৩ টি হুইল চেয়ার চেয়ে ৩ মায়ের আকুতি!


❏ বুধবার, নভেম্বর ১৪, ২০১৮ দেশের খবর

ফয়সাল শামীম, ষ্টাফ রিপোর্টার:: বাবারে কেউ যদি ১ টা হুইল চেয়ার দিয়া মোক সাহায্য করিল হয় মুই সারাজীবন তার জন্য দোয়া করনু হয়।

নিজের প্রতিবন্ধী মেয়ে ইতির জন্য একটি হুইল চেয়ার চেয়ে এমনটাই আকুতি ইতির মা নুননাহারের! নিজাম,সুবাশ ও ইতি ৩ টি অভাবের সংসারে প্রতিবন্ধী হয়ে জন্মেছে তারা! যেখানে তাদের সংসারে ২ বেলা ২ মুঠো ডাল ভাত যোগাড় করাই চরম কষ্টের সেখানে এই প্রতিবন্ধী বাচ্চাদের কারনে চরম কষ্টে আছেন তাদের মায়েরা।

বাচ্চারা যেন জীবিকার তাদিগে তাদের মায়ের বাইরে যাওয়ার প্রধান বাঁধা!।

এদেরকে ফেলে এদের মা বাইরে কাজে যাবেই বা কিভাবে? সারাদিন তারা নানাভাবে বিরক্ত করে থাকে তাদের মাকে। এর ফলে কোনদিন হয়তো খেয়ে ঘুমাতে যায় সবাই, আবার কোনদিন না খেয়েই রাত কাটে তাদের। নিজাম,সুবাশ ও ইতি সকলের বাড়ী কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার জোকমারী/নুনখাওয়া গ্রামে। নিজাম,সুবাশ ও ইতির বাবা দিনমজুরের কাজ করে।

নিজাম,সুবাশ ও ইতির মা লিলিমা, কাচুয়ানি ও নুননাহার এ প্রতিবেদককে বলেন ’কেউ যদি আমার ছওয়াটাক একটা হুইল করি চেয়ার দেইল হয় তাহলে ছওয়া গুলের অনেক কষ্ট দুর হইল হয়। সাথে সাথে আমরাও ওমাক চেয়ারত নিয়ে ভালভাবে কাজ করবের পাইলং হয়। আমারও কষ্ট কমিল হয়।

৩ টি প্রতিবন্ধী বাচ্চার কষ্ট লাঘবে ৩ টি হুইল চেয়ার নিয়ে এগিয়ে আসবেন দেশ বিদেশের হৃদয়বান দানবীর মানুষেরা এমনটাই আশা ৩ জন প্রতিবন্ধীর মায়ের।

প্রতিবেদকের বক্তব্য: সীমান্ত ঘেষা কুড়িগ্রাম সারা দেশের মধ্যে সবচেয়ে দারিদ্রপীড়িত এলাকা। সেই এলাকার জোকমারী ও নুনখাওয়া গ্রামের ৩ অভাগা শিশু নিজাম,সুবাশ ও ইতি। গ্রামের মুরুব্বীরা মনে করেন তাদের জন্য যদি ৩ টি হুইল চেয়ারের ব্যাবস্থা করা যেত তবে এই পরিবারের বিশেষ করে এদের মায়ের কষ্টটা অনেকাংশেই কমতো। তাই আমরা উদ্দ্যোগ নিয়েছি মসজিদের একাউন্টে এদের জন্য সাহায্য নিয়ে মসজিদের মুরুব্বিদের মাধ্যমে এদের জন্য ৩ টি হুইল চেয়ারের ব্যাবস্থা করে দেব। তাই সমাজের হৃদয়বান ও বৃত্তবানদের ৩ টি হুইল চেয়ার দানে এগিয়ে আসার জন্য বিনীত অনুরোধ করছি।

আরও তথ্যের জন্য অথবা বাচ্চাদের সাথে ভিডিও কলে কথা বলতে আমাদের ষ্টাফ রিপোর্টার প্রভাষক ফয়সাল শামীম- ০১৭১৩২০০০৯১ (ইমো, হোয়াআটর্সএপ,ভাইবার চালু আছে)