সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ১৫ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শে মন্ত্রীদের পিএস নিয়োগ, এপিএস নিয়ে সিদ্ধান্ত স্থগিত

১১:৩৮ পূর্বাহ্ন | শনিবার, জানুয়ারী ১২, ২০১৯ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর: বিধি অনুযায়ী মন্ত্রিসভার সদস্যদের পছন্দের ভিত্তিতেই তাদের একান্ত সচিব (পিএস) নিয়োগ দেওয়ার কথা থাকলেও এবার প্রথমবারের মতো তাদের পিএস নিয়োগ হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শে। সুশাসন নিশ্চিত করতেই এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। এপিএস নিয়োগেও একই প্রক্রিয়া অবলম্বনের কথা ছিল। তবে সেই সিদ্ধান্ত থেকে কিছুটা সরে এসেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। সরকারের উপর মহলের নির্দেশেই এপিএস নিয়োগের প্রক্রিয়া সাময়িকভাবে স্থগিত রাখা হয়েছে। জানা গেছে আগামী রবিবার নাগাদ এ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হতে পারে।

‘দ্য মিনিস্টার্স, মিনিস্টার্স অব স্টেইট অ্যান্ড ডেপুটি মিনিস্টার্স (রেমুনারেশন অ্যন্ড প্রিভিলেজেজ) অ্যাক্ট, ১৯৭৩’ অনুযায়ী মন্ত্রীসভার সদস্যদের একান্ত সচিব নিয়োগ দেওয়া হয়। সংশ্লিষ্ট আইনের ১৪ (১) ধারায় মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী কিংবা উপমন্ত্রীর পছন্দ অনুযায়ীই তাদের একান্ত সচিব নিয়োগ দেওয়ার বিধান রয়েছে। এবার ব্যতিক্রমী সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এরইমধ্যে নিয়োগ চূড়ান্ত করে নতুন পিএসদের দায়িত্ব সম্পর্কে অবহিত করে তাদের সততা ও দক্ষতার সঙ্গে কাজ করার পরামর্শ দিয়েছে। তাদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে ভবিষ্যতে কর্মশালা আয়োজন করা হবে বলেও জানা গেছে।

জানা গেছে, সব দিক বিবেচনা করে মন্ত্রণালয়ভিত্তিক অভিজ্ঞ কর্মকর্তাদের তালিকা প্রণয়ন করে সেখান থেকে মন্ত্রীসভার সদস্যদের পিএস পদে নিয়োগ দিয়েছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেনও বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘আমাকে যে পিএস দেওয়া হয়েছে, তাকে আমি যোগদান করতে বলেছি এবং তিনি ইতিমধ্যে যোগদানও করেছেন। তিনি কাজ করছেন। তবে তাকে দিয়ে আমার মতো করে কাজ না হলে আমি বিষয়টি পিএমকে জানাবো।’

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, নতুন সরকারের মন্ত্রিসভার সদস্যরা পছন্দের ব্যক্তিকেই সহকারী একান্ত সচিব (এপিএস) পদে নিয়োগ দিতে পারবেন । তবে কবে নাগাদ মন্ত্রিসভার সদস্যরা এ পদে লোক নিয়োগ দিতে পারবেন তা তিনি জানাতে পানেনি। তবে ওই যুগ্ন সচিব আশা প্রকাশ করেন, ‘পর্যালোচনা শেষে আগামী ২/১দিনের মধ্যেই সরকার এ বিষয়ে একটি সিদ্ধান্ত দেবে, তখন সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তারা পদক্ষেপ নেবেন। ’