সংবাদ শিরোনাম

কক্সবাজারে ইয়াবা সম্রাটের সহযোগীর বাড়ি থেকে ১ লাখ ২০ হাজার ইয়াবা উদ্ধারসিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ সস্ত্রীক করোনায় আক্রান্তরোহিঙ্গা শিশু অপহরণের পর হত্যার ঘটনায় নারীসহ দু’জন গ্রেপ্তারবেলকুচিতে দূর্বৃত্তদের আগুনে পুড়ে গেল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান !জামালপুরে মাদ্রাসা ছাত্রীকে রাতভর ধর্ষণ, গ্রেফতার মাদ্রাসার শিক্ষক‘করোনাকালের নারী নেতৃত্ব: গড়বে নতুন সমতার বিশ্ব’বগুড়ায় শিক্ষা প্রনোদনা পেতে প্রত্যয়নের নামে টাকা নেয়ার অভিযোগজামালপুরে ধর্ষণ মামলায় ধর্ষকের যাবজ্জীবনপাবনায় অবৈধ অস্ত্র তৈরির কারখানায় অভিযান, চারটি আগ্নেয়াস্ত্রসহ গ্রেফতার-২উপজেলা আ.লীগের সভাপতিকে ‘পেটালেন’ কাদের মির্জা!

  • আজ ২৪শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

আজও উত্তাল উত্তরা: শ্রমিক-পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া

১২:২৩ অপরাহ্ন | সোমবার, জানুয়ারী ৭, ২০১৯ আলোচিত

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- বকেয়া বেতন ও মজুরি বাড়ানোর দাবিতে রাজধানীর উত্তরায় আজও ঢাকা-ময়মনসিংহ সড়ক অবরোধ করেছেন পোশাকশ্রমিকরা।

সোমবার সকালে উত্তরার ৪ নম্বর সেক্টর, দক্ষিণখান ও আবদুল্লাহপুরসহ বিভিন্ন মোড়ে দ্বিতীয় দিনের মতো সড়ক অবরোধ করেন শ্রমিকরা। এ সময় পুলিশের সঙ্গে তাদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল থেকে সড়কে দীর্ঘ জটলার কারণে অফিসগামী মানুষ ভোগান্তিতে পড়েছেন। যান চলাচল প্রায় বন্ধ হয়ে পড়ায় অনেককেই হেঁটে গন্তব্যে যাচ্ছেন।

উত্তরা পশ্চিম থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আলমগীর হোসেন বলেন, শ্রমিকরা বিভিন্ন দাবি নিয়ে উত্তরা এলাকার সড়ক অবরোধ করেছেন। এতে প্রায় পুরো উত্তরার মহাসড়ক অচল হয়ে পড়েছে। চলাচল স্বাভাবিক করতে শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশ কথা বলছে। তাদেরকে রাস্তা থেকে সড়ানোর চেষ্টা চলছে।

গত শনিবার থেকে বকেয়া বেতন ও মজুরি বাড়ানোর দাবিতে আন্দোলন করে আসছে শ্রমিকরা। তাদের অভিযোগ, নতুন মজুরি কাঠামো অনুযায়ী ৫১ শতাংশ বেতন বৃদ্ধি শুধু ৭ম গ্রেডের ক্ষেত্রেই দিচ্ছে মালিকরা। সমান বেতন দেওয়া হচ্ছে না, মূল্যায়ন করা হচ্ছে না অভিজ্ঞতা ও দক্ষতাকে।

এর ধারাবিহকতায় গতকাল রোববারও উত্তরা এলাকার বিভিন্ন গার্মেন্টসের শত শত শ্রমিক রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করেন। এ সময় যান চলাচল বন্ধ হয়ে সৃষ্টি হয় তীব্র যানজটের। এতে ভোগান্তিতে পড়েন সাধারণ মানুষ। প্রায় ছয় ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর কারখানার মালিক ও পুলিশের আশ্বাসে বিক্ষোভরত শ্রমিকরা দুপুর ২টায় রাস্তা থেকে সরে গেলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।