সংবাদ শিরোনাম

সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ সস্ত্রীক করোনায় আক্রান্তরোহিঙ্গা শিশু অপহরণের পর হত্যার ঘটনায় নারীসহ দু’জন গ্রেপ্তারবেলকুচিতে দূর্বৃত্তদের আগুনে পুড়ে গেল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান !জামালপুরে মাদ্রাসা ছাত্রীকে রাতভর ধর্ষণ, গ্রেফতার মাদ্রাসার শিক্ষক‘করোনাকালের নারী নেতৃত্ব: গড়বে নতুন সমতার বিশ্ব’বগুড়ায় শিক্ষা প্রনোদনা পেতে প্রত্যয়নের নামে টাকা নেয়ার অভিযোগজামালপুরে ধর্ষণ মামলায় ধর্ষকের যাবজ্জীবনপাবনায় অবৈধ অস্ত্র তৈরির কারখানায় অভিযান, চারটি আগ্নেয়াস্ত্রসহ গ্রেফতার-২উপজেলা আ.লীগের সভাপতিকে ‘পেটালেন’ কাদের মির্জা!কে কত বড় নেতা, সবাইকে আমি চিনি: কাদের মির্জা

  • আজ ২৪শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

অবশেষে সিলেটে এসে সেই দুঃখ দূর করলেন মাহমুদউল্লাহরা

৫:৫৬ অপরাহ্ন | মঙ্গলবার, জানুয়ারী ১৫, ২০১৯ খেলা
khulna mahamudullah bpl

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক: বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল) ঢাকা পর্বে কোন জয় পায়নি খুলনা। সিলেট পর্বে এসে সেই দুঃখ দূর করলেন মাহমুদউল্লাহরা। লাক্কাতুরার মাঠে প্রথমে ব্যাট করে রাজশাহীকে ১২৯ রানের টার্গেট দেয় খুলনা। কিন্তু ১ বল বাকি থাকতেই ১০৩ রানে গুটিয়ে যায় মিরাজের রাজশাহী কিংস। খুলনা টাইটানস এই আসরের প্রথম ম্যাচ জিতে ২৫ রানে।

টস জিতে ব্যাট করে ম্যাচের শুরুতেই ১ চার আর ১ ছক্কায় দ্বিতীয় ওভারে উদানার বলে ফিরে যান ওপেনার জহুরুল। এরপর দলীয় ৩৭ রানে বিদায় নেন জুনায়েদ সিদ্দিক। ডেভিড মালান ফিরে যান ৬ রান করে। অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ৯ রানে ফিরে গেছেন আরাফাত সানির বলে ক্যাচ দিয়ে। শান্ত দুর্ভাগ্যের শিকার হয়ে বিদায় নেন রান আউটে।

এরপর খুলনার রানের চাকা সচল রেখেছেন কার্লোস ব্র্যাথওয়েটের ওপর। কিন্তু আরাফাত সানির বলে এলবিডাব্লিউ হয়ে তিনিও বিদায় নিয়েছেন মাত্র ৮ রান করে। খুলনার ধীর গতির ব্যাটিংয়ে সর্বোচ্চ স্কোরটা ছিলো শুধু আরিফুল হকের। ২৭ বলে ২৬ রান করে ফেরেন তিনি। ডেভিড উইজ তার আগে ফিরে গেছেন ১৩ রানের মামুলি ইনিংস খেলে।

ব্যাটসম্যানরা লম্বা ইনিংস খেলতে না পারায় খুলনা শেষ পর্যন্ত সংগ্রহ করতে পারে ৯ উইকেটে ১২৮ রান। রাজশাহীর পক্ষে দুটি করে উইকেট নেন ইসুরু উদানা, মেহেদী হাসান মিরাজ, ও আরাফাত সানি।

১২৯ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে মুমিনুল ৭ রান আর ইভান্স ০ রানে বিদায় নেন। তিন নম্বরে নেমে দলপতি মেহেদি মিরাজ করেন ১৬ বলে ২৩ রান। সৌম্য সরকার এই ম্যাচেও ব্যর্থ (২)। রায়ান টেন ডয়েসকাটের ব্যাট থেকে আসে ১৩ রান। জাকির হাসান ৭, ক্রিশ্চিয়ান জঙ্কার ১৫, ইসুরু উদানা ৬ রান করেন। শেষ দিকে আরাফাত সানি ১৫, কামরুল ইসলাম রাব্বি ১৩ আর মোস্তাফিজ ০ রান করেন।

খুলনার স্পিনার তাইজুল ইসলাম ৪ ওভারে মাত্র ১০ রান দিয়ে তুলে নেন তিনটি উইকেট। ৪ ওভারে ১২ রান দিয়ে দুটি উইকেট পান দলপতি মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ৪ ওভারে ২১ রানের বিনিময়ে কোনো উইকেট পাননি ডেভিড মালান। ডেভিড উইসি ৩ ওভারে ২৮ রানের বিনিময়ে তুলে নেন একটি উইকেট। পাকিস্তানি পেসার জুনায়েদ খান ৩.৫ ওভারে ২৬ রানের বিনিময়ে পান তিনটি উইকেট।