সংবাদ শিরোনাম

বানিজ্যিক ভাবে বিভিন্ন প্রজাতির ফল চাষে স্বাবলম্বী মাগুরার চাষী রবিউল ইসলামটানা দ্বিতীয়বার মেয়র হলেন রফিক উদ্দিন ভুঁইয়াসন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বন্ধ ও সেনা ক্যাম্প বাড়ানোর দাবিতে রাঙামাটিতে বিক্ষোভতিন শিক্ষার্থীর মানববন্ধন!বগুড়ায় মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নিহত ১শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশ: তথ্যমন্ত্রীজবিতে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার দাবিতে মানববন্ধনআশুলিয়ায় গাঁজা বাগান সন্দেহে অভিযান: স্যাম্পল ল্যাবেকক্সবাজারে দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে পথচারি নিহতটাঙ্গাইলে নিজ ঘরের সামনে স্কুল ছাত্রীকে কুপিয়ে হত্যা

  • আজ ১৫ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

‘খুশিতে, ঠ্যালায়, ঘোরতে’: ফেসবুকে ভাইরাল ভিডিও নিয়ে যা বললেন সেই তরুণী?

৬:২০ অপরাহ্ন | মঙ্গলবার, জানুয়ারী ১৫, ২০১৯ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক- সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বেশ কয়েক দিন ধরে ভাইরাল যে কথাটি তা হলো, এই মনে করেন- ভাল্লাগে, খুশিতে, ঠ্যালায়, ঘোরতে।

ফেসবুকে ঝড় তুলেছে কথাটি। নিউজ ফিডগুলো ছেয়ে গেছে এই একটি কথাই। স্যাটায়ারধর্মী পোস্ট দিচ্ছেন অনেকে। বিষয়টি নিয়ে মজা করতে বাদ যাননি ফেসবুক সেলিব্রেটিরাও। টুইটারেও এটি লেখার ব্যাপকতা দেখা গেছে।

কথাগুলোর আবির্ভাব বেশ কয়েকবছর আগে হলেও সেটি সাম্প্রতিক সময়ে ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক মাধ্যমে আপলোড হওয়া এক ভিডিও জনপ্রিয় হওয়ার পর।

অর্শিয়া সিদ্দিকা রোদসী ও তার বোন আসনা সিদ্দিকার শখের বশে বানানো ভিডিও যে এতটা জনপ্রিয়তা পাবে – তা তারা চিন্তাও করেননি।

একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের রিপোর্টের একটি অংশকে ব্যাঙ্গাত্মকভাবে পুনর্নির্মাণ করে চীনা মিউজিকাল ডাবিং অ্যাপ টিকটকে আপলোড করার পর রাতারাতি তা জনপ্রিয় হয়ে গেছে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের মধ্যে।

রোদসী বিবিসি বাংলাকে জানান, ভিডিওটি নিতান্তই শখের বশে বানিয়ে আপলোড করেন তিনি, চিন্তাও করেননি এটি এতটা জনপ্রিয়তা পাবে।

“আসল ভিডিওটি আমি আগে দেখিনি। টিকটকে অনেক মানুষ এটি বানিয়ে আপলোড করাতেই এটি নজরে আসে। তখন মনে হলো নির্বাচনের সময় এটিই ট্রেন্ডিং, তাই আমি আর আমার বোন মিলে বানাই ভিডিওটি”।

তবে নির্বাচনের সময় ঐ ভিডিও তৈরি করার পেছনে কোনো ধরণের রাজনৈতিক বিদ্রুপ বা নির্বাচনকে উপহাস করার কোন অভিসন্ধি ছিল না বলেও জানান রোদসী।

তিনি বলেন, “নির্বাচনের সময় ভিডিও বানানো বা ঐ সময়েই সেটির ভাইরাল হওয়া একেবারেই উদ্দেশ্যমূলক ছিল না। এটি সম্পূর্ণ কো-ইন্সিডেন্স।”

রোদসী বলেন, ভিডিও আপলোড হওয়ার পর অনেকেই তার অভিব্যক্তির প্রশংসা করে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

তিনি জানান, শৈশবের কয়েকবছর বাদে তার বড় হওয়া, পড়াশোনা সব ঢাকাতেই। বর্তমানে রাজধানীর একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক পর্যায়ে পড়াশোনা করছেন তিনি।

পড়াশোনার পাশাপাশি মডেলিংয়ের সাথেও যুক্ত রয়েছেন। তবে মডেলিংটা শখের বশেই করেন বলে জানান এই শিক্ষার্থী।

আরও পড়ুন-

 ‘এই মনে করেন, ভাল্লাগে খুশিতে ঠ্যালায় ঘোরতে’ এলো কীভাবে?