বগুড়া-৩ আসনে লাঙ্গল আছে, নেই নৌকা-ধানের শীষ প্রার্থী!

❏ বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ২০, ২০১৮ রাজশাহী

এম নজরুল ইসলাম, বগুড়া করেসপন্ডেন্ট: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বগুড়া-৩ (আদমদীঘি-দুপচাঁচিয়া) আসনে ভোটের মাঠে বিএনপির প্রার্থী নেই।

এই আসনে ‘নৌকা’ প্রতীক না থাকলেও ‘লাঙ্গল’ প্রতীক নিয়ে ব্যাপক প্রচারণায় রয়েছেন আওয়ামীলীগ নেতৃত্বাধিন মহাজোট মনোনীত জাতীয় পার্টির বর্তমান সাংসদ নুরুল ইসলাম তালুকদার। বিএনপি ঘাটি হিসেবে খ্যাত বগুড়া-৩ সংসদীয় আসনে ‘ধানের শীষ’ প্রতীকের প্রার্থী শূন্য রয়েছে। ফলে শক্তিশালী প্রতিদ্বন্দ্বি না থাকায় ফাঁকা মাঠে রয়েছেন মহাজোটের প্রার্থী।

স্থানীয় ভোটাররা বলছেন, ভোটের মাঠে ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী না থাকায় ‘লাঙ্গল’ প্রতীকে বর্তমান সাংসদ নুরুল ইসলাম তালুকদার পুনরায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হতে পারেন। দেবর-ভাবি খেলা খেলতে গিয়ে এ আসনের বিএনপির প্রার্থী ছিলেন আদমদীঘি বিএনপির সভাপতি আবদুল মুহিত তালুকদার। কিন্তু উচ্চ আদালতের নির্দেশে তার নির্বাচনে অংশ গ্রহণ আটকে গেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বগুড়া-৩ আসনে বিএনপি থেকে মোট ১২ জন মনোনয়ন প্রত্যাশী দলীয় মনোনয়নের জন্য আবেদন করেছিলেন। তাদের মধ্যে একই পরিবারের তিনজন আবদুল মোমিন, তার স্ত্রী মাসুদা মোমিন ও ছোট ভাই আবদুল মুহিত তালুকদার ছিলেন। পরে এ আসনে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হয় সাবেক সাংসদ আবদুল মোমিন ওরফে খোকা তালুকদারের স্ত্রী মাসুদা মোমিনকে। পরে ৮ ডিসেম্বর রাতে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরিত দলীয় চিঠিতে প্রার্থী পরিবর্তন করে মাসুদা মোমিনের পরিবর্তে তার দেবর আদমদীঘি উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল মুহিত তালুকদারকে ধানের শীষের প্রার্থী করেন।

চেয়ারম্যান পদ থেকে সরে না যাওয়ায় মুহিত তালুকদারের মনোনয়ন বাতিল করেন বগুড়ার রিটার্নিং অফিসার জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহাম্মদ। পরে প্রার্থীতা ফিরে পেতে নির্বাচন কমিশনে আপিল করলে সেখানেও মুহিতের প্রার্থিতা বাতিল হয়। এপর হাইকোর্টে আবেদন করেন বিএনপির এই প্রার্থী। রিটের শুনানি শেষে নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত স্থগিত করেন হাইকোট। নির্বাচন কমিশন এ আদেশের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করে। আপিল বিভাগের চেম্বার আদালত হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করেন। ফলে ধানের শীষের প্রার্থী মুহিত তালুকদারের নির্বাচনে অংশ নেয়ার সুযোগ বন্ধ হয়ে যায়। বিএনপি ও জামায়াত নেতাকর্মীদের মাঝে হতাশা দেখা দিয়েছে।

অন্যদিকে, মহাজোট মনোনীত লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী জাপা নেতা বর্তমান এমপি নুরুল ইসলাম তালুকদারের সমর্থকদের মাঝে আনন্দের জোয়ার বইছে।

বগুড়া-৩ আসনে মহাজোটের প্রার্থী বর্তমান সাংসদ নুরুল ইসলাম তালুকদারের (লাঙ্গল) পাশাপাশি ভোটের মাঠে রয়েছেন বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্টের আবদুল কাদের জিলানী (টেলিভিশন), বাংলাদেশ বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির লিয়াকত আলী (কোদাল), ইসলামী আন্দোলনের শাহজাহান আলী তালুকদার (হাতপাখা), স্বতন্ত্র আফজাল হোসেন (আপেল), স্বতন্ত্র আবদুল মজিদ (ডাব) ও স্বতন্ত্র নজরুল ইসলাম (মোটর গাড়ি)।

নির্বাচনী প্রচারণার মাঝামাঝি এসে বগুড়ার দুটি আসন বিএনপির প্রার্থী শূন্য হয়ে গেল। উচ্চ আদালতের পৃথক আদেশে বগুড়া-৩ (আদমদীঘি ও দুপচাঁচিয়া) এবং বগুড়া-৭ (গাবতলী-শাজাহানপুর) আসনে ধানের শীষ প্রতীকের দুজনের প্রার্থিতা স্থগিত করা হয়। আসন দুটি দেড় যুগ ধরে বিএনপির দখলে ছিল। এবার এই দুই আসনে মহাজোটের শরিক দল জাতীয় পার্টিকে (জাপা) ছেড়ে দিয়েছে আওয়ামী লীগ। এ কারণে আসন দুটিতে নৌকার প্রার্থীও নেই। ফাঁকা মাঠে গোল দিতে যাচ্ছে জাপা।