• আজ ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ ও ত্রুটিপূর্ণ, বিচারবিভাগীয় তদন্তের দাবি টিআইবি’র


সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের বিভিন্ন অনিয়ম তুলে ধরেছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। সংস্থটির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ ও ত্রুটিপূর্ণ হয়েছে। তাই, এই নির্বাচন নিয়ে বিচারবিভাগীয় তদন্ত হওয়া উচিত।’

মঙ্গলবার (১৫ জানুয়ারি) টিআইবির মাইডাস সেন্টারে ‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রক্রিয়া পযালোচনা’ শীর্ষক প্রতিবেদন প্রকাশের সময় এ দাবি করেন তিনি।

ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘সব দলের অংশগ্রহণে নির্বাচন হলেও এটা আংশিক অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন বলা যেতে পারে। কারণ সব দলের প্রার্থী থাকলেও প্রচারণায় সবার জন্য সমান সুযোগ ছিল না।’

নির্বাচন কমিশন ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার অবস্থানের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘সব দলের সমান সুযোগ নিশ্চিত করতে নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা দেখা যায়নি। প্রতিপক্ষকে দমনে সরকারি দলের সহায়ক অবস্থান নিতে দেখা গেছে। নির্বাচনি আচরণবিধি নিয়ন্ত্রণে বৈষম্যমূলক আচরণ করতে দেখা গেছে। নির্বাচনের সময় তথ্য প্রবাহ নিয়ন্ত্রণে ব্যাপক পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে যেটা বিতর্কিত হয়েছে। গণমাধ্যম ও পযবেক্ষদের জন্য অভূতপূর্ব কঠোর নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা ছিল। আইন প্রয়োগকারী সংস্থা, প্রশাসন ও নির্বাচনি কর্মকর্তাদের পক্ষপাতিত্বমূলক আচরণ করতে দেখা গেছে। যেটা আইনের লঙ্ঘন।’

আচরণবিধি লঙ্ঘণের অভিযোগের কারণে নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ড. ইফতেখারুজ্জামান। তিনি বলেন, ‘সর্বোপরি আংশিকভাবে নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হয়েছে। আচরণবিধির ব্যাপক লঙ্ঘন হয়েছে। লঙ্ঘনের অভিযোগের কারণে নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ এবং একটি অভূতপূর্ব নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে, যার ফলাফল অনেকের কাছে অবিশ্বাস্য। নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা অবশ্যই ব্যাপকভাবে লজ্জাজনক ছিল।’

উল্লেখ্য, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৩০০ আসনের মধ্য থেকে দৈবচয়নের (লটারি) ভিত্তিতে ৫০টি বেছে নেয় ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। শুরু করে গবেষণা। এতে ৫০টির মধ্যে ৪৭ আসনেই অনিয়ম উঠে এসেছে।

◷ ২:৫৪ অপরাহ্ন ৷ মঙ্গলবার, জানুয়ারী ১৫, ২০১৯ জাতীয়