নীলফামারীতে ১৯ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল!

৮:৩৪ অপরাহ্ন | রবিবার, ডিসেম্বর ২, ২০১৮ রংপুর

সময়ের কণ্ঠস্বর, নীলফামারী :: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নীলফামারী জেলার চারটি সংসদীয় আসনে দাখিলকৃত ৪৫ জন প্রার্থীর মনোনয়ন যাচাই-বাচাই শেষে ১৯ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।

রবিবার (২ ডিসেম্বর) দুপুরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে প্রার্থীদের জমাকৃত মনোনয়নপত্রে তথ্যগত অসঙ্গতি ও নানাবিধ ত্রুটি থাকায় এই ১৯ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেন রির্টানিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক নাজিয়া শিরিন।

এক নজরে দেখে নিন আসনভিত্তিক কাদের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে-

নীলফামারী-১ (ডোমার-ডিমলা) আসনে ১৪জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। এদের মধ্যে ৪ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। বাতিলপ্রাপ্তরা হলেন, আমিনুল হোসেন সরকার (আওয়ামী লীগ স্বতন্ত্র), আব্দুর সাত্তার (বিএনপি), এ আহমেদ বাকের বিল্লাহ মুন (বিএনপি বিদ্রোহী) ও শাহ মখদুম আজম মাশরাফী (স্বতন্ত্র)।

নীলফামারী-২ (সদর) আসনে ৭জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এদের মধ্যে ১জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। বাতিলপ্রাপ্ত প্রার্থী হলেন, এজানুর রহমান (স্বতন্ত্র)।

নীলফামারী-৩ (জলঢাকা) আসনে ১১ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এদের মধ্যে ছয় জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। বাতিলপ্রাপ্ত প্রার্থী হলেন, আনসার আলী মিন্টু (আওয়ামী লীগ স্বতন্ত্র), আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর (আওয়ামী লীগ স্বতন্ত্র), ফাহমিদ ফয়সাল চৌধুরী কমেট (বিএনপি), মোজাম্মেল হক (গণফ্রন্ট), ডা. বাদশা আলমগীর (জাপা স্বতন্ত্র) ও গোলাম পাশা এলিচ (জাসদ)।

নীলফামারী-৪ (সৈয়দপুর-কিশোরগঞ্জ) আসনে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন ১৩জন প্রার্থী। এদের মধ্যে ৮জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। বাতিলপ্রাপ্ত প্রার্থী হলেন, আখতার হোসেন বাদল (আওয়ামী লীগ স্বতন্ত্র), ইঞ্জিনিয়ার সেকেন্দার আলী (আওয়ামী লীগ স্বতন্ত্র), আমেনা কোহিনুর (আওয়ামী লীগ স্বতন্ত্র), আমিনুল ইসলাম সরকার (আওয়ামী লীগ স্বতন্ত্র), সৈয়দপুর পৌরসভার মেয়র আমজাদ হোসেন সরকার ভজে (বিএনপি), কিশোরগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান রশিদুল ইসলাম (স্বতন্ত্র), ফরহাদ হোসেন সম্রাট (স্বতন্ত্র), মিনহাজুল ইসলাম মিনহাজ (স্বতন্ত্র)।

প্রসঙ্গত, নীলফামারীর ৪টি আসনে এখন বৈধ প্রার্থীর সংখ্যা দাঁড়ালো ২৬ জনে।