পরীক্ষার হলে ছাত্রের চুল কেটে দিলেন শিক্ষক, লজ্জায় ছাত্রের আত্মহত্যার চেষ্টা!

⏱ | বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ২৫, ২০১৯ 📁 ঢাকা
norsingdi

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ নরসিংদীতে পরীক্ষার হলে শিক্ষক প্রকাশ্যে মাথার চুল কেটে নেয়ায় অপমানে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন বিজয় মিয়া নামে দশম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী। বুধবার বেলাব উপজেলার আমলাব ইউনিয়নের লাখপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে চুল কাটার ঘটনা ঘটে। স্কুলের প্রধান শিক্ষক আফজাল হোসেন কাজল চুল কেটে দেন বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে শিক্ষার্থীর পরিবারের সদস্যরা জানান, বুধবার সকালে শিক্ষার্থী বিজয় দশম শ্রেণির প্রথম সাময়িক পরীক্ষায় অংশ নেয়। পরীক্ষা শুরুর কিছুক্ষণ পরই পরিদর্শনে এসে কক্ষে প্রবেশ করেন প্রধান শিক্ষক আফজাল হোসেন কাজল।

ওই সময় তিনি শিক্ষার্থী বিজয়ের চুল কাটার ধরণ পছন্দ না হওয়ায় অফিস থেকে কাঁচি এনে সকল শিক্ষার্থীর সামনে তা এলোপাতাড়িভাবে কেটে দেন। পরে পরীক্ষা শেষে বাড়ি ফিরে শিক্ষার্থী বিজয় লজ্জায় ও অপমানে অতিরিক্ত ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়। কিছুক্ষণের মধ্যেই সে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। সন্ধ্যা পর্যন্ত বিজয়ের জ্ঞান না ফেরায় পরিবারের লোকজন তাঁকে বেলাব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। এ সময় চিকিৎসকরা তার চেতনানাশক ওষুধ খাওয়ার আলামত পান।

বেলাব স্বাস্থ্য কেন্দ্রের উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার মো. শ্যামল মিয়া বলেন, অতিরিক্ত ওষুধ গ্রহণের কারণেই শিক্ষার্থী বিজয় জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। তাকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এ ঘটনায় বেলাব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ফখরুদ্দীন ভূঁইয়া সাহেব আমাদের থানায় ডেকে নিয়ে প্রধান শিক্ষকের সঙ্গে আপোস করিয়ে দেন।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. শহিদুল হক বলেন, ঘটনাটি সত্য। প্রকাশ্যে সকল শিক্ষার্থীর সামনে চুল কেটে নেওয়া রীতিমত নির্যাতন। একজন প্রধান শিক্ষক হিসেবে তিনি তা করতে পারেন না। শুনেছি ওসি সাহেব প্রধান শিক্ষকের সঙ্গে ওই শিক্ষার্থীর পরিবারের লোকজনকে আপস করিয়ে দিয়েছেন।