সংবাদ শিরোনাম

পণ্যবাহী ট্রাক-মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-১খালেদার জিয়ার শারীরিক অবস্থার উন্নতি নেই, হয়নি বিদেশ যাওয়ার সিদ্ধান্তওপ্রধানমন্ত্রী কোরআন-সুন্নাহর বাইরে কিছু করেন না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীমির্জাপুরে গণহত্যা দিবস উপলক্ষে মোমবাতি প্রজ্জ্বলনশনিবার থেকে ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনাস্পুটনিক-৫ টিকা একে-৪৭’র মতো নির্ভরযোগ্য: পুতিনডোপটেস্টো রিপোর্ট: স্পিডবোটের চালক শাহ আলম মাদকাসক্তচাঁদপুরে ঐতিহাসিক বড় মসজিদে লক্ষাধিক মুসল্লির সালাতে ‘জুমাতুল বিদা’ রাঙামাটিতে ডিবির অভিযানে ইয়াবাসহ দুই চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী আটক! আনসার ব্যাটালিয়ান সদস্যদের সঙ্গে স্থানীয়দের সংঘর্ষ : নারীসহ ৯জন আহত

  • আজ ২৫শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বিটিভিতে এবার ভোটের ভাষণ হচ্ছে না

১২:০৭ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ২৭, ২০১৮ আলোচিত

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক- নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে ড. এ টি এম শামসুল হুদার কমিশন বাংলাদেশ টেলিভিশনের (বিটিভি) মাধ্যমে রাজনৈতিক দলের প্রধানদের নিয়ে নির্বাচনী ভাষণের আয়োজন করেছিলেন।

পরে সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনেও প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের এক মঞ্চে জনগণের মুখোমুখী করে সব মহলের প্রশংসা কুড়ায় ড. হুদার নেতৃত্বাধীন কমিশন। তবে এবার প্রথমে পরিকল্পনা থাকলেও বর্তমান কমিশন এ ভাষণের আয়োজন থেকে সরে এসেছে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে এবার রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে এবার নির্বাচনী ভাষণ হচ্ছে না। এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের যুগ্মসচিব এস এম আসাদুজ্জামান বলেন, সার্বিক পরিস্থিতি চুলচেরা বিশ্লেষণ করে নির্বাচনী ভাষণ না করার সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করেছে ইসি।

২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রচারের শেষ দিন ২৭ ডিসেম্বর রাত সাড়ে ৮টায় আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা এবং সোয়া ৯টায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ভাষণ দিয়েছিলেন।

২০১৪ সালে দশম জাতীয় নির্বাচনের আগে বিটিভিতে আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাষণ। ২০১৪ সালে দশম জাতীয় নির্বাচনের আগে বিটিভিতে আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাষণ। সবশেষ ২০১৪ সালে দশম সংসদ নির্বাচনে অংশ নেওয়া ১২ দলের মধ্যে ছয়টিকে বিটিভিতে ভাষণ দেওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়েছিল।

তখন নির্বাচনের মাসখানেক আগে ‘ভাষণ সম্প্রচারের নির্দেশনা’ চেয়ে নির্বাচন কমিশনে চিঠি দিয়েছিলেন বিটিভির মহাপরিচালক। এর জবাবে নির্বাচন কমিশন ২ জানুয়ারির মধ্যে ভাষণ রেকর্ড করার ব্যবস্থা নিতে বিটিভিকে অনুরোধ করেছিল। ৩ জানুয়ারি ছিল প্রচারের শেষ দিন।

সেবার আওয়ামী লীগ ৪০ মিনিট, জাতীয় পার্টি ২০ মিনিট এবং জাতীয় পার্টি জেপি, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদ, ওয়ার্কার্স পার্টি ও বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট-বিএনএফকে ১৫ মিনিট করে সময় দেওয়া হয়। তবে জাতীয় পার্টি থেকে ‘কেউ’ ভাষণ দিচ্ছে না বলে শেষ মুহূর্তে জানানো হয়।

নির্বাচন কমিশনের একাধিক কর্মকর্তা সে সময় জানিয়েছিলেন, প্রার্থী সংখ্যা বিবেচনায় নিয়ে তারা ভাষণের জন্য দল নির্বাচন করেছেন।

দশম সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ২৪৬ জন, জাতীয় পার্টির ৮৫ জন, জেপির ২৮ জন, জাসদের ২৪ জন, ওয়ার্কার্স পার্টির ১৮ জন ও বিএনএফের ২২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ছিল।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৩৯টি নিবন্ধিত দল ও স্বতন্ত্র মিলিয়ে ১৮ শর বেশি প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতায় থাকলেও নির্বাচন কমিশনের নিষ্ক্রিয়তায় এবার বিটিভিতে ভোটের ভাষণ প্রচার হচ্ছে না।