সংবাদ শিরোনাম

পণ্যবাহী ট্রাক-মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-১খালেদার জিয়ার শারীরিক অবস্থার উন্নতি নেই, হয়নি বিদেশ যাওয়ার সিদ্ধান্তওপ্রধানমন্ত্রী কোরআন-সুন্নাহর বাইরে কিছু করেন না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীমির্জাপুরে গণহত্যা দিবস উপলক্ষে মোমবাতি প্রজ্জ্বলনশনিবার থেকে ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনাস্পুটনিক-৫ টিকা একে-৪৭’র মতো নির্ভরযোগ্য: পুতিনডোপটেস্টো রিপোর্ট: স্পিডবোটের চালক শাহ আলম মাদকাসক্তচাঁদপুরে ঐতিহাসিক বড় মসজিদে লক্ষাধিক মুসল্লির সালাতে ‘জুমাতুল বিদা’ রাঙামাটিতে ডিবির অভিযানে ইয়াবাসহ দুই চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী আটক! আনসার ব্যাটালিয়ান সদস্যদের সঙ্গে স্থানীয়দের সংঘর্ষ : নারীসহ ৯জন আহত

  • আজ ২৫শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশে ইসির ‘হ্যাঁ’ ডিএমপির ‘না’

১২:৫১ অপরাহ্ন | সোমবার, ডিসেম্বর ২৪, ২০১৮ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর :: আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে আগামী ২৭ ডিসেম্বর রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশকে সায় দিয়েছেন  প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা অপরদিকে একই সমাবেশের জন্য অনুমতি দেননি ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা বলেছেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে আগামী ২৭ ডিসেম্বর রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঐক্যফ্রন্টের জনসভা করার অধিকার আছে।

তবে ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ২৪ ডিসেম্বরের পর ঢাকায় আর জনসভা করা যাবে না।

সোহরাওয়ার্দীতে জনসভা করার বিষয়ে রোববার সন্ধ্যায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খানসহ একটি প্রতিনিধি দল নির্বাচন কমিশনে গিয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সঙ্গে দেখা করেন।

প্রায় ঘণ্টাখানেক আলোচনার পর বের হয়ে নজরুল ইসলাম খান সাংবাদিকদের বলেন, ২৭ তারিখ কেন জনসভা করা যাবে না তা সিইসির কাছে জানতে চাইলে জবাবে সিইসি বলেছেন, ২৭ ডিসেম্বর জনসভা করার অধিকার বিএনপি রাখে। এ ব্যাপারে তিনি পুলিশের সঙ্গে কথা বলবেন বলে জানিয়েছেন।

এ সময় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু ও আহমেদ আজম খান, দলীয় চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের কর্মকর্তা শায়রুল কবীর খান উপস্থিত ছিলেন।

নজরুল ইসলাম খান বলেন, সাধারণত নির্বাচন এগিয়ে আসলে সব দল বড় জনসভা করে। ২৭ ডিসেম্বর বিএনপি সভা করতে চেয়েছিল। কিন্তু ২৪ ডিসেম্বরের পর ঢাকায় আর জনসভা করা যাবে না বলে ডিএমপি কমিশনার তাদের জানিয়েছেন। নির্বাচনী আইন অনুযায়ী ২৮ ডিসেম্বর সকাল ৮টা পর্যন্ত প্রচার চালানোর সুযোগ রয়েছে।

নজরুল ইসলাম খান বলেন, ২৪ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী ঢাকায় জনসভা করবেন। প্রধানমন্ত্রীর পর আর কেউ জনসভা করতে পারবে না, এটা বিমাতাসুলভ আচরণ এবং উদ্দেশ্যমূলক। বিষয়টি নির্বাচনী কাজে বাধা দেওয়ার শামিল।