নবীগঞ্জে চিকিৎসকের প্রতারণার প্রতিবাদ করায় নিরাপত্তাহীনতায় শিশুটির পরিবার

❏ মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৮ দেশের খবর, সিলেট

মতিউর রহমান মুন্না, নবীগঞ্জ প্রতিনিধি : নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি বাজারে অবস্থিত অরবিট প্রাইভেট হসপিটালের এক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে প্রতারণার বিষয়ে প্রতিবাদ করায় চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন বলে অভিযোগ করেছে শিশুটির পরিবার। অপর দিকে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে একটি কূচক্রি মহল মরিয়া হয়ে উঠেছে। তাদের অনৈতিক প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় হুমকি ধামকি দেওয়া হয়েছে বলেও জানান শিশু ইসমত নাহার জিবার মা শিরিনা আক্তার।

চিকিৎসক খায়রুল বাশার কৃর্তক সুস্থ্য শিশুকে অসুস্থ্য বানিয়ে উন্নত চিকিৎসার নামের আরেক প্রাইভেট হসপিটালের চিকিৎসের কাছে পাঠানোর নামে প্রতারণার খবর বিভিন্ন মিডিয়ায় ফলাও করে প্রচারিত হলে হবিগঞ্জের সিভিল সার্জন ডাঃ সুচিন্ত চৌধুরী ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করার জন্য নবীগঞ্জ উপজেলা পঃ পঃ কর্মকর্তাকে নির্দেশ প্রদান করেন। এরই প্রেক্ষিতে নবীগঞ্জ উপজেলা পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ গোলাম মোস্তফা গতকাল নবীগঞ্জ হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডাঃ আব্দুস সামাদকে প্রধান করে ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিঠি গঠন করেন। কমিটির অপর সদস্যরা হলেন, আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ ইফতেখার আলম চৌধুরী ও মেডিকেল অফিসার ডাঃ জান্নাত আরা চৌধুরী। ওই কমিটিকে ৭ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

শিশু জিবার মা শিরিনা আক্তার অরবিট হসপিটালের চিকিৎসক খায়রুল বাশারের প্রতারণার বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ তদন্ত কমিটি গঠন করায় তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, আমি চাই সুষ্ট তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের শাস্তি দেয়া হোক যাতে ভবিষ্যতে আর কোন শিশু এরকম প্রতারণার শিকার না হয়। তিনি আরো জানান, এ ঘটনার পর থেকে তিনি চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভোগছেন। তাকে প্রতিনিয়ত বিষয়টি মীমাংসা করার জন্য চাপ দিয়ে যাচ্ছে একটি কুচক্রি মহল।

এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সর স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা বলেন, জেলা সিভিল সার্জনের নির্দেশে ডাঃ সামাদকে সভাপতি করে ৩ সদস্য বিশিষ্ট কমিঠি করে দিয়েছি এবং আগামী ৭ কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নির্দেশ দিয়েছি।

তদন্ত কমিটির প্রধান ডাঃ আব্দুস সামাদ বলেন, আউশকান্দি অরবিট হসপিটালের চিকিৎসক ডাঃ খায়রুল বাশারের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগে আমাদের স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা আমাকে প্রধান ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন। প্রাথমিকভাবে তদন্ত শুরু করেছি। সরেজমিনে গিয়ে আরো তদন্ত করে সময় মতো প্রতিদেন দাখিল করবো। তদন্ত সম্পন্নের আগে কাউকে দোষী বলা যাবে না। তবে তদন্তে দোষী প্রমাণিত হলে অবশ্যই তাকে শাস্তি পেতে হবে।

নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি সিনিয়র সাংবাদিক আনোয়ার হোসেন মিঠু বলেন, অরবিট হসপিটালের চিকিৎসকের প্রতারণার বিষয়টি নবীগঞ্জের বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের মধ্যে প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। ইতিপূর্বেও নবীগঞ্জের স্বাস্থ্য বিভাগের অনেক ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠিত হলেও পরবির্ততে সংশ্লিষ্টদের সঠিক বিচার না হওয়ায় অসাধু চিকিৎসকরা নানা অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছেন। তিনি আশা করেন এই ঘটনায় সঠিক তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের শাস্তি নিশ্চিত করা হবে।