• আজ ৪ঠা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

নীলফামারীতে থানের বালু এনে সিমেন্টের পাটাতন তৈরী: সেটি ফেরত পেতে মা কালীর উড়ো চিঠি!

৪:৫০ অপরাহ্ন | মঙ্গলবার, নভেম্বর ৬, ২০১৮ রংপুর

সময়ের কণ্ঠস্বর, নীলফামারী :: নীলফামারীর ডোমারে বালু ও সিমেন্টের তৈরী পাটাতন পেতে মা কালী উড়ো চিঠি পাঠিয়েছে। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে, মঙ্গলবার (৬ নভেম্বর) ভোরে ডোমার উপজেলার বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের নয়ানী বাকডোকরা সাধুপাড়া গ্রামে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, ওই গ্রামের মৃত হরসুন্দর রায়ের ছেলে শরৎ চন্দ্র শুকারু চলতি মৌসুমে ধান মাড়াই করার জন্য গত ২ নভেম্বর বাড়ীর পার্শবর্তী শশ্মান সংলগ্ন এলাকা থেকে বালু এনে সিমেন্ট মিশিয়ে একটি পাটাতন তৈরী করে। পাটাতন তৈরীর পর থেকে প্রতিদিন সন্ধায় তার বাড়ীতে আকাশ থেকে ইটের টুকরা, নারিকেলের ছোবরা, ছেড়া সেন্ডেল, বোতল, কাঠের টুকরার ঢিল পড়তে শুরু করে।

সর্বশেষ ৫ নভেম্বর রাতে ঢিলের পাশাপাশি আঞ্চলিক ভাষায় লেখা দুটি উড়ো চিঠি এসে পড়ে। সেখানে লেখা রয়েছে ‘আমি বলছিলাম পিড়াখানা নিগে দিতে, কেনে দেও নাই। তাড়াতাড়ি লিগে দিতে।নেতেন আরো অত্যাচার করবো। আমি থানে যাছিনা। আমি মহা কালীমা।’

ঢিলের কারন আগে জানতে না পারলেও চিরকুট পাওয়ার পর তারা জানতে পারে পাটাতনটি পেতেই মা কালী এমন অত্যাচার শুরু করেছেন! পরে তৈরীকৃত পাটাতনটি যেখান থেকে বালু নিয়ে আসে সেখানেই রেখে আসেন। এর পর থেকেই নাকি ঢিল পড়া বন্ধ হয়ে যায় বলে দাবী তাদের।

এ ঘটনা দেখতে শুকারুর বাড়ীতে শত শত লোকজন ভিড় জমায়। ঘটনাটিকে কালী পুজার অলৌকিক ঘটনা বললেও অনেকে এ ঘটনাকে নিছক মশকরা মনে করছেন। এ ঘটনায় ওই এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

এ ব্যাপারে বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য জয়ন্ত কুমার সিংহ জানান, এটি কুসংস্কার। পাশাপাশি বিষয়টি এলাকার কিছু লোকের শয়তানীমূলক কর্মকান্ড হতে পারে।