সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

কুষ্টিয়ায় কেমিক্যাল দিয়ে টমেটো পাকানোর হিড়িক


এস.এম.আবু ওবাইদা-আল-মাহাদী, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, কুষ্টিয়া: কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে আদাবাড়ীয়া ও বোয়ালীয়া ইউনিয়নে শত শত একর জমিতে এবার টমেটোর আবাদ হয়েছে।

এই টমেটো কেমিক্যাল দিয়ে পাকানোর হিড়িক লেগে গেছে। এ বিষয়ে দেখার কেউ নেই। এখানে সবজি আবাদের উপযোগি আবহাওয়া হওয়াতে শীতকালীন টমেটোর ফলন অনেক বেশি। তাই প্রায় কৃষক অতি লাভের জন্য একেবারে অপরিপক্ব টমেটো তুলে তা মাটিতে বিছিয়ে দিয়ে ইডেন ও গাডেন নামক কেমিক্যাল স্প্রে-মেশিন দিয়ে স্প্রে করছে। এতে করে টমেটো লাল রং ধারন করছে। লাল রং ধারন করার পরে টমেটো গুলো বিক্রয়ের জন্য স্থানীয় বাজারসহ ঢাকার উদ্দেশ্যে পাঠাচ্ছে কৃষকরা।

এ বিষয়ে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় কেমিক্যাল স্প্রের সরাসরি দৃশ্য। এ বিষয়ে কৃষকদের প্রশ্ন করা হলে তার কোন উত্তর দিতে পারেনি। তাদের এই কেমিক্যাল যুক্ত টমেটো খেতে বললে তারা কোন ক্রমেই খেতে চাইনি। স্থানীয় বাজার পরিদর্শন করে দেখা যায়, কাঁচা টমেটো বাজারে আসার পরে দেখে মনে হচ্ছে এ যেন পাকা টমেটো।

এ বিষয়ে আহসান হাবীব দিলিপ জানান, আমাদের কুষ্টিয়া জেলার ভিতরে দৌলতপুর উপজেলার আদাবাড়ীয়া ইউনিয়ন ও বোয়ালিয়া ইউনিয়ন সবজি চাষের জন্য উপযোগী তাই এই এলাকাতে প্রচুর সবজি চাষ হয়। তবে টমেটোর চাষ বেশি হয় কিন্তু চাষিরা অতি লাভের জন্য টমেটো কেমিক্যাল দিয়ে পাকায় এবং দেশের বিভিন্ন এলাকাতে পাঠায়।

এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি অফিসার এ কে এম কামরুজ্জামান জানান, দুটি ইউনিয়নে শীতকালীন টমেটো চাষ হয় শুনেছি। কৃষকরা কোন প্রকার কেমিক্যাল দিয়ে যেন টমেটো না পাকায় তার জন্য আমি পরামর্শ দিয়েছি।

কেমিক্যাল মানব শরীরের কি ধরনের ক্ষতি করতে পারে এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানান, এই কেমিক্যাল লিভার, কিডনিতে প্রচুর ক্ষতি করে কারন সরাসরি বিষ শরীরের প্রবেশ করে।

◷ ৭:২৮ অপরাহ্ন ৷ রবিবার, জানুয়ারী ৬, ২০১৯ খুলনা