🕓 সংবাদ শিরোনাম

ইসরাইলকে সমর্থন দিয়েছে বিশ্বের ২৫টির মতো দেশ!বাংলাদেশিদের ভালোবাসা দেখে বিস্মিত ফিলিস্তিন রাষ্ট্রদূতঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে যাত্রী পরিবহনের প্রতিযোগিতায় ট্রাক ও পিকআপখেলার আগে মাঠে ফিলিস্তিনের পতাকা ওড়ালেন কুড়িগ্রামের ক্রিকেটারেরাপাঁচ ঘণ্টা আটকে রেখে থানায় নেওয়া হলো প্রথম আলোর রোজিনা ইসলামকেকর্মস্থলে ফিরতে গাদাগাদি করে রাজধানীমুখী লাখো মানুষশেরপুরে পৃথক ঘটনায় একদিনে ৭ জনের মৃত্যুএক বিয়ে করে দ্বিতীয় বিয়ের জন্যে বড়যাত্রীসহ খুলনা গেল যুবক!আমার মৃত্যুর জন্য রনি দায়ী! চিরকুট লিখে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যাইসরাইলীয় আগ্রাসনের  বিরুদ্ধে ইসলামী বিশ্বের নিন্দার নেতৃত্বে সৌদি আরব

  • আজ মঙ্গলবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৮ মে, ২০২১ ৷

'বিতর্ক' ছাপিয়ে শতভাগ প্রতিশ্রুতি পুরনে ব্যতিক্রমি সব ভিন্নতার চমক মাশরাফির!

mashrafi-challange
❏ শনিবার, এপ্রিল ২৭, ২০১৯ আলোচিত বাংলাদেশ, স্পট লাইট

নড়াইল প্রতিনিধি, সময়ের কণ্ঠস্বর-  একজন মাশরাফি বিন মুর্তজা। ক্রিকেটার হিসেবে জয় করেছেন পুরো দেশের মানুষের হৃদয়। সর্বজন স্বীকৃত এই মানুষটি হুট করেই এলেন রাজনীতিতে। স্বভাবতই তার এই রাজনীতিতে আসা নিয়ে দেশজুড়ে শুরু হলো হাজারো বিতর্ক। রাজনৈতিক মতাদর্শের কারনে তিনি একশ্রেনীর মানুষের কাছে হয়ে যান বিতর্কিত। এরপর চড়াই উৎরাই পেরিয়ে জিতলেন নির্বাচন।

মাশরাফি জানতেন, বিতর্ক ছাপিয়ে গতানুগতিক ধারার জনপ্রতিনিধিদের বাইরে ভিন্নতা রেখেই প্রমান করতে হবে নিজেকে।
হয়তো সমালোচকেরাও জানতেন মাশরাফি সেটা করবেন। মাশরাফি সমর্থকদেরও প্রত্যাশা ছিলো বরাবররই তার কাছ থেকে ভিন্নতা পাবার।
সে যাত্রায় চেষ্টার ত্রুটি যে খুব একটা করছেননা নড়াইল এক্সপ্রেস খ্যাত মাশরাফি সেটা সহজেই অনুমেয়।
অনেকটা সিনেমাটিক কায়দায় আট ঘাট বেধে নেমে পড়েছেন নিজের নির্বাচনী এলাকার উন্নয়ন ও সংস্কারে তিনি।

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে অনেকেই অভিব্যাক্তি জানিয়েছেন এভাবে, ' দুদিনের নড়াইলের সফরে অন্যরকম এক মাশরাফিকে দেখেছে নড়াইলবাসী। নির্বাচনী এলাকার একপ্রান্ত থেকে অন্যপ্রান্ত পর্যন্ত দৌড়ে বেড়িয়েছেন। কখনো মোটর সাইকেলে আবার কখনো গাড়িতে। খেলোয়াড়ী জীবনে যেমনি নিজের জীবন বাজি রেখে দেশের জন্য খেলেন তেমনি জনপ্রতিনিধি মাশরাফিকে নড়াইল বাসী দেখলো অন্য এক চরিত্রে।
নিজের এলাকার উন্নয়নকাজের তদারকিতে সেখানে গেছেন বাংলাদেশ ওয়ানডে অধিনায়ক। সেই তদারকিতে আবির্ভূত হয়েছেন অগ্নিমূর্তি রূপে।'

ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ প্রস্তুতি ক্যাম্প। তবে বিশ্বকাপ স্কোয়াডে থাকা লিগে খেলা ক্রিকেটারদের ক্যাম্প থেকে দুদিনের ছুটি দেয়া হয়েছে। এই ছুটিতেও বিশ্রাম নেননি মাশরাফি।

ছুটি পেয়েই নড়াইলে ছুটেছেন তিনি। না পরিবার পরিজন্য়দের সময় দিতে নয়!

