অপহরণের পর স্বামী পরিত্যাক্তা নারীকে বন্ধুদের নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ!

dhorson
❏ শুক্রবার, এপ্রিল ২৬, ২০১৯ ঢাকা

মোল্লা তোফাজ্জল, টাঙ্গাইল প্রতিনিধি- টাঙ্গাইলের সখীপুরে স্বামী পরিত্যাক্তা নারীকে (১৯) চারদিন আটকে রেখে দুই সন্তানের জনক মুখলেছ উদ্দিনের (৩৫) বিরুদ্ধে বন্ধুদের নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার হাতিবান্ধা ইউনিয়নের বাজাইল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় বুধবার রাতে ওই যুবতীর বাবা বাদী হয়ে মুখলেছ উদ্দিনসহ চারজনকে আসামী করে সখীপুর থানায় মামলা করেছেন। ধর্ষিতাকে উদ্ধার করে বৃহস্পতিবার বিকেলে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য গাইণী বিভাগের ৩ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে।

ধর্ষিতা পরিবার ও মামলা সূত্রে জানা যায়, গত রোববার (২১ এপ্রিল) সন্ধ্যায় উপজেলার হাতিবান্ধা ইউনিয়নের বাজাইল গ্রামের স্বামী পরিত্যাক্তা নারী (২১) নিখোঁজ হন। তিনদিন সকল আত্মীয় স্বজনের বাড়ি খোজাখুজি করেও তাকে পাওয়া যায়নি। হঠাৎ বুধবার বিকেলে মোবাইল ফোনে একই এলাকার আবদুল খালেকের ছেলে দুই সন্তানের জনক মোকলেছ উদ্দিন (৩৫) ওই নারী তার কাছেই আছে বলে জানায়। এ ঘটনায় ওইদিন সন্ধ্যায় ওই নারীর বাবা অপহরণকারী মোকলেছ উদ্দিন (৩৫) ,তার বাবা আবদুল খালেক, মা মিলা বেগম ও বোন মেহেরুনকে আসামী করে সখীপুর থানায় অপহরণ মামলা করেন। মামলার সংবাদ পেয়ে ওইদিন রাতেই মুখলেছ উদ্দিন ওই নারীকে তার বন্ধু মৃদুলের মামা মোবারকের বাড়িতে পৌছে দিয়ে চলে যান। খবর পেয়ে ওই রাতেই তাকে অসুস্থ্য অববস্থায় উদ্ধার করে বাড়ি নিয়ে আসেন তার পরিবার। পরে মেয়েটি বখাটে মোখলেছ উদ্দিন তাকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে চারদিন আটকে রেখে তার বন্ধুদের নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করার বিষয়টি পরিবারের কাছে জানায়।

বৃহস্পতিবার বিকেলে তাকে চিকিৎসার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মামলার বাদী ধর্ষিতার বাবা আসামিদের দ্রæত গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

সখীপুর থানার ওসি (তদন্ত) মো. লুৎফুল কবির বলেন- এ ঘটনায় থানায় মামলা করা হয়েছে। তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।