সংবাদ শিরোনাম
করোনায় মৃতের সংখ্যা ৯৫ হাজার ছাড়াল, আক্রান্ত ১৬ লাখ | যুক্তরাজ্যে পিপিই’র জন্য সতর্ক করে বাংলাদেশি ডাক্তার নিজেই মারা গেলেন | করোনার মধ্যেও বায়ুদূষণে শীর্ষে ঢাকা | সীমান্তে দেড় শতাধিক রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের অপেক্ষায় | বরিস জনসনের অবস্থার উন্নতি, আইসিইউ থেকে ওয়ার্ডে স্থানান্তর | সিঙ্গাপুরে নতুন করে আরো ১১৯ জন বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত | টাঙ্গাইলের সেই কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে আইজিপিকে নোটিশ | দরিদ্রদের থেকে কেড়ে নেয়া সেই ত্রাণসামগ্রী উদ্ধার, আটক দুই | ধর্ষণের শিকার রক্তাক্ত শিশুকে নিয়ে থানায় মায়ের আহাজারি | কোন জেলায় কতজন করোনা রোগী শনাক্ত |
  • আজ ২৭শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

রমজানে মুসলমানদের সাথে রোজা রাখার ঘোষণা দিলেন মিমি

৫:৫৯ অপরাহ্ণ | বুধবার, এপ্রিল ৩, ২০১৯ বিনোদন

বিনোদন ডেস্ক- ভারতের লোকসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১১ এপ্রিল থেকে ১৯ মে পর্যন্ত। এই নির্দিষ্ট সময়ের একটা অংশ পড়েছে রমজান মাসে, যে সময় ভারতের বিশ্বাসী মুসলিম সম্প্রদায় রোজা রাখবেন। তৃণমূল প্রার্থী ও ভারতের জনপ্রিয় অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, তার আসনে নির্বাচনের দিনে মুসলিম ধর্মবিশ্বাসীদের পাশাপাশি তিনি নিজেও রোজা রাখবেন।

ভোট ঘোষণার পর থেকেই ভোটের দিনক্ষণ নিয়ে আপত্তি জানিয়ে আসছে তৃণমূল। রমজান মাসের মাঝে ভোট করানোর সিদ্ধান্তকে প্রশ্নের মুখে দাঁড় করিয়ে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, সংখ্যালঘু ভোটারদের অসুবিধার কথা মাথায় রেখে কমিশনের উচিত ছিল, রমজান মাসে ভোট না করানো। একই কথা বলেন কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিমও।

তিনি বলেন, ইচ্ছে করে সংখ্যালঘুদের যাতে অসুবিধা হয়, তা সুনিশ্চিত করতে রমজান মাসের মধ্যে ভোট করানো হচ্ছে। মোট কথা, ভোট ঘোষণার পরই স্পষ্ট হয়ে গিয়েছিল, রমজান মাসে ভোটের এই সিদ্ধান্ত রাজনৈতিক ইস্যুতে পরিণত হবে।

সেটি মাথায় রেখে সংখ্যালঘু মুসলমান অধ্যুষিত বারুইপুরের কোয়াতলায় গিয়ে রমজানে রোজা রাখার কথা ঘোষণা করলেন যাদবপুরের তৃণমূল প্রার্থী মিমি। কোয়াতলায় সংখ্যালঘুদের একটি অনুষ্ঠানে তারকা প্রার্থী বলেন, ‘আগামী ১৯ মে ভোটের দিন। ওইদিন রমজানের উপোসও চলবে। আপনাদের কথা দিচ্ছি, ওইদিন আমিও রোজা রাখাবো। বিকেলে আপনাদের সঙ্গেই ইফতার করে রোজা ভাঙব।’

মিমির এই প্রতিশ্রুতির পরই হাততালিতে ফেটে পড়ে গোটা সভাস্থল। প্রার্থী হিসেবে নাম ঘোষণার পরই যেভাবে প্রচারে ঝড় তুলছেন অভিনেত্রী প্রার্থী তাতে খানিকটা অবাক দলের কর্মীরাই। পুরোদস্তুর রাজনীতিকরাও অভিনেত্রীর সঙ্গে পেরে উঠছেন না। অনেকে বলছেন, মিমির এই রোজা রাখার ঘোষণাতেই স্পষ্ট, ভোটের আগে ‘পাবলিক পালস’ বুঝতে শিখে গিয়েছেন অভিনেত্রী।

Loading...