ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনে ধানের শীষের জয়

৬:৩৩ অপরাহ্ন | বুধবার, জানুয়ারী ৯, ২০১৯ ফিচার

সময়ের কণ্ঠস্বর- ভোট গ্রহণে অনিয়ম ও গোলযোগের কারণে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের তিনটি কেন্দ্র স্থগিত করা হয়। মোট ১৩২ কেন্দ্রের মধ্যে ১২৯ কেন্দ্রের ফলাফল প্রকাশ হয়েছে। এ তিন কেন্দ্রের ভোটের ওপরই নির্ভর করছিল চূড়ান্ত ফলাফল।

ওই তিনি কেন্দ্রে আজ বুধবার ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এদিন সকাল ৮টায় নির্ধারিত সময়ে ওই তিন কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ শুরু হয়, চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। এরপর ভোট গণনা শেষে প্রাপ্ত ফলাফলে বিজয়ের মুকুট উঠে বিএনপির প্রার্থী আবদুস সাত্তার ভূঁইয়ার মাথায়।

এ আসনে ধানের শীষ প্রতীকে ৮৩ হাজার ৯৯৭ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। তার নিটকতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মঈন উদ্দিন কলার ছড়ি প্রতীকে পেয়েছেন ৭৫ হাজার ৪১৯ ভোট।

সারা দেশে ৩০০ আসনের মধ্যে ২৯৯টিতে গত ৩০ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণের আয়োজন করেছিল নির্বাচন কমিশন। এসব আসনের ৪০ হাজার ৫১টি কেন্দ্রের মধ্যে ১৬টি কেন্দ্র গোলযোগ ও অনিয়মের কারণে স্থগিত করা হয়।

এর মধ্যে আশুগঞ্জ উপজেলার যাত্রাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাহাদুরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং সোহাগপুর দক্ষিণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোটগ্রহণ ব্যালট বাক্স ছিনতাই ও সংঘর্ষের কারণে স্থগিত হওয়ায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের ফলাফল আটকে যায়। তবে ১২৯ কেন্দ্রের ফলাফলে জয়ের দ্বারপ্রান্তে ছিলেন আবদুস সাত্তার ভূঁইয়া।

সরাইল ও আশুগঞ্জ এলাকা নিয়ে গঠিত এই আসনে ১২৯ কেন্দ্রের ফলাফলে ‘ধানের শীষ’ প্রতীকে বিএনপির আবদুস সাত্তার ভূইয়া পান ৮২ হাজার ৭২৩ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মঈন উদ্দিন ‘কলার ছড়ি’ প্রতীকে পান ৭২ হাজার ৫৬৪ ভোট। ফলে স্থগিত তিন কেন্দ্রের ভোট নিয়ে জেলাবাসীর আগ্রহ বেড়ে যায়।

বুধবার কঠোর নিরাপত্তা বলয়ের মধ্য দিয়ে স্থগিত তিন কেন্দ্রে পুনরায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। তিন কেন্দ্রের ফলাফলে ধানের শীষ প্রতীকে সাত্তার পেয়েছেন ১ হাজার ২৭৪ ভোট আর কলার ছড়ি প্রতীকে মঈন পেয়েছেন ২ হাজার ৮৫৫ ভোট।

এ তিন কেন্দ্রের নিরাপত্তায় মোতায়েন ছিল ৩৩৯ জন পুলিশ সদস্য, ৩৬ জন আনসার এবং দুই প্লাটুন বিজিবি ও দুই প্লাটুন র্যাব সদস্য।