প্রথম শ্রেণীর আদিবাসী শিশু ছাত্রীকে আখ ক্ষেতে ধর্ষণ!


পীরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধি :: রংপুরের পীরগঞ্জে খালিসা মিশন স্কুলের প্রথম শ্রেণির আদিবাসী এক শিশুকে ধর্ষণ করার ঘটনায় ধর্ষককে আটক করেছে পীরগঞ্জ থানা পুলিশ। ঘটনাটি বুধবার মিঠাপুকুর গোপালপুর আখের জমিতে ঘটেছে।

খালিসা গ্রামের বাসিন্দা ওই ছাত্রীর মা জানান, ঘটনার দিন পাশ্ববর্তী গোপালপুর গ্রামে তাদের এক আত্মীয়ের বাড়ীতে দাওয়াতের জন্য গিয়েছিল। ওই দিন সন্ধ্যায় দাওয়াতের বাড়ী থেকে তাঁর শিশু কন্যাকে ডেকে নিয়ে যায় দুই সন্তানের জনক রুবেল তুর্কী। ধর্ষক রুবেল মিঠাপুকুরের পায়রাবতী কৃষ্ণপুর গ্রামের জুলিউসের পুত্র।

সে পাশ্ববর্তী আখের জমিতে আখের কাজ করতো। শিশুটিকে আখ দেওয়ার প্রলোভনে জমিতে নিয়ে যায়। এরপর রুবেল শিশুটিকে জোর করে ধর্ষণ করে ছেড়ে দেয়। এরপর শিশুটি বাড়ীতে গিয়ে কান্নাকাটি করলে এক পর্যায়ে শিশুটি তার মাকে সব ঘটনা খুলে বলে।

এ সময় ছাত্রীটির মা সহ অন্যান্যরা রুবেলকে আটক করে উত্তমমধ্যম দেয়। এ খবর পেয়ে রুবেলের লোকজন তাকে ছিনিয়ে নেয়। এদিকে শিশু ছাত্রীটির শারিরীক অবস্থার অবনতি ঘটলে ঘটনার রাতেই পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এদিকে বৃহস্পতিবার দুপুরে পীরগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে অনন্তপুর গ্রাম থেকে ফ্রেন্ডস স্পোটিং ক্লাবের ছেলেরা ধর্ষককে আটক করে পীরগঞ্জ থানায় হস্তান্তর করেন। বর্তমানে ধর্ষক ভেন্ডাবাড়ী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে হাজতে রয়েছে বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে ভেন্ডাবাড়ী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ আমিনুল ইসলাম জানান ঘটনাটি যেহেতু মিঠাপুকুরের সেক্ষেত্রে মিঠাপুকুরে থানায় মামলা হবে।

◷ ৮:২৯ অপরাহ্ন ৷ বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ১০, ২০১৯ রংপুর