🕓 সংবাদ শিরোনাম

খেলার আগে মাঠে ফিলিস্তিনের পতাকা ওড়ালেন কুড়িগ্রামের ক্রিকেটারেরাপাঁচ ঘণ্টা আটকে রেখে থানায় নেওয়া হলো প্রথম আলোর রোজিনা ইসলামকেকর্মস্থলে ফিরতে গাদাগাদি করে রাজধানীমুখী লাখো মানুষশেরপুরে পৃথক ঘটনায় একদিনে ৭ জনের মৃত্যুএক বিয়ে করে দ্বিতীয় বিয়ের জন্যে বড়যাত্রীসহ খুলনা গেল যুবক!আমার মৃত্যুর জন্য রনি দায়ী! চিরকুট লিখে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যাইসরাইলীয় আগ্রাসনের  বিরুদ্ধে ইসলামী বিশ্বের নিন্দার নেতৃত্বে সৌদি আরবত্রিশালে সড়ক দূর্ঘটনায় ৩ জনের মৃত্যুতে নিহতের বাড়ীতে চলছে শোকের মাতমকলাপাড়ায় এক সন্তানের জননীর মরদেহ উদ্ধারটাঙ্গাইলে কৃষক শুকুর মাহমুদ হত্যা মামলায় গ্রেফতার-১

  • আজ মঙ্গলবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৮ মে, ২০২১ ৷

বিএনপি রাজনৈতিক দল হিসেবে থাকবে কি-না? প্রশ্ন প্রধানমন্ত্রীর

pm
❏ শুক্রবার, এপ্রিল ২৬, ২০১৯ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ ব্রুনেইয়ে সরকারি সফর নিয়ে শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) বিকেলে গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, অবৈধভাবে ক্ষমতা দখলকারী দল ক্ষমতার বাইরে থাকলে টিকে থাকতে পারে না। এ সময় তিনি বিএনপি রাজনৈতিক দল হিসেবে থাকবে কি-না? এমন প্রশ্ন ও করেন।

শেখ হাসিনা বলেন, এদের সৃষ্টিটা কোথা থেকে সেটাও তো আপনাদের দেখতে হবে! এদের তৈরি হয়েছে কাদের দিয়ে, অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে, হত্যা ক্যু, ষড়যন্ত্রের মধ্য দিয়ে। দেশের রাষ্ট্রপতি হত্যা করে যারা ক্ষমতা দখল করেছে তাদের দ্বারা যদি দল গঠন করা হয়। সেই দল থাকবে কি না, সেটাই বিষয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ক্ষমতা দখলকারী অবৈধ দল, তারা ক্ষমতায় থাকতে পারলে টিকে থাকে। ক্ষমতার বাইরে থাকলে টিকে থাকতে পারে না। কারণ তাদের শিকড়ে জোর নাই। তাদের শিকড়ই নাই।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঐক্যফ্রন্ট থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের (এমপি) যারা শপথ নিয়েছে তারা স্বেচ্ছায় গিয়ে শপথ নিয়েছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, যে জনপ্রতিনিধিরা শপথ নিয়েছে এখানে সরকারের কিন্তু কোনো চাপ নেই। আমরা চাপ দিতে যাবো কেন?

শেখ হাসিনা বলেন, তারা জনগণের ভোটে নির্বাচিত, তারা নিজেরাই বলছে, তাদের সংসদীয় আসনের জনগণই চায়। জনগণ ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছে তারাই চাপ দিচ্ছে, তারা বলছে। এজন্য তারা শপথ নিয়েছে। যারা শপথ নিয়েছে তারা বলছে যে, তারা সংসদে গিয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তির ব্যাপারে কথা বলবে।

‘শপথ নিয়ে তারা সংসদে এসেছে, তারা তাদের কথা বলবে। এখানে আমাদের দোষ দেয়ার কী আছে। আর বিএনপি একটা রাজনৈতিক দল যেটাই তারা করুক সেটা তাদের রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত। একটা দল নিজেই তার সিদ্ধান্ত নেবে। এখানে অন্য কোনো দল তাদের ওপর সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দিতে পারে না।’
আওয়ামী লীগ একটি পোড় খাওয়া রাজনৈতিক দল উল্লেখ করে দলটির সভাপতি শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগ হচ্ছে পোড় খাওয়া রাজনৈতিক দল। আওয়ামী লীগের রাজনীতি হচ্ছে অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করে বিরোধী দলে থেকে আওয়ামী লীগের সৃষ্টি।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগে একটা সিস্টেম আছে, এটা ভাসমান রাজনৈতিক দল নয়। আমরা সবসময় গঠনতন্ত্রটা মেনে আমরা কাজ করি।

‘পাকের ঘর থেকে নয়, স্কুল জীবন থেকে রাস্তায় মিছিল করে রাজনীতিতে এসেছি’-এমন কথা জানিয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, বলতে গেলে এখানে সব থেকে প্রবীণ রাজনৈতিক নেতা আমি, এটাও ভুলে যাইয়েন না। ৭২ বছরের রাজনৈতিক জীবনে ৬০ বছরই রাজনীতিতে কেটেছে।

আওয়ামী লীগে নতুন নেতৃত্ব দলই ঠিক করবে জানিয়ে তিনি বলেন, অবসর তো নিতেই হবে, অবশ্যই। এখানে কে নেতৃত্বে আসবে এটা দল ঠিক করবে, এটা আমি ঠিক করবো না। আওয়ামী লীগ রাজনৈতিক দল হিসেবে তারা তাদের রাজনৈতিক নেতৃত্ব বেছে নিবে। তারা তাদের নেতা বেছে নেবে। সেখানে আমি কি বলে যাবো যে অমুক হবে তমুক হবে। আমরা এটা করবো না, করিও না। আমিও তো কোনোদিন ভাবি নাই, আমি আওয়ামী লীগের প্রেসিডেন্ট হবো।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ওই ধরনের সুবিধাবাদী, অনুপ্রবেশকারী এখনও দেখি না। আর কিছু লোক আসবে কিছু লোক যাবে এটা রাজনীতিতে থাকে।