স্বাস্থ্য সমস্যা নিয়ে জনগণের কথা সরাসরি শুনবেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

৩:২৭ অপরাহ্ন | বুধবার, জানুয়ারী ১৬, ২০১৯ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর :: যদি এমন হতো, আপনার মনে থাকা যে কোন ধরনের প্রশ্ন কিংবা পরামর্শ সরাসরি কোন মন্ত্রীকে জানাতে পারতেন তাহলে কেমন হতো? নির্দিদ্ধায় আপনি উত্তর দেবেন খুব ভাল হতো। কেননা, আমাদের দেশে মন্ত্রীদের কাছে পাওয়া সাধারণ মানুষদের জন্য বড়ই দূরহ ব্যাপার। বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের ব্যস্ততাই হোক আর দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রণালায় সামলানোর কারণেই হোক মন্ত্রীদের খুব একটা কাছে পান না সারা দেশের মানুষ।

আর একজন মন্ত্রী যেহেতু দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রণালয়ের ভাল-মন্দ দেখাশোনা করেন, তাই তার কাছেই মানুষের আশা-আকাঙ্খাও বেশী থাকে। কিন্তু সারা দেশের সব এলাকায় সমানুপাতিক হারে সংযুক্ত হওয়া সম্ভব হয় না কোন মন্ত্রীর। হওয়া সম্ভবও নয়। কিন্তু তবুও সবাই নিজের মনমতো নানা নাগরিক সেবা পেতে চায়। সেই আশা-আকাঙ্খা কিংবা প্রত্যাশার কিছু অংশ হলেও বাস্তবায়ন করার পদক্ষেপ নিয়েছেন একাদশ জাতীয় সংসদের নতুন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

তিনি এবার জাতীয় স্বাস্থ্য সমস্যা সম্পর্কে জনগণের কথা সরাসরি জানতে চান। যে কেউ চাইলেই স্বাস্থ্য সমস্যা বিষয়ক যে কোন বিষয় তাকে জানাতে পারবে। তার নির্দেশে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে সমস্যা সম্পর্কে জানানোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

মন্ত্রীর তরফ থেকে এমন নির্দেশনার ফলে দেশের যেকোনো প্রান্তের জনগণ ওয়েবসাইটে www.mohfw.gov.bd প্রবেশ করে বিভিন্ন সমস্যা যেমন জনস্বাস্থ্য প্রতিরোধমূলক বিষয়, সরকারি স্বাস্থ্য সেবাদান কেন্দ্র, সরকারি হাসপাতাল, বেসরকারি স্বাস্থ্যসেবা, টেলিমেডিসিন সেবা, সরকারি-বেসরকারি চিকিৎসা শিক্ষা/প্রশিক্ষণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান, মন্ত্রণালয়, অধিদফতর ও সংস্থা এবং সাধারণ বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কাছে তথ্য সাবমিট করা যাবে।

একই সঙ্গে সমস্যার সমাধানে কোনো পরামর্শ থাকলে তা জানাতে পারবেন জনগণ। সংশ্লিষ্ট ওয়েবসাইটে প্রবেশ করলে ‘জাতীয় স্বাস্থ্য সেবার সমস্যা ও সমাধান সম্পর্কে সরাসরি মাননীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে জানান’ লেখাটি ভেসে উঠবে। তার নিচে লেখা রয়েছে ‘এখানে ক্লিক করুন’। সেখানে ক্লিক করে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা অনুসরণ করে অভিযোগ সাবমিট করা যাবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ইশতেহারে সকলের কাছে মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দেয়ার ঘোষণার বাস্তবায়নে তিনি জনগণের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করতে চান। তারা সমস্যা জানালে তিনি সমস্যাগুলো সমাধানের সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা চালাবেন।