সুর পাল্টালেন ইসি মাহবুব!

২:৪৩ অপরাহ্ন | মঙ্গলবার, জানুয়ারী ৮, ২০১৯ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর :: নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার বলেছেন, গত ৩রা জানুয়ারি আমি যে বক্তব্য রেখেছি তাতে কিছু বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে।আমি বক্তব্যে বলেছি, অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন উপহার দিয়েছি। ইতোপূর্বে ১৭ই ডিসেম্বর বক্তব্যে আমি বলেছিলাম , সব দল অংশগ্রহণ করলে অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন বলা হয়। সুষ্ঠু নির্বাচনের সঙ্গে এর সর্ম্পক নেই। নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হওয়া একটা প্রাথমিক প্রাপ্তি। আসল কথা হচ্ছে নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হচ্ছে কিনা এবং বিশ্বাসযোগ্য হচ্ছে কি না? নির্বাচন গ্রহণযোগ্য ও বিশ্বাসযোগ্য না হলে অংশগ্রহণমূলক হলেও কোন লাভ নেই।’ নির্বাচনের বিশ্বাসযোগ্যতা ও গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে ধন্যবাদ জ্ঞাপন অনুষ্ঠানে আমি কোন কথা বলিনি।

মঙ্গলবার দুপুরে নির্বাচন কমিশন ভবনে নিজ কার্যালয়ে এক ব্রিফিংয়ে এমন কথা বলেন মাহবুব তালুকদার।

লিখিত বক্তব্যে খালেদা জিয়ার নির্বাচন করার ব্যাপারে একমাত্র সমর্থন জানানো এই কমিশনার বলেন, অনেক সাংবাদিক আমাকে প্রশ্ন করেছেন। আমি আমার অবস্থান পরিবর্তন করেছি কিনা! এ সর্ম্পকে বিভ্রান্তির অবসান ঘটাতে বিষয়টি স্পষ্ট করা প্রয়োজন।

কেমন নির্বাচন হয়েছে সাংবাদিকদের এহেন প্রশ্নের জবাবে আমি পূর্বে বলেছি, নিজেদের বিবেককে জিজ্ঞাসা করুন, তাহলে এ প্রশ্নের জবাব পেয়ে যাবেন। এখনও আমি সে কথাই বলি। আমার অবস্থানের কোনো পরিবর্তন হয়নি।

বিগত ৩রা জানুয়ারির অনুষ্ঠানটি ছিল ধন্যবাদ জ্ঞাপন অনুষ্ঠান। কাউকে প্রশংসাসূচক কথা বলে ধন্যবাদ জানাতে হয় এবং সেটাই সৌজন্যের প্রকাশ। আমার ধন্যবাদ জ্ঞাপন বক্তব্যকে রাজনৈতিকভাবে বিচার-বিশ্লেষণ করা ঠিক হবে না।

প্রসঙ্গত, গত ৩রা জানুয়ারী নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের (ইসি) উদ্যোগে আয়োজিত ‘ধন্যবাদ জ্ঞাপন’ অনুষ্ঠানে নিজের দেয়া বক্তব্যে তিনি বলেছিলেন, এই প্রথম একটি অংশীদারমূলক ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন আমরা জাতিকে উপহার দিতে পেরেছি। এই নির্বাচন বাংলাদেশের নির্বাচনের ইতিহাসে একটি ঐহিত্য সৃষ্টি করবে। এই নির্বাচনের পথ ধরে পরবর্তী নির্বাচনের ধারা ইতিহাসের পাতায় লিপিবদ্ধ হয়ে থাকবে। নির্বাচন কমিশনে কাজ করার সুযোগকে তিনি জীবনের গৌরব গাঁথা হিসেবেও আখ্যা দিয়েছেন। নিজেকে মনে করেন ভাগ্যবান।