বাউফল একাডেমিক সুপাভাইজারের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

১১:১১ অপরাহ্ন | রবিবার, জানুয়ারী ১৩, ২০১৯ বরিশাল

কৃষ্ণ কর্মকার,বাউফল প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের একাডেমিক সুপার ভাইজার কে এম সোহেল রানার বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।

সোহেল রানা কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও শিক্ষকদের নিয়ম মাফিক তদারকি না করে নিজের খেয়াল খুশি মতন অফিস করছেন। অভিযোগ রয়েছে, শিক্ষকদের কোন তদারকি না থাকায় শিক্ষকরা অনেকটা গা ছাড়া ভাব নিয়ে শ্রেণি কক্ষে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করাচ্ছেন।  আর এ কারনে ভেঙ্গে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে উপজেলার শিক্ষা ব্যবস্থা।

সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে, সরকার মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষা ব্যবস্থাকে সঠিক ভাবে পরিচালনা ও নিয়মিত তদারকি করার জন্য শিক্ষা কর্মকর্তা ছাড়াও একাডেমিক সুপারভাইজার নিয়োগ দেন। একজন একাডেমিকসুপার ভাইজারের কাজ রয়েছে, PBM (Performence Based Management)কৃতি ভিত্তিক ব্যবস্থাপনা যা এক শিক্ষক তার ডায়েরীতে নিয়মিত কার্যক্রম লিপিবব্ধ করে রাখবেন, প্রতিমাসে কমপক্ষে একবার ডায়েরী তদারকি করবে সুপারভাইজার। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিচালনার ক্ষেত্রে শিক্ষকগন সরকারের সঠিক নির্দেশনা পালন করে কিনা, বিদ্যালয়ের নিয়মিত প্রত্যাহিত সমাবেশ হয় কিনা তার তদারকি করবে একাডেমিক সুপারভাইজার। অথচ কোন নিয়মই অনুসরন করেন না বাউফল উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে কর্মরত একাডেমিক সুপারভাইজার কে এম সোহেল রানা।

অভিযোগ রয়েছে, সোহেলা রানা শিক্ষা অফিসের কর্মকর্তাদের ওপর বিশেষ প্রভাব বিস্তার করে সকল নিয়ম ভঙ্গ করে চলছেন। উপজেলার ৬২টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও ৬৭টি মাদ্রাসা রয়েছে। এ মধ্যে বেশ কয়েকটি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাম প্রকাশ না করার শর্তে এ প্রতিনিধিকে জানান, একাডেমিক সুপারভাইজার  কে এম সোহেল রানা একমাস তো দুরের কথা দশ মাসেও দেখা মেলে না।

অভিযোগ অস্বিকার করে একাডেমিক সুপার ভাইজার কে এম সোহেল রানা বলেন, এ অভিযোগ ভিত্তিহীন। নাম উল্ল্যেখ করে জানুয়ারীতেই তিনি বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করেছেন বলে দাবী করলে, সাংবাদিকরা তার মধ্যে থেকে দুইটি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের কাছে জানতে চাইলে তারা পরিদর্শনরে বিষয়টি অস্বিকার করেন।

এ বিষয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. সহিদুল ইসলাম বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরিদর্শনে সোহেল রানা যে যায় না তা ঠিক না। তবে কাছা কাছাকাছি প্রতিষ্ঠান গুলোতে পরিদর্শন করেন। নিয়ম মাফিক পরিদর্শনের বিষয়টি তাকে বহুবার বলা হয়েছে।