নোয়াখালীর সুবর্ণচরে ৪ সন্তানের জননীকে গণধর্ষণের আরও ১ আসামী গ্রেফতার

১:০৮ অপরাহ্ন | শুক্রবার, জানুয়ারী ৪, ২০১৯ অপরাধ, ফিচার

মো: ইমাম উদ্দিন সুমন, স্টাফ রির্পোটার,সময়ের কণ্ঠস্বর: নোয়াখালীর সুবর্ণচরে ভোটের রাতে স্বামী-সন্তানকে বেঁধে এক গৃহবধূকে গণধর্ষণের ঘটনায় জসিম উদ্দিন (৩০) নামে আরও একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত জসিম উদ্দিন সুবর্ণচরের চরজুবলী ইউনিয়নের মধ্যম বাগ্যা গ্রামের মোতাহের হোসেনের ছেলে।

হাসপাতালে বৃহস্পতিবার কান্নাজড়িত কণ্ঠে গৃহবধূ বলেন, তার সারা শরীরে রক্ত জমাট বেঁধে আছে। প্রচণ্ড ব্যথায় উঠতে-বসতে পারি না।

তিনি আরও বলেন, মামলা করায় তার পরিবারের সদস্যদের নানারকম হুমকি দেয়া হচ্ছে। মামলা প্রত্যাহার না করলে তার স্বামী, ছেলে ও মেয়েকে হত্যা করার হুমকিও দেয়া হচ্ছে। একই অভিযোগ করেছেন গৃহবধূর স্বামী ও সন্তানরা।

চরজব্বর থানার ওসি নিজাম উদ্দিন জানান, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে চট্টগ্রামের নাজিরহাট এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

ওসি আরও জানান, পেশায় কলা বিক্রেতা জসিম উদ্দিন মামলার এজাহারভুক্ত আসামি নন। তবে তদন্তে তার নাম এসেছে। এ ছাড়া ঘটনার পর থেকেই গা ঢাকা দিয়েছিলেন তিনি।

জসিম উদ্দিনসহ এ ঘটনায় ছয়জনকে গ্রেফতার করা হল। এদিকে মামলা প্রত্যাহার না করলে গৃহবধূর পরিবারকে প্রাণনাশের হুমকিও দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন পরিবারের লোকজনসহ ভুক্তভোগী।

ধর্ষণের শিকার গৃহবধূর অভিযোগ, ভোটের সময় নৌকার সমর্থকদের সঙ্গে কথা কাটাকাটির জের ধরে রাতে তিনি গণধর্ষণের শিকার হন। সুবর্ণচর উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ও সাবেক ইউপি সদস্য রুহুল আমিনের ‘সাঙ্গপাঙ্গরা’ রাতে বাড়িতে গিয়ে তার স্বামী-সন্তাানকে বেঁধে তাকে গণধর্ষণ করে।

চরজব্বর থানায় ওই গৃহবধূর স্বামীর করা মামলার এজাহারে বলা হয়, আসামিরা ঘরে ঢুকে বাদীকে পিটিয়ে আহত করে এবং সন্তানসহ তাকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে দলবেঁধে ধর্ষণ করে।

এদিকে নোয়াখালী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন গৃহবধূ ও তার স্বামী-সন্তানদের খোঁজখবর নেন জাতীয় মহিলা সংস্থার পরিচালক পর্ষদের কেন্দ্রীয় সদস্য ইয়াদিয়া জামান, বাংলাদেশ অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট ফোরাম (বোয়াফ) সভাপতি কবীর চৌধুরী তন্ময় ও লুভনা মরিয়ম, জাতীয় মহিলা সংস্থার পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মমতাজ বেগম, জেলা মহিলা সংস্থার কর্মকর্তা মো. রাব্বি চৌধুরী।

চরজব্বর থানার ওসি নিজাম উদ্দিন জানান, ঘটনার পর থেকে ছয়জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর আসামিদের গ্রেফতার করতে পুলিশ তৎপর রয়েছে।