ব্রেক্সিট ভোটের জন্য সন্তান প্রসব পেছালেন ব্রিটিশ এমপি

১:১৪ অপরাহ্ন | মঙ্গলবার, জানুয়ারী ১৫, ২০১৯ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- ব্রেক্সিট ইস্যুর ভোটে অংশ নেওয়ার জন্য দু’দিন পিছিয়ে দেরিতে সন্তান প্রসবের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ লেবার পার্টির এমপি টিউলিপ সিদ্দিক।

এজন্য মঙ্গলবার (১৫ জানুয়ারি) তিনি হাসপাতালের লেবার ওয়ার্ডে ভর্তি না হয়ে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ভোট দিতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ডেইলি মেইলে প্রকাশিত সংবাদে এ তথ্য জানা গেছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সঙ্গে ব্রিটেন থাকবে কি থাকবে না এই ইস্যুতে মঙ্গলবার ব্রিটিশ পার্লামেন্টে প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’র আহ্বানে চূড়ান্ত ভোটাভুটি অনুষ্ঠিত হবে।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটেনের লেবার পার্টির এমপি টিউলিপ সিদ্দিক বাংলাদেশের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাতনি ও শেখ রেহানার মেয়ে। তিনি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাগ্নি।

ডেইলি মেইলের প্রতিবেদনে জানানো হয়, সন্তান সম্ভবা টিউলিপ সিদ্দিকের আজ-কালের মধ্যে সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে সন্তান প্রসবের পূর্ব প্রস্তুতি ছিল। এজন্য উত্তর লন্ডনের একটি হাসপাতালে আজই লেবার ওয়ার্ডে ভর্তি হওয়ার কথা ছিল তার। তবে সেই হাসপাতালে সন্তান প্রসবের জন্য যাওয়ার বদলে আজ ব্রেক্সিট ইস্যুতে ভোট দেওয়াকে বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন টিউলিপ। এজন্য এই অপারেশন দু’দিনের জন্য পিছিয়ে দিয়েছেন তিনি। স্বামী ক্রিসের সাহায্য নিয়ে একটি হুইল চেয়ারে বসে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের ওই অধিবেশনে যোগ দেওয়ার পরিকল্পনা করেছেন টিউলিপ।

এই ঝুঁকিপূর্ণ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে টিউলিপ সিদ্দিক বলেন, ‘চিকিৎসকের পরামর্শের থেকে একদিন পরেও যদি আমার সন্তান পৃথিবীতে আসে, কিন্তু সেটি যদি ব্রিটেন ও ইউরোপের মধ্যে শক্তিশালী সম্পর্কের একটা পৃথিবীতে আসার জন্য হয়, তাহলে এই যুদ্ধ সার্থক হবে।’

উল্লেখ্য, এর আগেও টিউলিপ সিদ্দিক একটি সন্তান জন্ম দিয়েছেন, তার নাম আজালিয়া, এখন বয়স দুই বছর।

দ্বিতীয় সন্তান জন্ম দেওয়ার আগে এই সিদ্ধান্তের ব্যাপারে তিনি আরও বলেন, ‘যখন এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি- তখন আমি আমার সন্তানের ভবিষ্যতের কথা ভাবছি, এই পৃথিবীতে তার ভবিষ্যত নিয়ে ভেবেছি।’

তবে তিনি আরও বলেন, ‘খুব জরুরি হয়ে উঠলে, অবশ্যই আমি শিশুর স্বাস্থ্যের ওপর গুরুত্ব দেবো।’

হ্যাম্পস্টেড ও কিলবার্ন থেকে নির্বাচিত ৩৬ বছরে বয়সী এই লেবার এমপি ফেব্রুয়ারি মাসের ৪ তারিখে সিজারিয়ানের মাধ্যমে সন্তান জন্মদানের পরিকল্পনা করেছিলেন। কিন্তু আজ–কালের মধ্যেই চিকিৎসকরা তাকে সন্তান প্রসবের পরামর্শ দিয়েছেন। তবে টিউলিপ সিদ্দিক বৃহস্পতিবার পর্যন্ত অপেক্ষা করার ব্যাপারে চিকিৎসকের পরামর্শ চাইলে চিকিৎসকরা তাতে সম্মতি দেন।

এ ব্যাপারে টিউলিপ সিদ্দিক বলেন, ‘চিকিৎসকরা তাদের দায়িত্বের ব্যাপারে খুবই স্পষ্ট। তবে এটি খুব ঝুঁকিপূর্ণ গর্ভাবস্থা এবং আমি চিকিৎসকদের প্রাথমিক পরামর্শের বিরুদ্ধেই এটা করছি।’ প্রসঙ্গত, শিশুর স্বাস্থ্যগত সমস্যা নিরসনে এই লেবার এমপি গত সপ্তাহে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন এবং চিকিৎসা নিয়েছেন।

তবে তার স্বাস্থ্যের অবস্থা আরও অবনতি হলে বিরোধী টরি দলের একজন এমপির সঙ্গে তার জোড়া মিলিয়ে সেই এমপিকেও ভোটদানে বিরত থাকতে বলা হবে, যাতে উভয়ের ভোট বাতিল হয়। এই সিস্টেম অনেক দিন থেকে চলে আসছে ব্রিটেনে। জরুরি পরিস্থিতিতে গৃহীত এই ব্যবস্থাকে ‘পেয়ারড সিস্টেম’ বলে অভিহিত করা হয়। এতে উভয় দল থেকেই একজন করে ভোট দানে বিরত থাকেন, ফলে ভোটের ফলাফলে এর কোনও প্রভাব পড়ে না।

তবে টিউলিপ সিদ্দিক বলেছেন, গত গ্রীষ্মে ব্রেক্সিট বিষয়েই একটি ভোটের সময় এরকম একটি ‘পেয়ারড ডিল’ ভাঙার কারণে এই চলমান প্রথা মেনে চলার ব্যাপারে টোরিদের প্রতি আর বিশ্বাস নেই তার।