শ্রীলঙ্কার বিস্ফোরণের নেপথ্যে এক অভিজাত স্বর্ণ ব্যবসায়ী পরিবার!


❏ বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ২৫, ২০১৯ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :: কলম্বো নিবাসী ফাতিমা ফজলা বুঝতেই পারেননি তাঁর পাড়ার ‘মাহাওয়েলা গার্ডেন্স’ এর অন্দরমহলে কী চলছে। ফাতিমা খুবই গর্ব করতেন, তার পাড়ার এই তিনতলা ‘মাহাওয়েলা গার্ডেন্স’ বাড়িটি নিয়ে। তিনি জানতেন কোনও অভিজাত পরিবারের হাতে রয়েছে এই বাড়ির মালিকানা।

তবে, এই বিলাসবহুল বড়ির অন্দরমহলেই যে নারকীয় হত্যালীলার ব্লুপ্রিন্ট তৈরি হচ্ছে, তা কোনওভাবেই টের পায়নি বাইরের মানুষ। শ্রীলঙ্কার কলম্বোয় আইএস জঙ্গিদের হাতে ধারাবাহিক বিস্ফোরণের ঘটনায় একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসছে।

শ্রীলঙ্কায় ৩৫৬ জনের হত্যার নেপথ্যেই এই ‘মহাওয়েলা গার্ডেন্স’ বাড়ি! শ্রীলঙ্কায় বিস্ফোরণের ঘটনায় এখন তদন্তকারীদের পাখির চোখ মহাওয়েলা গার্ডেন্স। মনে করা হচ্ছে এই বাড়িতেই থাকত দুই ভাই, যারা বিস্ফোরণের ঘটনার সঙ্গে যুক্ত। জানা গেছে, এই বাড়ির বড় ছেলে ৩৩ বছরের ইনশাফ ইব্রাহিম শ্রীলঙ্কার এক নামী কারখানার মালিক। যে ঘটনার দিন শাংগরি লা হোটেলে বিস্ফোরক নিয়ে ব্রেকফাস্টের লাইনে বিস্ফোরণ ঘটায়।

ইনশাফের ভাই ইব্রাহিমও আত্মঘাতী হামলায় নিজের স্ত্রী ও ৩ শিশুকে হত্যা করেছে বলে দাবি শ্রীলঙ্কা প্রশাসনের। একের পর এক তথ্য সূত্র মিলিয়ে গোটা ঘটনার আঁতুরঘর এই বাড়িটি হয়ে উঠছে। জানা গেছে, জনসমক্ষে ৩১ বছরের ইব্রাহিম বার বার কট্টরপন্থী ভাবধারা তুলে ধরতে পিছপা হত না। এদিকে তার দাদা, ইনশাফ শ্রীলঙ্কার নামী জুয়েলারি বাণিজ্যের সঙ্গে যুক্ত। স্বর্ণ ব্যবসায়ী পরিবারের মেয়েকে বিয়ে করার পর থেকে ব্যবসায় আরও ফুলে ফেঁপে ওঠে বলে জানা গেছে।

ইনশাফ, ইব্রাহিমদের প্রতিবেশীদের দাবি, এলাকায় গরিবদের মধ্যে টাকা দেওয়া বা অপরকে সাহায্য করতেই বেশিরভাগ সময় দেখা গিয়েছে ইনশাফ, ইব্রাহিমদের। এমন পরোপকারীদের সঙ্গে জঙ্গি যোগসূত্র মেনে নিতে পারছেন না প্রতিবেশীরা।

জানা যাচ্ছে, শ্রীলঙ্কায় আত্মঘাতী আইএস জঙ্গিরা ব্রিটেন ও অস্ট্রেলিয়া থেকে পড়াশোনা করেছে। যদিও ২০০৬-০৭ এ সেই পড়াশনার পাঠ সম্পূর্ণ চুকিয়ে আসতে পারেনি তারা। এমনই তথ্য জানানো হয়েছে শ্রীলঙ্কার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে। জঙ্গিদের দলে ছিল এক মহিলাও।