🕓 সংবাদ শিরোনাম

রোজিনার সঙ্গে যারা অন্যায় করেছে, তাঁদের জেলে পাঠান: ডা. জাফরুল্লাহকেরানীগঞ্জে ফ্ল্যাট থেকে যুবতীর অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধারপাটগ্রাম সীমান্তে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশের দায়ে নারী ও শিশুসহ ২৪জন আটকসাংবাদিকদের ভয় দেখিয়ে সরকার গণমাধ্যমের কণ্ঠরোধ করতে চায়: ভিপি নুরসাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা নয়, দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন: হানিফআর এমন ভুল হবে না: নোবেলস্বেচ্ছায় কারাবরণের আবেদন নিয়ে থানায় অনুসন্ধানী সাংবাদিকেরাইসরায়েলি আগ্রাসনের প্রতিবাদে রাস্তায় ঢাবি শিক্ষক সমিতিযমুনা নদীতে ডুবে তিন কলেজ ছাত্রীর মর্মান্তিক মৃত্যু‘বাংলাদেশে সাংবাদিকতাকে তথ্য চুরি বলা হচ্ছে, এর চেয়ে দুঃখ আর নেই’

  • আজ বুধবার, ৫ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৯ মে, ২০২১ ৷

ভেঙে পড়ল মঞ্চ, এমপিসহ আহত ১০


❏ শনিবার, ডিসেম্বর ২২, ২০১৮ চট্টগ্রাম

সময়ের কণ্ঠস্বর, চট্রগ্রাম- নেতাকর্মীদের উপছে পড়া ভিড় ও ঠেলাঠেলিতে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে আওয়ামী লীগের কর্মী সমাবেশের মঞ্চ ভেঙে পড়ে এমপি, উপজেলা চেয়ারম্যানসহ অন্তত ১০ নেতাকর্মী কমবেশি আহত হয়েছেন।

শুক্রবার বিকাল সোয়া ৫টার দিকে উপজেলার ফৌজদারহাট কে.এম হাই স্কুলে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, সীতাকুণ্ডের সলিমপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে স্থানীয় কে. এম হাইস্কুল মাঠে নৌকার প্রচারণায় এক কর্মী সমাবেশের আয়োজন করা হয়। এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব দিদারুল আলম। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও চট্টগ্রাম উত্তর জেলা যুবলীগের সভাপতি এস.এম আল মামুন। বিকাল সাড়ে ৩টায় এ সমাবেশ শুরু হয়।

সংশ্লিষ্টরা জানান, এ সমাবেশে প্রায় দুই হাজার নেতাকর্মী সমবেত হন। এর মধ্যে শতাধিক নেতাকর্মী উঠে পড়েন মঞ্চেও। সলিমপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফজলে করিম নিউটনের সঞ্চালনায় ও সভাপতি মো. গোলাম মহিউদ্দিনের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠান চলছিলো।

বিকাল প্রায় ৫টার দিকে চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের সদস্য থানা আওয়ামী লীগের যুগ্ন সম্পাদক আ ম ম দিলশাদ যখন বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন ঠিক তখনই নেতাকর্মীদের ঠেলাঠেলি ও ভিড়ের চাপে মঞ্চটি ভেঙে পড়ে যায়।

এতে কমবেশি আহত হন প্রধান অতিথি এমপি দিদারুল আলম ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান চট্টগ্রাম উত্তর জেলা যুবলীগের সভাপতি এস.এম আল মামুন, দিলশাদসহ অন্তত ১০ জন। পরে বাধ্য হয়ে এমপি ও উপজেলা চেয়ারম্যান স্কুলের শহীদ মিনারে উপস্থিত হয়ে বক্তব্য রাখেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কর্মী সমাবেশ অনুষ্ঠানের সভাপতি মো. গোলাম মহিউদ্দিন বলেন, আমরাই এ অনুষ্ঠানটির আয়োজন করেছিলাম। এ অনুষ্ঠানে দুই হাজারেরও বেশি কর্মী-সমর্থক উপস্থিত হন। মঞ্চেই উঠে যান শতাধিক নেতাকর্মী। তাদের চাপে অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার কিছুক্ষণ আগে মঞ্চটি ভেঙে পড়ে। তখনও এমপি মহোদয় ও উপজেলা চেয়ারম্যানের বক্তব্য বাকি ছিল। তাই তারা শহীদ মিনারে গিয়ে বক্তব্য রেখে মাগরিবের সময় অনুষ্ঠান শেষ করেন।