কুষ্টিয়ায় ১১ বছরের স্কুলছাত্রীকে ‘ধর্ষণ’, আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি

১২:০১ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ১০, ২০১৯ খুলনা

আবু ওবাইদা আল মাহাদী, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, কুষ্টিয়া: কুষ্টিয়ার ভেড়ামারার উপজেলায় ১১ বছরের এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় ওই ছাত্রীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, বুধবার রাতে ক্ষেমিড়দিয়াড় বিশ্বাসপাড়া এলাকার অসহায় বাবার স্কুলপড়ুয়া ১১ বছর বয়সী নাবালিকা মেয়েকে প্রলোভনের ফাঁদে ফেলে একই এলাকার ২ ছেলের পিতা লম্পট মান্নান জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। পরে বাচ্চা মেয়েটির চিৎকারে এলাকাবাসী ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় দেখে রাত আনুমানিক ১ টার দিকে ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গিয়ে ভর্তি করে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করে।

রাতেই ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা: মিজানুর রহমানের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, বাচ্চা মেয়েটি আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছে। তবে প্রাথমিক চিকিৎসা চলছে। এখন গভীর রাত তাই পরামর্শ দিয়েছি সকালে কুষ্টিয়া সদরে নেওয়ার জন্য।

এদিকে ভেড়ামারা থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে লম্পট ধর্ষক মান্নানকে তাৎক্ষণিক আটক করে পুলিশি হেফাজতে নেওয়া হয়েছে বলে জানা যায়।

তবে এলাকাবাসী দাবি তুলেছেন, মানুষ রুপি এই জানোয়ার লম্পট ধর্ষক মান্নানের কঠোর ও দৃষ্টান্তমূলক বিচার চাই। যাতে করে সমাজে এধরনের জঘন্য ঘটনা পুনরাবৃত্তি যেন না হয়।

ভেড়ামারা থানার এস আই রাশেদুল ইসলাম ঘটনাটির সতত্যা স্বীকার করে বলেন, এই ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। লম্পট মান্নানকে আটক করা হয়েছে।