আদরের নাতিকে শেষবারের মতো দেখতে বনানীতে প্রধানমন্ত্রী

⏱ | বুধবার, এপ্রিল ২৪, ২০১৯ 📁 ফিচার

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক- আদুরে নাতি জায়ানকে (৮) শেষ দেখা দেখতে গেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার দুপুর ২টা ৪০ মিনিটে ফুফাত ভাই আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিমের বনানীরস বাসায় আসেন তিনি।

রোববার শ্রীলংকায় বোমা হামলায় নিহত হয় জায়ান। তার লাশ আজ দুপুরে দেশে আসে। দুপুর দেড়টার দিকে বনানীতে নানার বাসায় পৌঁছে জায়ানের লাশ।

জায়ান ছিল নানা শেখ সেলিমের প্রিয়মুখ। অবসরে তাকে নিয়ে খুনসুটিতে মেতে থাকতেন সেলিম। পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও ছোট্ট জায়ানকে আদর করতেন। জায়ান প্রধানমন্ত্রীকে দেখামাত্র দাদু দাদু বলে জড়িয়ে ধরত। চুমু খেত।

সেই আদরের নাতিকে শেষ দেখা দেখতে প্রধানমন্ত্রী আজ শেখ সেলিমের বাসায় আসার পর এক হৃদয়বিদারক পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। শেখ সেলিমসহ সব আত্মীয়স্বজন কান্নায় ভেঙে পড়েন।

আট বছরের জায়ানের লাশ বহনকারী শ্রীলংকান এয়ারলাইনসের ইউএল-১৮৯ ফ্লাইটটি বুধবার দুপুর ১২টা ৪২ মিনিটে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। বিমানবন্দরের টারমার্কে নাতি জায়ানের মরদেহ গ্রহণ করেন শেখ সেলিম।

সেখান থেকে রওনা হয়ে দুপুর দেড়টায় জায়ানের লাশ বহনকারী গাড়ি শেখ সেলিমের বনানীর বাসায় পৌঁছায়। আসরের পর বনানী চেয়ারম্যানবাড়ি মাঠে জানাজা শেষে তাকে দাফন করা হবে বনানী কবরস্থানে।

রোববার (২১ এপ্রিল) খ্রিষ্টানদের অন্যতম ধর্মীয় অনুষ্ঠান ইস্টার সানডেতে শ্রীলংকায় চারটি গির্জায় প্রার্থনারতদের ওপর বোমা হামলা চালানো হয়। পাশাপাশি বোমা হামলা চালানো হয় তিনটি অভিজাত হোটেল ও একটি বাড়িতে। ওই হামলাগুলোর একটিতেই প্রাণ হারায় শিশু জায়ান।

শেখ সেলিমের পরিবার সূত্রে জানা যায়, শেখ সেলিমের মেয়ে আমেনা সুলতানা সোনিয়া তার স্বামী মশিউল হক চৌধুরী প্রিন্স ও দুই ছেলেকে নিয়ে শ্রীলংকায় বেড়াতে গিয়েছিলেন। তারা কলম্বোর পাঁচ তারকা হোটেল সাংগ্রিলায় উঠেছিলেন। সকালে বড় ছেলে জায়ান চৌধুরীকে নিয়ে হোটেলে নাস্তা করতে গিয়েছিলেন প্রিন্স। একই সময়ে ছোট ছেলে জোহানকে নিয়ে হোটেল কক্ষে অবস্থান করছিলেন আমেনা সুলতানা সোনিয়া।

ইস্টার সানডের ওই সকালে যে তিনটি হোটেলে সিরিজ বোমা হামলা চালানো হয়, তার মধ্যে ছিল হোটেল সাংগ্রিলাও। জায়ানকে নিয়ে প্রিন্স যখন নাস্তা করতে নেমেছিলেন, হামলাটি ঠিক সেই সময়ই ঘটে। তাতে আহত হয়েছে এখন হাসপাতালের বিছানায় মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন প্রিন্স। আর শিশু জায়ানের স্পন্দন থেমে যায় ওই সময়ই।

রোববারের (২১ এপ্রিল) শ্রীলংকায় স্মরণকালের ভয়াবহ এই বোমা হামলার সর্বশেষ ৩৫৯ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। আহত হয়েছেন আরও পাঁচ শতাধিক ব্যক্তি। হামলার একদিন পর গতকাল মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) এই হামলার দায় স্বীকার করে জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস)।