🕓 সংবাদ শিরোনাম

খেলার আগে মাঠে ফিলিস্তিনের পতাকা ওড়ালেন কুড়িগ্রামের ক্রিকেটারেরাপাঁচ ঘণ্টা আটকে রেখে থানায় নেওয়া হলো প্রথম আলোর রোজিনা ইসলামকেকর্মস্থলে ফিরতে গাদাগাদি করে রাজধানীমুখী লাখো মানুষশেরপুরে পৃথক ঘটনায় একদিনে ৭ জনের মৃত্যুএক বিয়ে করে দ্বিতীয় বিয়ের জন্যে বড়যাত্রীসহ খুলনা গেল যুবক!আমার মৃত্যুর জন্য রনি দায়ী! চিরকুট লিখে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যাইসরাইলীয় আগ্রাসনের  বিরুদ্ধে ইসলামী বিশ্বের নিন্দার নেতৃত্বে সৌদি আরবত্রিশালে সড়ক দূর্ঘটনায় ৩ জনের মৃত্যুতে নিহতের বাড়ীতে চলছে শোকের মাতমকলাপাড়ায় এক সন্তানের জননীর মরদেহ উদ্ধারটাঙ্গাইলে কৃষক শুকুর মাহমুদ হত্যা মামলায় গ্রেফতার-১

  • আজ মঙ্গলবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৮ মে, ২০২১ ৷

গোলাম মাওলা রনি সহ ৬ জনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা!


❏ শুক্রবার, ডিসেম্বর ২১, ২০১৮ বরিশাল

জাহিদুল ইসলাম, পটুয়াখালী প্রতিনিধি:  পটুয়াখালী-৩ আসনে বিএনপি দলীয় প্রার্থী গোলাম মাওলা রনিসহ ছয় জনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। ফোনালাপের মাধ্যমে নেতা-কর্মীদের থানা ঘেরাও করতে উদ্বুদ্ধ করন, ডিজিটাল বিন্যাসের মাধ্যমে জন সাধারনের মাঝে ভীতি সৃস্টি, প্রদানমন্ত্রীর ছবি ও নৌকা প্রতীকের বিকৃত ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়ে পরিবেশ বিনস্ট করার অভিযোগে বৃহস্পতিবার রাতে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে।

আওয়ামীলীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির যুগ্ন আহবায়ক ও গলাচিপা মহিলা কলেজের সহযোগী অধ্যাপক মেহেদি মাসুদ বাদী হয়ে গলাচিপায় থানায় এ মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ১৪/১৮। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন- ২০১৮’র ২৫ এর ১ (ক),৩১ (১), ৩৫ দারায় মামমলাটি রজু করে গলাচিপা থানা। মামলায় প্রধান আসামী গোলাম মাওলা রনি, তার ভাই সরোয়ার, শ্যালক মকবুল এবং বিএনপি নেতা শাহজাহান খান, ছেলে শিপলু খান ও শাহ আলম শানুকেআসামী করা হয়েছে। মামলার সাথে সময় টেলিভিশন ও ৭১ টিভির প্রচারিত
সংবাদ সম্বলিত কপি সংযুক্ত করা হয়েছে।

এ বিষয়ে মুঠো ফোনে জানতে চাইলে বিএনপি প্রার্থী গোলাম মাওলা রনি জানান, মামলাটি মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। মহামান্য হাইকোর্টের নির্দেশনা আছে যে, ক্ষতিগ্রস্থরা ছাড়া একই ঘটনায় অন্য কোন পক্ষ মামলা করতে পারবেন না। এখানে আমার স্ত্রীসহ পরিবারের লোকজন ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। যে ঘটনায় আমার স্ত্রীর অভিযোগ থানা পুলিশ গ্রহন না করে আইন লংঘন করেছে। উল্টো আমাদের বিরুদ্ধে একটি সাজানো মামলা দায়ের
করা হয়েছে। তবে মামলার খবর আমার জানা নেই।

গলাচিপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আখতার মোর্শেদ মামলার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, মামলাটি গ্রহন করা হয়েছে। আসামীদেরকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।বাদীর অভিযোগের বরাত দিয়ে ওসি আরো জানান, ১৫ ডিসেম্বর দুপুরে গোলাম মাওলা রনির স্ত্রী কামরুন নাহার রুনু সহ বিএনপি নেতারা গলাচিপায় পৌছানোর পর তাদের উপর হামলা ও তাকে বহনকারী মাইক্রো ভাংচুরের আত্মঘাতি ঘটনা সাজিয়ে আইনশৃঙ্খলার অবনতি এবং এ ঘটনা মোবাইলে কথোপকথন করে বিভিন্ন ইলেকট্রনিক, প্রিন্ট মিডিয়া এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ভাইরাল করে সংবাদ প্রচারের মাধ্যমে জনমনে ভীতি সঞ্চার করেছেন। বাদী যেহেতু পটুয়াখালী-৩ (গলাচিপা-দশমিনা) আসনের আওয়ামীলীগের নির্বাচনী
পরিচালনা কমিটির যুগ্ম-আহবায়ক সেহেতু তার সম্মান ক্ষুন্ন হয়েছে। যা ডিজিটাল আইনের অপরাধ করেছেন রনি।

গোলাম মাওলা রনি অভিযোগ করেন, ১৫ ডিসেম্বর শনিবার দুপুরে গলাচিপা পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ডের টিএন্ডটি এলাকায় প্রচরনা চালিয়ে ফেরার সময় পটুয়াখালী-৩ আসনের ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী গোলাম মাওলা
রনি’র স্ত্রী-বোনসহ গলাচিপা পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান আবু তালেব মিয়াকে বহনকরা মাইক্রোবাসে হামলা চালিয়েছে প্রতিপক্ষ। এতে গোলাম মাওলা রনি’র স্ত্রী লুনা আক্তার, বোন এবং গলাচিপা পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান হাজী আবু তালেব মিয়াসহ ৬জন আহত হয়েছেন। আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মীরা আমার স্ত্রী ও বোনের উপর হামলা চালায় ও তাদের গাড়ি ভাংচুর করে। পরে আমার স্ত্রীসহ আহতরা গলাচিপা থানায় অভিযোগ দিতে গেলেও পুলিশ তা নেয়নি বলে অভিযোগ করেন রনি। এ সময় তার স্ত্রী বোনের স্বর্ণালংকারও লুট হয়েছে।