টাঙ্গাইলে স্কুল ছাত্রীকে শ্লীলতাহানি, মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে হাসপাতালে ভর্তি


❏ বুধবার, এপ্রিল ২৪, ২০১৯ ঢাকা, দেশের খবর

মোল্লা তোফাজ্জল, টাঙ্গাইল প্রতিনিধি- টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে প্রেম প্রস্তাবে সাড়া না দেয়ায় এক স্কুল ছাত্রীকে দেশীয় অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে শ্লীলতাহানি করার ঘটনা ঘটেছে। এঘটনায় ওই ছাত্রী ভয়ে মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গত মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) উপজেলার ধুবলিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ওই ছাত্রী বিকেলে বিদ্যালয় থেকে বাড়ির যাওয়ার পথে তাকে দেশীয় অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে শ্লীলতাহানি করে তিন বখাটে তরুণ।

এরা হল, উপজেলার পাচতেরিল্ল্যা গ্রামের ছানোয়ারের ছেলে শান্ত (১৯), রবিন (১৫) একই গ্রামের রুকনুজ্জামানের ছেলে এবং আকাশ (১৬) গোপালপুর উপজেলার পিচুরিয়া গ্রামের মিজানুর রহমানের ছেলে। এ ঘটনায় পুলিশ রবিনকে গ্রেপ্তার করেছে।

বুধবার (২৪ এপ্রিল) দুপুরে ওই ছাত্রীর বাবা জহির উদ্দিন বাদী হয়ে তিনজনের নাম উল্লেখ করে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

সরেজমিনে ভূঞাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ১নং মহিলা ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা গেছে, মেয়েটা একটু পর পর চিৎকার দিয়ে বলছে আমাকে বাঁচাও, আমাকে বাঁচাও ওরা মেরে ফেলবে। ওই যে খুর, অস্ত্র নিয়ে আসছে আমাকে মেরে ফেলবে।

পরিবার ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ধুবলিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রীকে শান্ত নামের এক বখাটে বেশ কিছুদিন ধরে প্রেম প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। শান্ত ছাড়াও রবিন ও আকাশ তাকে প্রতিনিয়ত উত্ত্যক্ত করতো। মঙ্গলবার বিকালে বিদ্যালয় থেকে বাড়ি ফেরার পথে ওই ছাত্রীর পথরোধ করে দেশীয় অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে শ্লীলতাহানি করে। পরে বাড়িতে গিয়ে সে জ্ঞান হারিয়ে ফেললে তাকে উদ্ধার করে ভূঞাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

ধুবলিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আসাদুল ইসলাম জানান, এরআগেও ওই ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করতো বখাটেরা। এ ঘটনায় বিদ্যালয়ে এসে বখাটেদের অভিভাবকরা ক্ষমা চাওয়ায় সালিশ মিমাংসার মাধ্যমে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়। পুনরায় আবার তারাই ওই ছাত্রীকে দেশীয় অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে শ্লীলতাহানি করে। এতে মেয়েটা মানসিক জ্ঞান হারিয়ে ফেলেছে।

ভূঞাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ তৌফিক এলাহি জানান, ওই স্কুল ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করার ফলে সে মানসিকভাবে ব্যাপক বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। তার ভিতরে ভয় কাজ করছে। মাঝে মাঝে বিলাপ করছে। বর্তমানে তার অবস্থা আগের চেয়ে ভাল। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দু’একদিন চিকিৎসার পর তার শারিরীক অবস্থা বুঝা যাবে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ভূঞাপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) বিজয় দেবনাথ জানান, থানায় অভিযোগ দায়ের পর রবিন নামের একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকি আসামীদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।