মারধরের শিকার সেই মুসলিম যুবককে নিয়ে তসলিমার স্ট্যাটাস


আন্তর্জাতিক ডেস্ক- ভারতের উত্তর প্রদেশের গাজিয়াবাদে এক হিন্দু নারীকে বিয়ে করতে চাওয়ায় এক মুসলিম যুবককে পিটিয়েছে একদল দুর্বৃত্ত। গতকাল (সোমবার) আদালতে বিয়ে রেজিস্ট্রি করতে গেলে তার উপর হামলা চালায় একদল কট্টরপন্থি হিন্দু।

ওই ঘটনা ঘিরে সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন লজ্জার লেখিকা তসলিমা নাসরিন। তিনি দাবি করেছেন, যে হিন্দু এবং মুসলিম ধর্মের মানুষের মধ্যে অধিকাংশই দরিদ্র শ্রেণির এবং মধ্যবিত্ত শ্রেণির।

ভিন্ন ধর্মের বিয়ে অনেক পরিবার মেনেও নিয়ে থাকেন। যদিও সেই ক্ষেত্রেও অভাব থাকে স্বাভাবিকত্বের। বিষয়টাকে সমস্যা হিসেবে না মনে করলেও বিশেষ কৃতিত্বের কাজ বলে দাবি করেন। আর পাঁচটা বিয়ের মতোই স্বাভাবিক বলে যেন ভাবাই যায় না।

কেন এমন হয়? ধর্মের বাইরে গিয়ে কেন সাধারণ মানুষ হিসেবে নিজেদের ভাবা যায় না? এসব প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন বাংলাদেশের নির্বাসিত লেখিক তসলিমা নাসরিন।

তিনি বলেন, খ্রিস্টানদের সঙ্গে ইহুদিদের বিয়ে হচ্ছে। খ্রিস্টান ধর্মের উপজাতিদের মধ্যেও বিয়ে হচ্ছে। নাস্তিকরাও ধার্মিক লোকজনকে বিয়ে করছে। কোথাও কোনও সমস্যা হচ্ছে না। শুধু হিন্দু-মুসলিম বিয়ে নিয়ে সৃষ্টি হচ্ছে প্রতিকূলতার। দারিদ্র্যতায় যার প্রধান কারণ বলে দাবি করেছেন তসলিমা।

◷ ৫:৫৭ অপরাহ্ন ৷ বুধবার, জুলাই ২৫, ২০১৮ আন্তর্জাতিক