সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ১৫ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

হাইকোর্টে আগাম জামিন পেলেন আব্বাস দম্পতি!

৩:২৮ অপরাহ্ন | সোমবার, জানুয়ারী ১৪, ২০১৯ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস এবং তার স্ত্রী মহিলা দলের সভানেত্রী আফরোজা আব্বাসকে আট সপ্তাহের আগাম জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট।

মির্জা আব্বাস দম্পতির আগাম জামিন চেয়ে আবেদনের শুনানি নিয়ে আজ সোমবার বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি এস এম কুদ্দুস জামানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আট সপ্তাহ পর তাঁদের ঢাকার জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করতে বলা হয়েছে।

গত ৭ জানুয়ারি (সোমবার) রাজধানীর শাহজাহানপুর থানায় দুদকের সহকারী পরিচালক মো. সালাহউদ্দিন এ মামলা করেন।

এজাহারে বলা হয়েছে, মির্জা আব্বাসের স্ত্রী আফরোজার নামে ২০ কোটি ৭৬ লাখ ৯২ হাজার ৩৬৩ টাকার ‘অবৈধ’ সম্পদ পাওয়া গেছে। আয়কর নথিতে তিনি নিজেকে একজন হস্তশিল্প ব্যবসায়ী হিসেবে বর্ণনা করেছেন। কিন্তু পাসপোর্টের তথ্যে বলা হয়েছে, তিনি একজন গৃহিণী, নিজের আয়ের কোনো বৈধ উৎস তার নেই।

আফরোজা আব্বাস তার অবৈধভাবে অর্জিত সম্পদ হস্তান্তর, রূপান্তর ও অবস্থান গোপন করে অসৎ উদ্দেশ্যে দালিলিক প্রমাণবিহীন ভুয়া ঋণ হিসেবে দেখিয়েছেন।

এজাহারে আরো বলা হয়েছে, ১৯৯১ সালের আগে মির্জা আব্বাসের উল্লেখযোগ্য কোন আয় ছিল না। ঢাকা সিটি করপোরেশনের মেয়র এবং গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী হওয়ার সুবাদে ঘুষ ও দুর্নীতির মাধ্যমে তিনি টাকার মালিক হন।

এসব অভিযোগে দুদক আইনের ২৭(১) ধারা, দণ্ডবিধির ১০৯ ধারা এবং মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইনের ১৩ ধারায় আব্বাস দম্পতির বিরুদ্ধে মামলাটি করা হয়।

এ মামলায় আজ আদালতে মির্জা আব্বাস ও আফরোজা আব্বাস হাজির হয়ে আগাম জামিনের আবেদন জানান। আদালতে আব্বাস দম্পতির পক্ষে শুনানি করেন, আইনজীবী জয়নুল আবেদীন। সঙ্গে ছিলেন, আইনজীবী জহিরুল ইসলাম সুমন। দুদকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান।

পরে আইনজীবী জহিরুল ইসলাম বলেন, দুদকের মামলায় আট সপ্তাহের আগাম জামিন পেয়েছেন মির্জা আব্বাস ও আফরোজা আব্বাস। তাঁদের আগাম জামিনের আবেদন নিষ্পত্তি করে এ আদেশ দেওয়া হয়। আট সপ্তাহ পর তাঁদের ঢাকার জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করতে বলা হয়েছে।