‘সরলভাবে বলেছিলাম, কিন্তু ঘটনা তো ২৯ তারিখ রাতেই ঘটে গেছে’


সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা :: জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনকে কেউ অবাধ বলছে না। তাই নতুন নির্বাচনের পথ বের করতে জাতীয় সংলাপের প্রয়োজন। বছরের প্রথম দিকেই সবার সঙ্গে জাতীয় সংলাপ করুন। এটাই সবচেয়ে ভালো পথ। সংলাপের মধ্য দিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হোক- কীভাবে সংবিধান মেনে নির্বাচন করে সংসদ ও সরকার গঠন করা যায়।

বঙ্গবন্ধুর স্ব্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে বৃহস্পতিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে গণফোরাম আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

ড. কামাল বলেন, নির্বাচনের দিনে ভোট হয়নি। ৪৮ বছর পরে ৩০ ডিসেম্বরের যে ঘটনা ঘটেছে, তা ভাবতেও পারছি না। এটা হওয়ার কথা নয়। সরলভাবে বলেছিলাম, সকালে সকালে গিয়ে ভোট দেবেন; কিন্তু ঘটনা তো ২৯ তারিখ রাতেই ঘটে গেছে। কেউ টেরও পেলাম না যে, আমাদের ভোট হয়ে যাচ্ছে।

কেন এ রকম অস্বাভাবিক কাজ হচ্ছে? এর থেকে ঘোষণা দিয়ে দিতে পারতেন যে তৃতীয়বারের জন্য একজন প্রধানমন্ত্রী হয়ে গেছেন, তিনশ’ জন সাংসদ হয়ে গেছেন।

তিনি বলেন, মানসিকভাবে ভারসাম্য না হারালে কেউ এসব করতে পারে না। চুপি চুপি রাতে কী হলো আর সকালে বলে দিল- হয়ে গেছে। এটা কোনো স্বাধীন-সার্বভৌম দেশে হওয়ার কথা নয়। তিনি বলেন, রাষ্ট্র নিয়ে এভাবে খেলা করা চলে না। যারা এসব করছে তারা না বুঝে করছে। এই ধরনের তথাকথিত নির্বাচন কোনো সুস্থ মানুষের করার কথা নয়। মানসিকভাবে কেউ সুস্থ থাকলে এসব করতে পারে না। এটা অসুস্থ মানসিকতার পরিচয়। এটা কোনোভাবে মেনে নেওয়া যায় না।

সংবিধানপ্রণেতা ড. কামাল বলেন, বঙ্গবন্ধু বলতেন যে, রাজনীতির পরিবর্তে রাজ-চালাকি হচ্ছে। আমরা রাজনীতি থেকে সরে যাচ্ছি রাজ-চালাকিতে। আমি বলব, যে নির্বাচন হয়েছে সেটা রাত চালাকির একটা সুন্দর উদাহরণ। আমরা বলব, রাত চালাকি থেকে বিরত থাকুন, জনগণের সামনে সবকিছু তুলে ধরুন। সংবিধান অনুযায়ী আলাপ-আলোচনা করে ব্যবস্থা নিন। এ ছাড়া কোনো বিকল্প নেই।

◷ ১:৫৬ পূর্বাহ্ন ৷ শুক্রবার, জানুয়ারী ১১, ২০১৯ আলোচিত বাংলাদেশ