী উদ্ধার:বিষয়টি রহস্যজনক

৭:২৯ অপরাহ্ন | মঙ্গলবার, জুলাই ২৪, ২০১৮ অপরাধ, শিক্ষাঙ্গন

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক: পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ায় স্কুলের টয়লেট থেকে হাত-মুখ বাঁধা অবস্থায় এক ছাত্রীকে উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে ভান্ডারিয়া থানা বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এই ঘটনা ঘটে। উদ্ধারের পর তাকে ভান্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

ওই ছাত্রী সকালে বিদ্যালয়ের এক শিক্ষকের বাসায় প্রাইভেট শেষে সোয়া নয়টার দিকে বিদ্যালয়ে উপস্থিত হয়। এ সময় বিদ্যালয়ে ৮ম শ্রেণির কোচিং ক্লাস চলছিল। মেয়েটি শ্রেণিকক্ষে বই রেখে টয়লেটে যায়।

পরে সাড়ে নয়টার দিকে স্কুলের অন্য শিক্ষার্থীরা টয়লেট দীর্ঘক্ষণ বন্ধ দেখে বিষয়টি সহকারী প্রধান শিক্ষককে জানায়। এ সময় শিক্ষকরা টয়লেটের দরজা খুলে তাকে হাত-পা-মুখ বাঁধা অবস্থায় দেখতে পান। পরে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

কে বা কারা মেয়েটির মুখ-হাত-পা বেঁধে স্কুলের বাথরুমে আটকে রেখেছিল তাৎক্ষণিক তা জানতে পারেনি পুলিশ। তবে পুলিশ মেয়েটিকে জিজ্ঞাসাবাদ ও তদন্ত শুরু করেছে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মজিবর রহমান বলেন, বিষয়টি রহস্যজনক। মেয়েটি অসুস্থ থাকায় এখনও রহস্য উদঘাটন করা যায়নি।

এ বিষয়ে ভান্ডারিয়া থানার ওসি মো. শাহাবুদ্দীন বলেন, আমরা বিষয়টি উদঘাটনে তদন্ত চালাচ্ছি। মেয়েটি স্কুলে নির্যাতনের শিকার কিনা তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটি সভাপতি মো. লিয়াকত হোসেন তালুকদার জানান, এ ঘটনায় বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নূরুন্নাহার বেগমকে প্রধান করে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি করেছে।