🕓 সংবাদ শিরোনাম

রোজিনা ইসলামের ঘটনা স্বাধীন সাংবাদিকতার টুঁটি চেপে ধরার শামিল: টিআইবিসাংবাদিক রোজিনা কারাগারেদুর্নীতি তুলে ধরাই কাল হয়েছে রোজিনার: মির্জা ফখরুলস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অনলাইন ব্রিফিংও বয়কটচট্টগ্রামে আরও ৭০ জনের করোনা শনাক্ত, মৃত্যু ৫কারাগারে বাড়তি নিরাপত্তায় বাবুল আক্তারসাংবাদিক রোজিনাকে হয়রানি ও হেনস্থার প্রতিবাদে রাঙামাটি প্রেসক্লাবের মানববন্ধনসাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে নির্যাতনের প্রতিবাদে টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের মানববন্ধনঝালকাঠিতে জমি নিয়ে বিরোধে কৃষককে কুপিয়ে হত্যা,আটক-২মাত্র ২০ ঘন্টায় ১০ লক্ষ দর্শক পেল“ তাকে ভালোবাসা বলে” নাটকটি

  • আজ মঙ্গলবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৮ মে, ২০২১ ৷

ফেনী-৩ আসনে ঝুঁকিপূর্ণ ভোটকেন্দ্র ৭৪টি


❏ শনিবার, ডিসেম্বর ২৯, ২০১৮ চট্টগ্রাম

আবদুল্লাহ রিয়েল, ফেনী প্রতিনিধি: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ফেনী-৩ (সোনাগাজী-দাগনভূঞা) আসনে মোট ভোট কেন্দ্র ১২৬টি। এর মধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে ৭৪টিকে। তবে ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোয় শান্তিপূর্ণ ভোট গ্রহণের জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, ফেনী-৩ আসনে সোনাগাজী উপজেলায় নয়টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা রয়েছে। এখানের কেন্দ্র সংখ্যা ৬২। এর মধ্যে ৩৬টি ঝুঁকিপূর্ণ। অন্যদিকে দাগনভূঞায় আটটি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা মিলে মোট কেন্দ্র ৬৪টি। এর মধ্যে ৩৮টি কেন্দ্রকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ হিটলারুজ্জামান বলেন, সোনাগাজী উপজেলায় ৪২টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্র হিসেবে ব্যবহৃত হবে। এসব কেন্দ্রে অবকাঠামোগত কিছু সমস্যা রয়েছে যা সংস্কারের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন পাঠানো হয়েছে।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাইনুল হক বলেন, দুই উপজেলার সবক’টি কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণের লক্ষ্যে সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। এবার এ আসনে মোট ভোটার ৩ লাখ ৯৩ হাজার ৪৫৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৯৮ হাজার ৭৫৫ ও নারী ভোটার ১ লাখ ৯৪ হাজার ৬৯৯ জন। সোনাগাজী উপজেলায় ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ১০৯ ও দাগনভূঞায় ১ লাখ ৯৩ হাজার ৩৪৫। এ আসনে এবার নতুন ভোটার ৬২ হাজার ২২২ জন।

সোনাগাজী মডেল থানার ওসি মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, দুই উপজেলার ১২৬টি ভোট কেন্দ্রের ইতিহাস ও পরিবেশ-পরিস্থিতিসহ বিভিন্ন বিষয় বিবেচনা করে ৭৪ টিকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। কেন্দ্রগুলোয় শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণের জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। তিনি বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোর প্রতিটিতে ১২ জন আনসার ও দুই জন পুলিশ সদস্য নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবেন।