• আজ শনিবার, ১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৫ মে, ২০২১ ৷

লাবণ্যকে বহনকারী উবার চালক সুমন আটক


❏ শুক্রবার, এপ্রিল ২৬, ২০১৯ আলোচিত

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা :: রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী ফাহমিদা হক লাবণ্যকে বহনকারী উবার মোটরবাইক চালক সুমনকে আটক করেছে পুলিশ।

শুক্রবার মোহাম্মদপুরের নবীনগর হাউজিংয়ের একটি বাসা থেকে তাকে আটক করা হয়। একই সঙ্গে ওই বাসার গ্যারেজ থেকে মোটরসাইকেলটিও জব্দ করা হয়।

ডিএমপির তেজগাঁও বিভাগের উপপুলিশ কমিশনার (ডিসি) বিপ্লব কুমার সরকার জানান, সুমনকে প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তিনি ঘটনার বর্ণনা দিয়েছেন। বলেছেন, শ্যামলী ৩ নম্বর রোডের ৩১ নম্বর বাসার সামনে থেকে লাবণ্য মোটরসাইকেলে ওঠেন। জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের কাছাকাছি পৌঁছামাত্র একজন লোক মোটরসাইকেলের সামনে দৌঁড়ে রাস্তা পার হতে যায়। এসময় মোটরসাইকেলটি ব্রেক করেন সুমন। এতে লাবণ্য মোটরসাইকেলের ডানদিকে পড়ে যান। এরপর একটি কাভার্ড ভ্যান পেছন থেকে তাকে ধাক্কা দেয়।

বিপ্লব কুমার বলেন, সুমনের বক্তব্যের সত্যতা যাচাই চলছে। আর ঘাতক কাভার্ড ভ্যানটির চালককে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

আটককৃত উবার চালক সুমন জানায়, ঘটনার দিন সকালে কলেজ গেটে অবস্থানকালে তার চেয়ে পাঁচ মিনিটের দূরত্বে অবস্থানকারী একজন উবার কলার (ফাহমিদা হক লাবন্য) এর কল পেয়ে সকাল ১০টা ৩৬মিনিটে সুমন তাকে ফোন করেন।

ফাহমিদা হক লাবন্য খিলগাঁও ছায়াবিথি মসজিদের সামনে যেতে চান জানিয়ে সুমনকে শ্যামলী ৩ নং রোডের ৩১ নং বাসার সামনে যেতে বলেন। রাস্তায় যানজট ছিল।

জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের কাছাকাছি পৌছামাত্র এক পথচারীকে বাইকের সামনে দৌঁড়ে রাস্তা পার হতে দেখে সুমন বাইকে ব্রেক করেন। ফলে লাবন্য মোটর বাইকের ডানদিকে পড়ে যান। এ সময় একটি কাভার্ড ভ্যান পেছন দিকে ধাক্কা তাকে দেয়।

লাবণ্য ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে (সিএসই) তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী। তার বাবার নাম ইমদাদুল হক। তারা শ্যামলীর ৩ নম্বর রোডের ৩৩ নম্বর বাসায় থাকতেন।