৭৩ জন নার্স থাকার স্থলে পেলেন ২ জন নার্স, ছুটি ছাড়াই তিনদিন অনুপস্থিত ডাক্তার হাসপাতালে এমপি মাশরাফির অভিযান

বিনা নোটিশেই মাশরাফি হাজির হন নড়াইল আধুনিক সদর হাসপাতালে। সেখানে চিকিৎসা নিতে আসা মানুষের কাছে নানা সমস্যার কথা শুনেন তিনি। খোঁজখবর নেন আরো অনেক বিষয়ে। চোখে পড়ে রাজ্যের জমে থাকা পুরোনো অনেক অনিয়ম, অসঙ্গতি আর দুর্নীতির ছবি ।

পুরো হাসপাতালে একজন চিকিৎসকের দায়িত্ব পালনের দৃশ্য দেখেন নিজের চোখেই । জানতে পারেন, ছুটি ছাড়াই একজন চিকিৎসক তিনদিন অনুপস্থিত রয়েছেন!

ক্ষিপ্ত হয়ে মাশরাফি রোগী সেজে ওই চিকিৎসককে ফোন করেন। ফোনের ওপাশ থেকে ঐ চিকিৎসক রোববার হাসপাতালে এসে চিকিৎসা নিতে বলেন মাশরাফিকে । পরে নিজের পরিচয় দিয়ে মাশরাফি চিকিৎসককে বলেন, এখন যদি হাসপাতালে অপারেশন দরকার হয় তাহলে সেই রোগী কী করবেন? চুপ করে আছেন কেন? কড়া ভাষায় জানিয়ে দেন, ' আপনি কি ফাইজলামি করেন? চাকরি করলে নিয়ম মেনেই করবেন।'

এরপর মাশরাফি সেই ডাক্তারকে তার কর্তব্যর কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে দ্রুত কর্মস্থলে ফিরে আসার নির্দেশ দেন।

এরপর তিনি নার্সদের অপর্যাপ্ততাও লক্ষ্য করেন। জানতে পারেন হাসপাতালে পর্যাপ্ত নার্স থাকলেও ২-১ জন দিয়েই সব ওয়ার্ড পরিচালিত হচ্ছে।

ঘটনা শুনে তাৎক্ষণিক নিচে নেমে এসে নার্সিং সুপারভাইজারদের খোঁজ করেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। নার্সদের কক্ষে তালা দেখতে পেয়ে টেলিফোনে দায়িত্বপ্রাপ্তদের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেন তিনি। এসময় একজন সুপারভাইজারের ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। অপরজনের ফোন খোলা থাকলেও রিসিভ করেননি।

মাশরাফি হাসপাতালে পেয়ে এবং তার তদারকি দেখে যেন অকুলে কুল ফিরে পান অসহায় রোগী ও তাদের স্বজনেরা। চারপাশে ভিড় জমিয়ে তারা একের পর জানাতে থাকেন অনিয়ম আর দুর্ভোগের কথা। সবার কথাই আগ্রহ নিয়ে শোনেন মাশরাফি। রোগীরা অনুরোধ করেন হাসপাতালের বাথরুম ও পরিবেশ দেখার জন্য। নিজের চোখেই কয়েকটি বাথরুমের দরজা ভাঙা এবং দুর্গন্ধ দেখে নিজেই বিব্রত হয়ে যান সংসদ সদস্য মাশরাফি ।

এর আগে নড়াইল জেলা প্রশাসকের সভাকক্ষে জেলা পর্যায়ের কর্মকর্তা ও সুধীজনের সঙ্গে মতবিনিময় করেন মাশরাফি। এছাড়া নড়াইল সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার, সততা স্টোর, ডিজিটাল হাজিরা শুভ উদ্বোধন করেন তিনি। ১৩ কোটি টাকা ব্যয়ে নাকসী মাদরাসা বাজারের মসজিদের কাজেরও উদ্বোধন করেন। পাশাপাশি দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শিশুদের শিক্ষা হোস্টেলের উদ্বোধন করেন তিনি।

প্রসঙ্গত, গত ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮ অনুষ্ঠিত নির্বাচনে নড়াইল-২ আসনে জয়ী হন জাতীয় ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি।

শপথ নিতে সংসদে প্রবেশের সময় লাউঞ্জের সামনে সাংবাদিকদের মুখোমুখি মাশরাফ বলেছিলেন, ‘এ এক অন্য রকম অনুভূতি। খুব ভালো লাগছে। এটা আমার জীবনের অনেক বড় পাওয়া।’

মাশরাফি বলেছিলেন, ‘আমাকে যাঁরা ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছেন, তাঁদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। তাঁদের প্রত্যাশা পূরণে শতভাগ চেষ্টা করব। তাঁদের ভালোবাসার মর্যাদা দেব।’
এখন পর্যন্ত দৃশ্যমান কার্যকলাপে সে প্রতিশ্রিতি পুরন করে চলেছেন মাশরাফি।

উল্লেখ্য, আগামী ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত নড়াইলে অবস্থান করবেন। এর পর জাতীয় দলের ক্যাম্পে যোগ দিতে ঢাকায় আসবেন।