অনলাইনে পাওয়া যাচ্ছে নকল জিনিস, বলছে সমীক্ষা

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক :: বর্তমানে ইন্টারনেটের যুগে আমরা অন্যান্য জিনিসের মতো বড্ড ভরসা করছি অনলাইনে জিনিস কেনার, এখন আর দোকানে গিয়ে নয় বরং বাড়িতে মোবাইলে ক্লিক করে জিনিস বাড়িতে পেয়ে যাচ্ছি।

কিন্তু এই অনলাইনে জিনিস কিনেই আমরা ঠকছি বেশি, তবুও পিছু ছাড়ছি না অনলাইনের, গ্রাহকের অসচেতনতার সেই পণ্যই আসল বলে চালাচ্ছে অনলাইন বিক্রেতারা।

নকল পণ্য বিক্রিতে SnapDeal-কে সব থেকে কুখ্যাত বলে চিহ্নিত করেছেন গ্রাহকরাই। সারাক্ষণ স্ন্যাপডিল, ফ্লিপকার্ট, অ্যামাজন-এর মতো সাইটে ঘোরাফেরা চলছে!

কিন্তু জানেন কী, ই-কমার্স সাইটগুলিতে যে জিনিস বিক্রি হয় তার মধ্যে ২০ শতাংশ জিনিসই নকল! এমনটাই দাবি, ‘লোকাল সার্কেল’ নামে একটি সংস্থার।

সংস্থাটি বলছে, তাদের সমীক্ষায় ৩০ হাজার ক্রেতাকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল- তাঁরা আমাজন, ফ্লিপকার্টের মতো ই-কমার্স সংস্থার থেকে গত ছয় মাসে কোনও ভুয়া দ্রব্য পেয়েছেন কি না? তাঁদের উত্তর থেকেই সংস্থা এই উপসংহারে পৌঁছেছে!

ওই সমীক্ষার দাবি ৩৭ শতাংশের অভিযোগ, স্ন্যাপডিলের থেকেই তাঁরা বেশি জালি জিনিস পেয়েছেন। ২২ শতাংশ ফ্লিপকার্ট, ২১ শতাংশ পেটিএম মল ও ২০ শতাংশ বলেছেন অ্যামাজন থেকে তাঁরা নকল জিনিস পেয়েছেন।

এ ব্যাপারে যদিও সমস্ত সংস্থার তরফে মোটামুটি একই রকম বিবৃতি জারি করা হয়েছে। জানানো হয়েছে, নকল জিনিস রুখতে তারা খুবই কঠোর। বাংলাদেশে অনলাইন কেনাকাটায় দ্রব্যের অবস্থা কি তা নিয়ে এখনও কোন সংস্থা বা প্রতিষ্ঠান কোন সমীক্ষা চালায়নি।