ত্রিশালে মুক্তিযোদ্ধা মতিন মাস্টার হত্যার প্রতিবাদে এলাকাবাসীর বিক্ষোভ মিছিল

❏ মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ৪, ২০১৮ দেশের খবর, ময়মনসিংহ

আব্দুল মান্নান পল্টন, ময়মনসিংহ ব্যুরো: ময়মনসিংহের ত্রিশালে মুক্তিযোদ্ধা ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি আব্দুল মতিন মাস্টার (৬৫) হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে ও খুনিদের বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল, মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে এলাকাবাসী।

আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের সাইন বোর্ড নামক স্থানে বিক্ষোভ মিছিল, মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন – ত্রিশালের সাবেক এম.পি রুহুল আমিন মাদনী, সাবেক এম.পি আব্দুল মতিন সরকার, জেলা মুক্তযোদ্ধা কমান্ডের ডেপুটি কমান্ডের কামাল পাশা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক আঃ হামিদ, আবুল কালাম, উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আশরাফুল ইসলাম মন্ডল, উপজেলা পরিষদের সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদা খানম রুমা, জেলা মুক্তিযোদ্ধা পুর্নবাসন সংস্থার সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম মন্ডল, মঠবাড়ী ইউপি পরিষদের চেয়ারম্যান আঃ কুদ্দুস মন্ডল, আমিরাবাড়ী ইউপি পরিষদের চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান ভুট্রো, উপজেলা আওয়ামী যুব লীগের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম সরকার জুয়েল, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হাসান মাহমুদ, নিহতের বড়ভাই আব্দুর রাজ্জাক, ছেলে মাহমুদুল হাসান মামুন প্রমুখ।

এ ঘটনায় এ পর্যন্ত ত্রিশালের নারায়ণপুরের আবু বকর ছিদ্দিকের ছেলে মোফাজ্জল হোসেন রুবেল (৩০), চাঁন মিয়ার ছেলে সেলিম ডাকাত (৪০), ইমান আলীর ছেলে ইদ্রিস আলী (৪০), তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে সোহাগ মিয়া (২৬) ও খাঘাটি গ্রামের দুলাল মিয়া (৪৫)সহ গ্রেফতার হয়েছে ৫ জন। তাদের দেওয়া তথ্যমতে বৃহস্পতিবার (৩০ আগস্ট) রাতে সেলিম ডাকাতের বাড়ি থেকে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত চাইনিজ কুড়ালসহ একটি দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা স্বীকারউক্তিমুলক জবানবন্দি দিয়েছে তারা পাঁচজনসহ মোট সাতজন এ হত্যাকান্ডে অংশ নিয়েছিল।

উল্লেখ্য, গত ৩ জুলাই বাড়ির পাশে নিজ ফিসারির ভেতর খুন হন মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মতিন মাস্টার। ত্রিশাল থানা পুলিশ ওই দিন সকালে খাঘাটি গ্রামের বাড়ির পাশের পুকুর থেকে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মতিন মাস্টারের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করে। পরে পরিবারের পক্ষে তার ছেলে মাহমুদুল হাসান মামুন বাদী হয়ে অজ্ঞাতদের আসামি করে ত্রিশাল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।