• আজ রবিবার,২৬ বৈশাখ, ১৪২৮ ৷ ৯ মে, ২০২১, রাত ৮:৪১

রাজশাহীতে বিএনপি ও জামায়াতের সন্ত্রাসীদের হামলায় আ’লীগের ৩ নেতা নিহত

❏ সোমবার, ডিসেম্বর ৩১, ২০১৮ রাজশাহী

ওবায়দুল ইসলাম রবি, রাজশাহী প্রতিনিধি: রাজশাহী গোদাগাড়ী উপজেলার পালপুর উচ্চ বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে বিএনপি ও জামায়াতের সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত আওয়ামী লীগ নেতা মারা গেছেন।

আজ সোমবার সকাল সাড়ে ৭টার সময় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই নেতার মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওসি জাহাঙ্গীর আলম।

নিহত ইসমাইল হোসেন (৫০) উপজেলার কাজিহাটা গ্রামের আজাহার কাবিরের ছেলে। নিহত ব্যাক্তি দেওপাড়া ইউনিয়ন নির্বাচন পরিচালনা কমিটির যুগ্ম আহবায়ক ছিলেন। এছাড়াও তিনি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও স্থানীয় শহীদ কামারুজ্জামান সস্মৃতি সংঘের সভাপতি ছিলেন।

দেওপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আক্তার হোসেন বলেন, ভোটের দিন দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ভোট কেন্দ্রে হামলা চালায় বিএনপি-জামায়াত নেতাকর্মীরা। সেখানে গিয়ে বিএনপি-জামায়াত নেতাকর্মীরা ইসমাইলকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে ও ধারলো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। পরে তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে হাসপাতালের আইসিইউতে রাখা হয়। কিন্ত আজ সোমবার সকালে তিনি মারা যান।

এ বিষয়ে ওসি জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ভোট কেন্দ্রে বিএনপি-জামায়াত নেতাকর্মীরা হামলা চালায়। এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। এর এক পর্যায়ে ইসমাইলকে হাতুড়ি ও রামদা দিয়ে কুপিয়ে জখম করা হয়।

এ নিয়ে রাজশাহীতে নির্বাচনী সংহিসতায় তিনজন আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী নিহত হলেন। ভোটের দিন রাজশাহী-১ আসনের তানোর উপজেলার মোহাম্মদপুর উচ্চ বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ নেতা মোদাচ্ছের হোসেন পিটিয়ে এবং রাজশাহী-৩ আসনের পাকুড়িয়ে ভোট কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ কর্মী মেরাজুল ইসলামকে কুপিয়ে হত্যা করে বিএনপি-জামায়াত নেতাকর্মীরা।

এদিকে নির্বাচন চলাকালীন সময়ে বিএনপি ও জায়ামাত-শিবিরের ক্যাডারদের হামলায় আহত আওয়ামী লীগ ও নেতাকর্মীদের হাসপাতালে দেখতে যান ১৪ দলীয় জোটের রাজশাহীর সমন্বয়ক, মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।