কিশোরগঞ্জে নতুন কারাগারে বন্দী স্থানান্তর

১:৫৬ অপরাহ্ন | রবিবার, জানুয়ারী ১৩, ২০১৯ ঢাকা

এ. এম উবায়েদ, কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি: উদ্বোধনের ৩ মাস পর ১২ জানুয়ারি শনিবার ভোর থেকে নতুন কারাগারে বন্দীদের নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ৭১ বছর পর কিশোরগঞ্জ খিলপাড়া এলাকায় নবনির্মিত জেলা কারাগারে কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে বন্দী স্থানান্তর করা হয়েছে।

কিশোরগঞ্জ জেলা কারাগারের জেল সুপার মোঃ বজলুর রশীদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, শনিবার ভোরে পুরুষ বন্দীদের স্থানান্তরের মধ্য দিয়ে নবনির্মিত কিশোরগঞ্জ জেলা কারাগারে বন্দী স্তানান্তরের কার্যক্রম শুরু করা হয়। ৮টি প্রিজন ভ্যানে করে কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে নবনির্মিত কারাগারে বন্দীদের নিয়ে যাওয়ার কার্যক্রম শুরু করা হয়।

দুপুর পৌনে ২টায় মহিলা বন্দীদের স্থানান্তরের মধ্য দিয়ে কার্যক্রম শেষ করা হয়। মাত্র ২৪৫ জনের ধারণ ক্ষমতার পুরাতন জেলা কারাগারে রাখতে হতো ১২শ থেকে ১৪শ বন্দীকে। বর্তমানে কিশোরগঞ্জ জেলা কারাগারের বন্দীর সংখ্যা ১ হাজার ৩৮৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ বন্দী ১ হাজার ৩৪৬ জন এবং নারী বন্দী ৩৮ জন। নতুন কারাগার চালু হওয়ার মধ্য দিয়ে একটি নতুন অধ্যায়ের সূচনা হলো।

কারা সূত্র জানায়, ১৯৪৮ সালে নির্মিত হয় মাত্র ২৪৫ জন বন্দি ধারণ ক্ষমতার কিশোরগঞ্জ জেলা কারাগার। জায়গা সংকুলান না হওয়ায় ধারণ ক্ষমতার ৬ গুণ বন্দীকে রাখতে হতো পুরনো এ কারাগারে। ১৯৯৮-৯৯ অর্থ বছরে ৬৮.৪৬ কোটি টাকা ব্যায়ে কিশোরগঞ্জ জেলা কারাগার নিমার্ণ কাজ শুরু করে গণপূর্ত বিভাগ। প্রায় ১৮ বছর পর শেষ হয় নিমার্ণ কাজ। তবে দেরিতে হলেও এ অবস্থার সুযাগ-সুবিধা সমৃদ্ধ নতুন জেলা কারাগারে স্থানান্তর করা হলো নতুন কারাগারে বন্দীদের।

সরেজমিনে দেখা যায়, কিশোরগঞ্জ খিলপাড়া এলাকায় নির্মিত খোলামেলা পরিবেশের এ কারাগারটিতে প্রায় দুই হাজার বন্দি রাখা যাবে। এখানে বন্দীদের জন্য কর্মসংস্থান, বিভিন্ন প্রশিক্ষণ, খেলাধুলা, চিত্তবিনোদনের ব্যবস্থাসহ সুন্দর পরিবেশ নিশ্চিত করা যাবে।

এতে করে মানবেতর জীবন-যাপন থেকে রেহাই পাবে বন্দীরা। তবে নবনির্মিত কারাগারটি কিশোরগঞ্জ জেলা কারাগার-১ এবং পুরাতন কারাগরটি কিশোরগঞ্জ জেলা কারাগার-২ হিসেবে কার্যক্রম পরিচালনা করবে।