পত্নীতলায় এক চোরকে নিয়ে আলোড়ন!

৬:০৪ অপরাহ্ন | মঙ্গলবার, জানুয়ারী ৮, ২০১৯ রাজশাহী

সিয়াম সাহারিয়া, পত্নীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধি :: নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলায় গভীর নলকূপের বৈদ্যুতিক মিটার চোর চক্রের মূল হোতাকে আটক করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে সাপাহার উপজেলার মাছ বাজার থেকে তাকে আটক করা হয়। চোরচক্রের মূল হোতা আটকের এ ঘটনায় এলাকায় আলোড়ন উঠেছে।

পুলিশ জানায়, বরেন্দ্র বহুমূখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের বিদ্যুৎ চালিত গভীর নলকূপের বৈদ্যুতিক মিটার একটি সংঘবদ্ধ চক্র চুরি করে সু-কৌশলে বিকাশের মাধ্যমে টাকা নিয়ে তা ফেরৎ দেয়ার ঘটনায় ওই সংঘবদ্ধ চক্রের মূল হোতাকে আটক করেছে পুলিশ। র্দীঘদিন থেকে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বিদ্যুৎ চালিত নলকুপের মিটার গুলো চুরি হতে শুরু করে। তবে চক্রটি সু-কৌশলে পরবর্তীতে ওইসব কৃষকদের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে বিকাশের মাধ্যমে মোটা অংকের টাকা নিয়ে সেসব মিটার ফেরত দিতো।

তাদের এই বিকাশে টাকা নেয়ার পদ্ধতিও ছিল অভিনব। যেখান থেকে মিটারগুলো চুরি করা হতো সেই স্থানে পলিথিনের মধ্যে সাদা কাগজে একটি চিরকুট মুড়িয়ে তাতে মোবাইল নাম্বার লিখে সেটিতে যোগাযোগ করতে বলতো তারা। উক্ত নম্বরে যোগাযোগ করলে বিকাশের মাধ্যমে ৫ থেকে ৭ হাজার টাকা দিলেই মিটার ফেরত দেবে বলে জানাতো চক্রটি। এতে এলাকায় কৃষকদের মাঝে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে চক্রটিকে ধরতে পত্নীতলা সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও পত্নীতলা থানার অফিসার ইনচার্জ পরিমল কুমার চক্রবর্তী সঙ্গিয় ফোর্স নিয়ে তদন্তে নামে। পরে প্রযুক্তিগত তদন্তের মাধ্যমে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ২টি মোবাইল ফোন, ৯টি কাচি, ২টি চাকু, ২টি মোবাইল সীম কার্ড এবং চুরি হওয়া ৬টি মিটার সহ মো.জাহান আলী (৪০) নামে চক্রের মূল হোতাকে আটক করতে সক্ষম হয় পুলিশ।

আটককৃত জাহান আলী বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার ছতিয়ান গ্রামের ছহির উদ্দিনের পুত্র। এ বিষয়ে পত্নীতলা থানার অফিসার ইনচার্জ পরিমল কুমার চক্রবর্তী জানান, প্রযুক্তির সহায়তায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে মিটার চুরির সংঘবদ্ধ চক্রটির মূল হোতাকে আটক করা হয়েছে। আটক করার পর এই চক্রের সাথে আর কে কে জড়িত আছে এবং চুরি হওয়া মিটার গুলি কোথায় আছে সেগুলি বের করার অভিযান চলছে।